SCORE

Trending Now

ছুঁরির নিচে যেতে হতে পারে মিরাজকে

কাঁধে চোট পাওয়ার কারণে ক্রিকেট থেকে আপাতত দূরে রয়েছেন জাতীয় দলের ক্রিকেটার মেহেদী হাসান মিরাজ। সতীর্থরা যখন বিসিএলে খেলছেন, তিনি তখন রোগীর আসন গ্রহণ করছেন চিকিৎসকের কক্ষে। জানা গেছে, ‘রোগী’ সত্তা ত্যাগ করার জন্য অস্ত্রোপচার করানো লাগতে পারে তার।

miraz মিরাজ

মিরাজের ইনজুরি সম্পর্কে বলতে গিয়ে সম্প্রতি বিসিবি চিকিৎসক দেবাশীষ চৌধুরী বলেন, ‘ডান কাঁধের এই ইনজুরি অনূর্ধ্ব-১৯ দলে খেলার সময় থেকেই ওকে ভোগাচ্ছে। চিকিৎসাও হয়েছে। তবে মোটামুটি ম্যানেজেবল অবস্থায় ছিল। সম্প্রতি ওর থ্রোয়িংয়ে সমস্যা হচ্ছিল। আমরা এমআরএই করিয়েছি, তাতে ওর ল্যাবরাল টিয়ার ধরা পড়েছে। আমরা কনজারভেটিভ উপায়ে চেষ্টা করছি ম্যানেজ করার জন্য। আগামী দেড় থেকে দুই মাস চেষ্টা করব ইনজেকশন অথবা ফিজিওথেরাপি দিয়ে ম্যানেজ করতে। এরপরও ব্যথা না কমলে, সমস্যা থেকে গেলে পরবর্তীতে অপারেশনে যেতে হবে।’

Also Read - চেন্নাই থেকে সরে যাচ্ছে আইপিএল?

অর্থাৎ, প্রাথমিক উপায়ে ইনজুরি না সারলে অস্ত্রোপচারের ছুঁড়ির নিচে যেতে হবে তাকে। ইনজুরির ক্যাটাগরি বিবেচনায় যা কিনা মুস্তাফিজের সর্বশেষ ইনজুরির সমতুল্য। দেবাশীষ বলেন, ‘মুস্তাফিজের যে ইনজুরিতে অপারেশন করতে হয়েছে, অনেকটা কাছাকাছি ধরনেরই ইনজুরি এটা। মুস্তাফিজের সময় কনজারভেটিভ উপায়ে চেষ্টা করেছিলাম। সফল না হওয়াতে পরে অপারেশন করাতে হয়। মিরাজেরও আগে কনজারভেটিভ উপায়ে চেষ্টা করব। এরপর বোঝা যাবে অপারেশন লাগবে কিনা।’

অবশ্য মুস্তাফিজের মতো এতো দুশ্চিন্তা করতে হচ্ছে না মিরাজকে। অলরাউন্ডার এই ক্রিকেটার ব্যাট করতে কোনো সমস্যার সম্মুখীন হচ্ছে না, সমস্যা হচ্ছে না বোলিংয়েও। বল ছুঁড়ে মারতেই যত সমস্যা। দেবাশীষের ভাষ্য, ‘মিরাজের ব্যাটিংয়ের সমস্যা হচ্ছে না। মূল সমস্যা থ্রোয়িংয়ে। বোলিংও করতে পারছে। তবে প্রথম দিকে দুই-তিন ওভার ধুঁকছে। পরে শরীর গরম হলে ব্যথা কমে আসছে। এই পর্যায়ের ক্রিকেটে এ রকম ইনজুরি নিয়ে চলা মুশকিল। আমরা চেষ্টা করব পুরোপুরি ঠিক করে তুলতে। কনজারভেটিভ উপায়ে কাজ না হলে দেড়-দুই মাস পর অবশ্যই সিদ্ধান্ত নিতে হবে।’

আরও পড়ুনঃ লিটনের ব্যাটে লড়ছে ইস্ট জোন

Related Articles

রুবেলের জন্ডিসের শঙ্কা

মোসাদ্দেকের ইনজুরি

মুশফিকের ইনজুরি প্রসঙ্গে দেবাশীষের মন্তব্য

‘খেলতে গেলে চোটে পড়তেই পারে’

ছন্দ ফিরে পাওয়াই মোসাদ্দেকের মূল চ্যালেঞ্জ