বাড়ছে ক্রিকেটারদের বেতন-ভাতা

ক্রিকেটারদের দাবির মুখে গত বছর চুক্তির আওতায় থাকা ক্রিকেটারদের বেতন-ভাতার পরিমাণ বৃদ্ধি করেছিল দেশের ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিসিবি। বছর ঘুরতেই এবার আবারও বাড়ানো হচ্ছে পারিশ্রমিকের পরিমাণ। যদিও একইসাথে কমে যাচ্ছে কেন্দ্রীয় চুক্তিতে থাকা ক্রিকেটারের সংখ্যা।

নিদাহাস ট্রফির দল ঘোষণা করা হবে সোমবার

সোমবার সংবাদমাধ্যমের সাথে আলাপকালে এমনটিই জানান বিসিবির ক্রিকেট অপারেশন্স কমিটির চেয়ারম্যান আকরাম খান। তিনি জানান, এখন থেকে প্রতি বছরই একটু একটু করে বাড়বে ক্রিকেটারদের বেতন-ভাতা।

Also Read - জুন থেকে টাইগারদের ব্যস্ত সূচি

আকরাম খান বলেন, ‘গতবার আমরা প্রায় ১০০ শতাংশ বাড়িয়েছিলাম। ধীরে ধীরে আরও বাড়াব।’

নিজেদের ইতিহাসে সবচেয়ে বেশি বেতন বাড়ানোর রেকর্ড বিসিবি করেছিল গত বছর। ২০১৬ সাল পর্যন্ত চুক্তির আওতায় থাকা ক্রিকেটাররা যে বেতন পেতেন, বর্তমানে তা বেড়েছে দ্বিগুণ। নতুন কাঠামোয় বেতন বৃদ্ধিতে এতো না বাড়লেও বৃদ্ধির হার হবে না এতো কমও।

বিসিবির পরিচালনা পর্ষদের আগামী সভা অনুষ্ঠিত হবে ১৮ এপ্রিল। ঐদিনই ক্রিকেটারদের বেতন বাড়ানো প্রসঙ্গে প্রস্তাব করবে ক্রিকেট অপারেশন্স কমিটি। দেশের অন্যান্য খেলাধুলার চেয়ে নিজস্ব ক্রীড়াঙ্গনের সংস্থা থেকে ক্রিকেটাররা বেতন পান তুলনামূলক বেশিই। যদিও অন্যান্য ক্রিকেট খেলুড়ে দেশের হিসেবে এটি কম। এ প্রসঙ্গে আকরাম খান বলেন, ‘বেতন কাঠামো নিয়ে অন্য দেশের সঙ্গে তুলনা করা ঠিক নয়। আমরা প্রতিবছর সাধারণত বাড়াই। এবারও বাড়াব।’

এদিকে বেতন-ভাতা বাড়লেও কপাল পুড়তে যাচ্ছে কিছু ক্রিকেটারের। আগের বেতন কাঠামোয় ১৬ জন ক্রিকেটার কেন্দ্রীয় চুক্তির আওতায় থাকলেও এবার সংখ্যাটা আরও কমে আসছে। যদিও এ ব্যাপারে এখনও পূর্ণাঙ্গ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি বোর্ডের পক্ষ থেকে।

অনেক কিছু বিবেচনা করেই চুক্তিতে থাকা খেলোয়াড়ের সংখ্যা কমানো হচ্ছে, এমনটা জানিয়ে আকরাম খান বলেন, ‘আমরা প্রস্তাব এখনো চূড়ান্ত করতে পারিনি। কাল ঠিক করে ফেলব। তবে এটা ঠিক, চুক্তিতে খেলোয়াড় কমবে। অনেক কিছু বিবেচনা করতে হচ্ছে। খেলোয়াড়ের সংখ্যা কম থাকলে ভালো হয়।’

আরও পড়ুনঃ ক্রিস গেইল- স্বঘোষিত ‘ইউনিভার্স বস’!