SCORE

সর্বশেষ

যেখান থেকে শুরু ‘নাগিন ড্যান্স’ উদযাপনের

মাথায় হাত উচিয়ে নাগিন ড্যান্স দিয়ে উদযাপন করা বেশ জনপ্রিয়তা পেয়েছে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম থেকে শুরু করে ক্রিকেট সমর্থকদের কাছে। মূলত এই উদযাপনের আসল কারিগর স্পিনার নাজমুল ইসলাম অপু হলেও এই উদযাপনের জনপ্রিয়তা পেয়েছে মুশফিকের হাত ধরে। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ৭২ রানের অপরাজিত ম্যাচজয়ী ইনিংস খেলে নাগিন ড্যান্স দিয়ে উদযাপন করতে দেখা যায় মুশফিককে।

টাইগারদের সর্পনৃত্য
শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ম্যাচ জয়ের পর পুরো দল মেতে উঠে নাগিন ড্যান্স উদযাপনে

সেখান থেকে সেটির জনপ্রিয়তা পায়। তবে আসল কারিগর নাজমুল অপু জানিয়েছেন এই নাগিন উদযাপন কোন জায়গা থেকে এসেছে। মূলত ২০১৭ বিপিএলে রাজশাহী কিংসের হয়ে খেলেছিলেন অপু। একই দলে ছিলেন ড্যারেন স্যামি, কেসরিক উইলিয়ামস। ড্রেসিং রুমে খেলোয়াড়দের মধ্যে আলোচনা চলাকালীন এই উদযাপনের বিষয়টি মাথায় আসে নাজমুল অপুর।

‘রাজশাহী কিংসের হয়ে খেলার সময় ড্রেসিং রুমে সব ক্রিকেটার এক সঙ্গে ছিল। সেখানে পাশের ক্রিকেটারকে নিয়ে নিজের কেমন অনুভূতি সেগুলো ব্যাখ্যা করা হচ্ছিলো। কেসরিক উইলিয়ামসের পাশেই সরোয়ার স্যার ছিল। তখন উনি বলতেছিল, স্পিনাররা সাপের মতো হবে যে সুযোগ বুঝে আক্রমণ করবে। তখন থেকেই এই উদযাপনের বিষয়টা মাথায় আসছিল।’

Also Read - ‘খারাপ করছি দেখেই বেশি চোখে পড়ছে’

বিপিএলের গত দুই আসরেই উইকেট পেলে এমন উদযাপন করতেন অপু। গত বিপিএল ভালো করায় ডাক পান জাতীয় দলে। ঘরোয়া ক্রিকেট থেকে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটেও এই উদযাপন নিয়ে আসেন স্পিনার অপু। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ঘরের মাঠে টি-টোয়েন্টিতে কুশল পেরেরার উইকেট পাওয়ার পর নাগিন ড্যান্স উদযাপন করেছিলেন তিনি।

তবে উদযাপনটি ভালো চোখে নেননি শ্রীলঙ্কানরা। দ্বিতীয় ম্যাচ শেষে রাহীকে আউট করার পর বাংলাদেশকে ব্যঙ্গ করে উদযাপন করেন দানুশকা গুনাথিলাকা। ম্যাচ শেষে কুশল জানিয়েছেন শ্রীলঙ্কায় আসলে দেখে নিবে বাংলাদেশকে। সেই উদযাপনের রেশ ছড়িয়েছে শ্রীলঙ্কার মাঠেও।

‘কুশল পেরেরার উইকেট পাওয়ার পর আমি নাগিন ড্যান্স উদযাপন করেছিলাম তখন সে বলছিল প্রতিশোধ নিবে। পরে আমি ও রাহী যখন ব্যাটিং করছিলাম তখন রাহী আউট হলো। রাহীর উইকেট পড়ার পরে ওরাও একই উদযাপন করলো এবং ম্যাচ শেষে বলতেছিল শ্রীলঙ্কায় দেখা হবে তখন দেখে নিব।’

তিনি আরও যোগ করেন, ‘শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে প্রথম ম্যাচ জিতার পর সুজন ভাই, মুশফিকরা বলতেছিল এই উদযাপন শুধু তোর একার না, এটা দলের। ইনশাহআল্লাহ্‌ আমরা কাউকে ছাড়বো না, সব দলকে এভাবে ছোবল মেরে শেষ করে দিব। এই জিনিসটা দেখে ভালো লাগছে, এইটার কারণে দলের ক্রিকেটাররা উজ্জীবিত হয়েছে এটাও অনেক বড় ব্যাপার।’

আরও পড়ুনঃ নতুন মাইলফলকের সামনে সাকিব

Related Articles

এবার দলের সঙ্গে থাকছেন না সুজন

মানসিকভাবে পিছিয়ে বাংলাদেশ!

মুস্তাফিজকে কারণ দর্শানোর নোটিশ

‘র‍্যাঙ্কিং নয়, সিরিজ জয় নিয়েই ভাবনা’

বিসিবিকে ধন্যবাদ দিলেন মাশরাফি