SCORE

সর্বশেষ

শেষ বলের শ্বাসরুদ্ধকর জয়ে প্রিমিয়ারে টিকে রইলো ব্রাদার্স

ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লিগের (ডিপিএল) রেলিগেশন লিগের বাঁচা-মরার লড়াইয়ে প্রিমিয়ার লিগে টিকে থাকার জন্য শেষ বলে চার রান দরকার ছিল ব্রাদার্স ইউনিয়নের। এমতাবস্থায় ধাওয়ানের করা শেষ ওভারের শেষ বলে চার রান নিয়ে ঠিকই দলকে জয়ের বন্দরে নিয়ে গেলেন ব্রাদার্সের ব্যাটসম্যান নাজমুস সাদাত। একইসাথে দলকে রক্ষা করলেন প্রথম বিভাগের ক্রিকেটে নেমে যাওয়ার হাত থেকে। অন্যদিকে শ্বাসরুদ্ধকর এ ম্যাচে হারের ফলে প্রথম বিভাগে নেমে গেল অগ্রণী ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাব।

শেষ বলের শ্বাসরুদ্ধকর জয়ে প্রিমিয়ারে টিকে রইলো ব্রাদার্স

রান বন্যার ম্যাচে ৩৩৫ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে দারুণ শুরু পাওয়া ব্রাদার্সের জয়ের জন্য শেষ ওভারে দরকার ছিল ৯ রান। ওভারের প্রথম বলে নাজমুস এক রান নিলে সমীকরণ নেমে আসে ৫ বলে ৮ রানে। ঠিক পরের বলেই ক্রিজে থিতু হয়ে দলের জয়ের জন্য বেশ কিছুক্ষণ যাবত লড়তে থাকা ব্যাটসম্যান দেবব্রত দাসকে আউট করে ম্যাচে দলকে ফিরিয়ে আনেন ধাওয়ান। ৬২ বলে ৬ চার ও ৩ ছয়ে ৭৩ রান করা এ ব্যাটসম্যানকে হারিয়ে চাপে পড়লেও, স্ট্রাইক পেয়ে তৃ্তীয় ও চতুর্থ বলে (২, ১) মোট ৩ রান নিয়ে সমীকরণ কমিয়ে আনেন নাজমুস। পঞ্চম বলে সোহরাওয়ার্দী আবারও একরান নিলে শেষ বলে স্ট্রাইক পান নাজমুস। আর এতেই শেষ বলে চার মেরে বাজিমাত করেন এ ব্যাটসম্যান।

Also Read - নিষেধাজ্ঞার বিরুদ্ধে আপিল করবেন না স্মিথ, ব্যানক্রফট

এর আগে দলকে জয়ের ভিত গড়ে দিয়ে যান জুনায়েদ সিদ্দিকী ও মিজানুর রহমান। দু’জনের ঝড়ো ব্যাটিংয়ে উদ্বোধনী জুটিতে ১৩.৪ ওভারে ১২১ রান গড়ে ব্রাদার্স ইউনিয়ন। ৯ চার ও ২ ছয়ে ৪৫ বলে মিজানুরের ৬২ রানের ইনিংস ইসলামুল থামালেও অপ্রতিরোধ্য গতিতে দলকে এগিয়ে নিয়ে যেতে থাকেন জুনায়েদ ও মাইশুকুর রহমান। জুনায়েদ ৮৩ ও মাইশুকুর ৮২ রান করে আউট হলে ব্রাদার্স লড়ে দেবব্রতের ব্যাটে। আগের তিন ব্যাটসম্যানের মতো অর্ধশতক পূর্ণ করে শেষ ওভারে আউটের আগে এ ব্যাটসম্যান খেলেন ৭৩ রানের ইনিংস।

ইয়াসির আলী ৩ বলে ০ করে আউট হলেও, নাজমুস সাদাতের ৭ বলের কার্যকরী ১০ রানে চড়ে ম্যাচ জিতে নেয় ব্রাদার্স ইউনিয়ন। অগ্রণী ব্যাংকের বোলারদের মধ্যে ভারতীয় বোলার ধাওয়ান ৯ ওভারে ৭১ রান দিয়ে নেন সর্বোচ্চ তিনটি উইকেট।

