SCORE

সর্বশেষ

আইপিএল মানে যখন শুধুই সাকিব-মুস্তাফিজ

আইপিএলের এবারের আসরের উদ্বোধনী ম্যাচে ৭ এপ্রিল মাঠে নেমেছিল ‘কাটার মাস্টার’ মুস্তাফিজের নতুন দল মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স  সাবেক ভারতীয় অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনির নিষেধাজ্ঞাফেরত চেন্নাই সুপার কিংসের বিপক্ষে। ওদিকে বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসানের আইপিএল শুরু হচ্ছে আজ (৯ এপ্রিল) থেকে। এবার সাকিব আর মুস্তাফিজ দুজনই নতুন দল পেয়েছেন। আইপিএলের মতো জমজমাট ক্রিকেট আসরে সাকিব অনেক পুরনো সদস্য আর মুস্তাফিজের এটি তৃতীয় আসর। এমন এক মোহনীয় ক্রিকেট আসরে বাংলাদেশের দর্শকদের কাছে মুখ্য বিষয় সাকিব-মুস্তাফিজের খেলা। এটা গত কয়েকবছর ধরেই লক্ষণীয় যে, এদেশের মানুষের কাছে আইপিএল মানে শুধুই সাকিব-মুস্তাফিজ।

সাকিব মুস্তাফিজের ব্যাপারে কি সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনা করবে বিসিবি?

কলকাতা নাইট রাইডার্সের হয়ে সাত বছর সার্ভিস দেওয়া সাকিব এবার গেছেন মুস্তাফিজের সাবেক দল সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদে। আর একই দলের সাবেক খেলোয়াড় মুস্তাফিজ মুম্বাইয়ে। গতবার এই হায়দ্রাবাদের হয়ে মাত্র এক ম্যাচ খেলতে পেরেছিলেন মুস্তাফিজ। যদিও তার আগেরবার দলটির চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পিছনে বড় ভূমিকা ছিল ‘ফিজ’র। হায়দ্রাবাদের হয়ে প্রথম মৌসুমে ১৬ ম্যাচে অংশ নিয়ে ১৭ উইকেট নিয়েছিলেন তিনি। ওই আসরে আইপিএলের সেরা উদীয়মান খেলোয়াড় হন ফিজ। কিন্তু পরেরবার সেই ঝলক মিলিয়ে গেল। মাঝখানে ইনজুরি তার আগের বোলিং ঝলক অনেকটাই কেঁড়ে নিয়েছিল। তবে সদ্য সমাপ্ত নিদাহাস ট্রফি দিয়ে ঘুরে দাঁড়ানোর ইঙ্গিত দিয়েছেন তিনি। ত্রিদেশীয় ওয়ানডে সিরিজে ৫ ম্যাচে ৭ উইকেট শিকার করেছেন মুস্তাফিজ। ইকোনমি ৩ দশমিক ২৪। তার আগেই অবশ্য চমক জাগিয়ে ২ কোটি ২০ লাখ রুপি দিয়ে তাকে দলে ভিড়িয়ে রেখেছিল মুম্বাই। চমকের কথা এজন্যই বলা যে, সাম্প্রতিক পড়তি ফর্মের মুস্তাফিজের মূল্য এবার সাকিবের চেয়েও ২০ লাখ রুপি বেশি!

Also Read - টি-টোয়েন্টিতে নতুন মাইলফলকের সামনে সাকিব

মুস্তাফিজের জন্য বেশ বড়সড় আয়োজনই করেছে মুম্বাই। তাকে নিয়ে দেশটির সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম বেশ সরগরম। মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে ফিজকে নিয়ে সাক্ষাৎকারের প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়েছে। তিন তিনটি শিরোপা জেতা এই দলে মুস্তাফিজকে নিয়ে আলাদা আগ্রহ দেখা যাচ্ছে। তাকে এবার ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন মুম্বাইয়ের অধিনায়ক রোহিত শর্মা ট্রাম্পকার্ড বানাতে চাইছেন। রোহিত শর্মা ভাল করেই জানেন কাটার মাস্টারের সক্ষমতা সম্পর্কে। আর মুস্তাফিজকেও এবার অনেক সাবলীল আর পরিণত মনে হচ্ছে। করছেন কঠোর পরিশ্রম। চোট কাটিয়ে ওঠার পর ২২ বছর বয়সী এই তরুণ পেসার ক্রমেই নিজের আগের গতি আর সুইং ফিরে পাচ্ছেন। পাকিস্তান সুপার লিগে (পিএসএল) নিজের বোলিং নৈপুণ্য দেখিয়ে এসেছেন। তারপর নিদাহাস ট্রফির ফাইনালে তার চমক জাগানো বোলিং। সবমিলিয়ে বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের পেস আক্রমণে সবচেয়ে নির্ভরযোগ্য এই পেসারকে মাঠে দেখতে উন্মুখ বাংলাদেশের দর্শকরাও। কারণ তাদের কাছে আইপিএলের গুরুত্ব আগের চেয়ে বেড়ে গেছে ফিজের কারণে। দেশসেরা পেসার এবার কেমন করেন তা নিয়ে উৎসাহের শেষ নেই। এদেশের মানুষের কাছে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের অন্য অনেক মহারথীদের চেয়ে মুস্তাফিজের ভাল খেলাই মূল বিষয়।

