SCORE

সর্বশেষ

বাদ পড়েও ‘রুকি’ ক্যাটাগরিতে মোসাদ্দেক?

‘আমি খেলার মধ্যে ছিলাম না দীর্ঘদিন। চোটে কারও হাত নেই। এটার কারণে ছন্দে নেই, সেটি কিন্তু নয়। চোট থেকে ফিরে বিপিএলে ঠিকমতো ব্যাটিংয়ের সুযোগ পাইনি। আমার ব্যাটিং অর্ডার হঠাৎ ওলটপালট হওয়ায় একটু সমস্যাও হয়েছে। ধীরে ধীরে কাটিয়ে ওঠার চেষ্টা করছি। আশা করি ধীরে ধীরে ছন্দ ফিরে পাব।’

বাদ পড়েও 'রুকি' ক্যাটাগরিতে মোসাদ্দেক?

বিসিবির কেন্দ্রীয় চুক্তি থেকে বাদ পড়ার পর সংবাদমাধ্যমকে এমনটাই জানিয়েছিলেন বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের নির্ভরযোগ্য অলরাউন্ডার মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত।

Also Read - ওয়ার্নার যখন শখের ‘নির্মাণ শ্রমিক’!

ছোটখাটো ইনজুরিতে পড়ার আগে ব্যাট হাতে মোসাদ্দেক ঝলক দেখিয়েছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট লিগ- বিসিএলের পঞ্চম রাউন্ডেও। দক্ষিণাঞ্চলের হয়ে দ্বিতীয় ইনিংসে দুর্দান্ত একটি শতক হাঁকান তিনি। যদিও এরপরই পান চোটের দুঃসংবাদ।

তবে চোটের দুশ্চিন্তা বয়ে বেড়ালেও একটি সুখবর সম্ভবত অপেক্ষা করছে মোসাদ্দেকের জন্য। গত বছর বিসিবির কেন্দ্রীয় চুক্তিতে ছিলেন ১৬ জন ক্রিকেটার। এবার বাদ পড়েছেন ৬ জন, যেখানে আছেন মোসাদ্দেকও। বাকি ১০ ক্রিকেটারের সাথে কেন্দ্রীয় চুক্তিতে এবার সুযোগ পাওয়ার কথা আরও ৩-৪ জন, যারা থাকবেন ‘রুকি’ ক্যাটাগরিতে। বিসিবি কর্তারা জানিয়েছিলেন, চলমান বিসিএলের পারফরমেন্স বিবেচনা করেই নির্ধারিত হবে ‘রুকি’ ক্যাটাগরির আওতাভুক্তরা। আর তাই মোসাদ্দেকের পারফরমেন্স আবারও তাকে নিয়ে ভাবতে বাধ্য করছে নীতিনির্ধারকদের।

চুক্তি থেকে বাদ পড়া বাকি ৫ জনের মতো মোসাদ্দেকের ফর্ম ছিল না অসন্তোষজনক। বরং ইনজুরির কারণে বেশি ম্যাচ খেলার সুযোগই পাননি তিনি। যে কয় ম্যাচ পেয়েছেন, সেখানেও তার প্রতিভার মূল্যায়ন করা হয়নি ঠিকভাবে। সেটি মেনে নিয়ে জাতীয় দলের প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নু বলেন, ‘অন্যরা পারফরম্যান্সের কারণেই বাদ পড়েছে। মোসাদ্দেকের ব্যাপারটি আলাদা। ও তো লম্বা সময় বাইরে ছিল দলের। ওর চিকিৎসাও কিন্তু বিসিবিই করিয়েছে। তা ছাড়া আজও বিসিএলে সেঞ্চুরি করেছে। ভালো করতে থাকলে আবার নিশ্চয়ই চুক্তিতে ঢুকে যাবে।

বিসিবির আরেক সিনিয়র কর্মকর্তা আকরাম খানের মতে, ঘরোয়া ক্রিকেটে মোসাদ্দেকের ফর্ম সন্তুষ্ট করেনি তাদের। বিসিবির পরিচালক ও ক্রিকেট অপারেশন্স কমিটির চেয়ারম্যান বলেন, ‘আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে কিছু ভালো পারফরম্যান্স ওর আছে। কিন্তু আমরা এবার ঘরোয়া ক্রিকেটের সাম্প্রতিক পারফরম্যান্সও বিবেচনা করেছি। বিপিএল ও প্রিমিয়ার লিগে কিন্তু ওর পারফরম্যান্স অত সুবিধার ছিল না।

তবে পারফরমেন্স প্রদর্শনের জন্য যথাযথ সুযোগ কি দেওয়া হয়েছিল, ঘরোয়া ক্রিকেটে? সেই প্রশ্ন রাখতেই পারেন মোসাদ্দেক!

আরও পড়ুনঃ নিদাহাস ট্রফি থেকে ৪৮২ শতাংশ লাভ!

Related Articles

আফগান সিরিজেও প্রধান কোচের দায়িত্বে ওয়ালশ!

এখনও নিশ্চিত হয়নি আফগানিস্তান সিরিজের সূচি, চূড়ান্ত দল জুনে

পাঁচ বছরে আরো উন্নতির প্রত্যাশা

সম্ভাব্য সেরা দলই খেলবে আফগানদের বিপক্ষে

‘সমালোচকদের উপযুক্ত জবাব দিয়েছে বাংলাদেশ’