SCORE

সর্বশেষ

পারলেন না সাকিব, পারল না হায়দরাবাদ

সাকিব আল হাসানের সামনে ছিল মাইলফলক স্পর্শের হাতছানি। টি-২০ ক্রিকেটের এক অলরাউন্ডিং রেকর্ড থেকে মাত্র এক উইকেট দূরে ছিলেন তিনি। পুরো চার ওভার বোলিং করেও উইকেট শূন্য ছিলেন সাকিব। পারেননি মাইলফলক স্পর্শ করতে। ব্যাটিংয়েও তার ওপর ছিল পাহাড়সম দায়িত্ব। ক্রিজে থিতু হয়ে প্রাথমিক বিপর্যয় সামাল দিলেও বড় ইনিংস খেলতে পারেননি সাকিব। সাকিবের না পারার দিনে ব্যর্থ হয়েছে সানরাইজার্স হায়দরাবাদও।

টস হেরে প্রথমে ব্যাটিং করতে নামে চেন্নাই সুপার কিংস। গত ম্যাচে শতক হাঁকানো অস্ট্রেলিয়ান ব্যাটসম্যান শেন ওয়াটসন এ ম্যাচে হন ব্যর্থ। ১৫ বলে ৯ রান করে ভুবনেশ্বর কুমারের শিকার হন ওয়াটসন। এরপর ফাফ ডু প্লেসিস এবং সুরেশ রায়না ১৮ রান যোগ করেন। তবে রানের গতি ছিল সানরাইজার্স হায়দরাবাদের বোলারদের নিয়ন্ত্রণে।

Also Read - আফগানিস্তানের বিপক্ষে পূর্ণ শক্তির দলই পাঠাবে বাংলাদেশ

১৩ বলে ১১ রান করে লেগ স্পিনার রাশিদ খানের বলে স্টাম্পিং হন ডু প্লেসিস। প্লেসিসের বিদায়ের পর হাল ধরেন আম্বাতি রাইডু। রাইডু এবং রায়না মিলে ১১২ রানের জুটি গড়েন। দলের রানের গতিও বাড়ান দুজন। দুজনই তুলে নেন অর্ধশতক। ৯ চার আর ৪ ছক্কায় গড়া ৩৭ বলে ৭৯ রানের এক বিধ্বংসী ইনিংস খেলে রান আউট হন আম্বাতি রাইডু। শেষদিকে ইনিংসের দারুণ পরিসমাপ্তি করেন অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনি। ফিনিশারের ভূমিকায় বরাবর তিনি অসাধারণ। ৩ চার আর ১ ছক্কায় ১৩ বলে ২৫ রানের ইনিংস খেলে সেই অসাধারণত্ব দেখালেন আরেকবার। ৫ চার আর ২ ছক্কায় সাজানো ৪৩ বলে ৫৪ রানের ইনিংস খেলে অপরাজিত ছিলেন সুরেশ রায়না।

২০ ওভার শেষে ৩ উইকেট হারিয়ে ১৮২ রানের বড় স্কোর গড়ে চেন্নাই সুপার কিংস। একটি করে উইকেট নেন ভুবনেশ্বর কুমার এবং রাশিদ খান। দলের অন্য বোলাররা ছিলেন উইকেট শূন্য। চার ওভার বোলিং করেন সাকিব। রান দেন ৩২। উইকেট না পেলেও একাধিক ওভার করা বোলারদের মধ্যে তার ইকোনমিই ছিল সবচেয়ে কম। চার দিয়েছেন দুইটি, তার বলে ছক্কা হয়েছে একটি।

ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুতেই বেহাল দশা হয়ে যায় সানরাইজার্স হায়দরাবাদের। ৫ বলে ০ রান করে ভুই ফিরে যান চাহারের বলে। প্রথম ওভারেই উইকেট হারায় সাকিবের দল। ভুইয়ের পথ অনুসরণ করেন তার সঙ্গী মনিশ পান্ডে। এ ওপেনারও ফিরেন রানের খাতা খোলার আগেই। তাকেও ফেরান চাহার। মাত্র ১০ রানে দুই উইকেট হারিয়ে বিপদে পড়ে যায় সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদ।

বেশিক্ষণ টিকেননি দীপক হুদাও। নিজের তৃতীয় ওভারে হুদাকেও আউট করেন চাহার। তিন ওভারে তিন উইকেট নিয়ে সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদের টপ অর্ডারকে গুড়িয়ে দেন একাই। ৭ বলে ১ রান করে আউট হন দীপক।

দীপকের বিদায়ের পর ব্যাটিংয়ে আসেন সাকিব আল হাসান। দারুণ সঙ্গ দেন অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসনকে। চতুর্থ উইকেটের জুটিতে দুজন মিলে যোগ করেন ৪৯ রান। তাদের জুটিতে ম্যাচে আশা জিইয়ে রেখেছিল সানরাইজার্স। এক প্রান্ত আগলে রেখে খেলতে থাকেন কেন উইলিয়ামসন।

দলীয় ৭১ রানের মাথায় সাকিবের বিদায়ে এ জুটি ভাঙে। ১৯ বলে ২৪ রান করে করণ শর্মার বলে আউট হন সাকিব। তার ইনিংসে ছিল ২ চার ও ১ ছক্কা।

এরপর অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসনকে নিয়ে হাল ধরেন ইউসুফ পাঠান। অর্ধশতক তুলে নেন কেন উইলিয়ামসন। ছক্কা হাঁকিয়ে রান আর বলের টানাপোড়েন কমানোর চেষ্টা করতে থাকেন পাঠান।  কিন্তু কাজে আসেনি কোনো কিছু। দলীয় ১৫০ রানের মাথায় আউট হন উইলিয়ামসন। ৫ চার ও ৫ ছক্কা সমৃদ্ধ ৫১ বলে ৮৪ রানের এক দুর্দান্ত ইনিংস খেলেন তিনি। পরের ওভারে আউট হয়ে যান ইউসুফ পাঠানও। ২৭ বলে ৪৫ রানের ইনিংস খেলে আউট হন পাঠান। তার ইনিংসে ছিল ১ চার আর ৪ ছয়।

শেষদিকে ঝড় তুলেছিলেন রাশিদ খান। ২ ছক্কা ও ১ চারে ৪ বলে ১৭ রানের ছোট্ট এক ইনিংস খেলেন তিনি। তবে তার প্রয়াস সফল হয়নি। ১৭৮ রান করেই থেমে যায় সানরাইজার্স হায়দরাবাদ।

সংক্ষিপ্ত স্কোর-

চেন্নাই সুপার কিংস ১৮২/৩, ২০ ওভার
রাইদু ৭৯, রায়না ৫৪, ধোনি ২৫
ভুবনেশ্বর ১/২২, রাশিদ খান ১/৪৯

সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদ ১৭৮/ ৬, ২০ ওভার
উইলিয়ামসন ৮৪, ইউসুফ ৪৫, সাকিব ২৪
চাহার ৩/১৫, শর্মা ১/৩০, ব্রাভো ১/৩৭


আরও পড়ুনঃ আফগানিস্তানের বিপক্ষে পূর্ণ শক্তির দলই পাঠাবে বাংলাদেশ

Related Articles

টিকে থাকার লড়াইয়ে মুখোমুখি কলকাতা-রাজস্থান

সাকিবদের হারিয়ে ফাইনালে চেন্নাই

সাকিবের কাছে হার মানলেন রশিদ

চেন্নাইয়ের বিপক্ষে সাকিবদের ফাইনালে ওঠার লড়াই

নিজে হারলেও মুম্বাইয়ের পরাজয়ে প্রীত প্রীতি!