দলের সাথে যোগ দিতে ইংল্যান্ডের পথে সাকিব-মুস্তাফিজ

যার জন্য আইপিএল নিয়ে বাংলাদেশের মানুষের তুমুল আগ্রহের সূচনা, সেই মানুষটি বাংলাদেশ জাতীয় টেস্ট ও টি-টোয়েন্টি দলের অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। দেশের গণ্ডি ছাড়িয়ে তার ক্রিকেটদ্যুতি ছড়িয়ে গেছে অনেক দেশেই। ফ্র্যাঞ্চাইজিভিত্তিক লিগগুলোতে সাকিব অটোমেটিক চয়েস। আর আইপিএলের দল কলকাতা নাইট রাইডার্সের হয়ে সাত বছর খেলেছেন সাকিব। দলটির হয়ে তার ভূমিকা ছিল অনন্য। ২০১১ সালের পর থেকে সাকিবকে কলকাতা নিলামের হাতুড়ির নিচে যেতে দেয়নি, রেখে দিয়েছিল। অথচ এবার তাকে ছেঁড়ে দিলো দলটি। তাকে আপন করে নিলো সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদ। এই দলেই আগের দুই বছর ছিলেন মুস্তাফিজ। নতুন দলে তিনি সাদর অভ্যর্থনা পাচ্ছেন। তাকে নিয়ে বেশ আগ্রহ দেখা যাচ্ছে দলটিতে। সাকিবকে দলে পেয়ে নিশ্চিন্ত দলটির বোলিং কোচ লঙ্কান কিংবদন্তী মুত্তিয়া মুরালিধরন। তিনি দলে থাকা মানে যে বাড়তি সুবিধা সেটা দলটি অনুধাবন করতে পারছে। সাকিবের সাথে এবার হায়দ্রাবাদের স্পিন আক্রমনে আছেন আফগান স্পিনার রশিদ। এই দুজনের স্পিন জুটি যে ভয়ঙ্কর হবে তা আর বলার অপেক্ষা রাখেনা। পাওয়ার প্লে এবং ডেথ ওভারে সাকিবের জুরিই মেলা ভার। সদ্যই শেষ হওয়া নিদাহাস ট্রফিতে সাকিব শেষ দুই ম্যাচেই বল হাতে আলো ছড়িয়েছেন। ব্যাট হাতে এখনও পুরনো রূপ ফিরে পেয়েছেন কি না তা বুঝা যাবে এই আইপিএল আসরেই। তবে কলকাতা তাকে ছেঁড়ে দিয়ে ভুল করেছেন কি না সেটা এবার হাড়েহাড়ে টের পাওয়া যাবে।

সাকিব আর মুস্তাফিজ এই দুজনই দেশের জন্য সুনাম বয়ে এনেছেন অনেকবার। আইপিএলের এবারের আসরে এই দুজনের দিকেই নজর থাকবে বাংলাদেশের ক্রিকেটভক্তদের। খেলার ফলাফল এখানে মুখ্য নয়, বরং আমাদের দেশের  সবচেয়ে উজ্জ্বল দুই তারকাকে মাঠে ভাল খেলতে দেখার আনন্দটাই মুখ্য। সাকিবের অসামান্য সামর্থ্য নিয়ে কোন প্রশ্ন তোলার সুযোগ নেই। মুস্তাফিজের সামর্থ্য নিয়েও প্রশ্ন তোলা যাবে না। এখন শুধু তাদের সামর্থ্যের বাস্তবায়ন দেখানোর অপেক্ষা। বাংলদেশের ক্রিকেটের এই দুই মহীরুহের জ্বলে উঠার অপেক্ষায় আছে পুরো দেশ। কারণ, এদেশের মানুষের কাছে আইপিএল মানে যে শুধুই সাকিব আর মুস্তাফিজ।

আরও পড়ুনঃ কেনিয়া ক্রিকেট বোর্ডে সংস্কার

Related Articles

ইয়ো ইয়ো টেস্টে বাদ পড়লেন ভারতের স্টার ক্রিকেটার

কোহলি নন, মোহাম্মদ নবীর প্রিয় ডি ভিলিয়ার্স

পরিবারের সান্নিধ্যে ঈদ, তবু মুস্তাফিজের আক্ষেপ

ভাগ্যকেই দোষারোপ করছেন মুস্তাফিজ

ঈদের পর অনুশীলন শুরু করবেন মুস্তাফিজ