তার আগে সাভারের বিকেএসপির তিন নম্বর মাঠে দু’দলের গুরুত্বপূর্ণ এ ম্যাচে টস জিতে অগ্রণী ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাবকে আগে ব্যাট করার আমন্ত্রণ জানায় ব্রাদার্স ইউনিয়ন। আমন্ত্রণে সাড়া দিয়ে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে সৌম্য সরকার ও শাহরিয়ার নাফীসের ব্যাটে উড়ন্ত সূচনা পায় অগ্রণী ব্যাংক।

নাফীস ২৯ বলে ২৪ রান করে  ইফতেখার সাজ্জাদের বলে আউট হলেও হাল ধরে এগোতে থাকেন সৌম্য। এক পর্যায়ে ব্রাদার্সের বোলিং তোপে ১৩৬ রানে চার উইকেট হারালেও, সৌম্য-ঋশি ধাওয়ানের ব্যাটে চড়ে বিপর্যয় সামাল দিয়ে বড় সংগ্রহের দিকে এগিয়ে যায় অগ্রণী ব্যাংক।

১০৭ বলে শতক পূর্ণ করে দলকে বড় সংগ্রহের পথ নিশ্চিত করে দিয়ে মাইশুকুর রহমানের বলে ইনিংসের ৪৬তম ওভারে কাটা পড়লে বিচ্ছিন্ন হয় সৌম্য ও ধাওয়ানের মধ্যকার ১৭১ রানের জুটির। নিজের স্বভাবসুলভ আক্রমণাত্বক ব্যাট চালিয়ে ১৮২ মিনিট ক্রিজে থেকে আজ ক্যারিয়ারের সর্বোচ্চ স্কোর ১৫৪ রানের নতুন মাইলফলক স্পর্শ করেছেন তিনি। আগের সেরা সংগ্রহ অপরাজিত ১২৭ রানের রেকর্ডটি ভাঙ্গতে ১২৭ বল খেলতে হয়েছে এ ব্যাটসম্যানকে। মোট ৯ চার ও ১১ ছক্কায় নতুন এ কীর্তি গড়েন তিনি।

তার ফিরে যাওয়ার পর দলের হাল ধরে এগোতে থাকেন ধাওয়ান। তবে যোগ্য সঙ্গ পাননি। ৪৮তম ওভারে জাহিদ জাবেদ ও আব্দুর রাজ্জাককে সাজঘরে ফিরিয়ে সোহরাওয়ার্দী শুভ চেপে ধরেন অগ্রণী ব্যাংককে। এরপরের ওভারে আবার শাখাওয়াত হোসেন দুটি উইকেট শিকার করলে কোণঠাসা হয়ে পড়ে দলটি।

ধাওয়ান অর্ধশতক পূর্ণ করে ৬৫ বল থেকে ৯ চার ও ১ ছয়ে ৮০ রানে অপরাজিত থাকলেও শেষ ওভারের প্রথম বলে আল-আমিন হোসেন রান-আউট হলে দলের জন্য কিছুই করতে পারেননি। বরং আক্ষেপ নিয়ে নির্ধারিত ওভারের ৫ বল আগেই মাঠ ছাড়তে হয় তাকে।

ব্রাদার্সের বোলারদের মধ্যে শাখাওয়াত হোসেন ও সোহরাওয়ার্দী শুভ নেন তিনটি করে উইকেট। আর মাইশুকুর রহমান ও ইফতেখার সাজ্জাদ উভয়েই লাভ করেন একটি করে উইকেট।

স্কোরকার্ড-

আরও পড়ুনঃ  অস্ট্রেলিয়াকে ছাপিয়ে ২ লাখ ডলার নিউজিল্যান্ডের

 

Related Articles

বিপিএলে দল পাননি শামসু্র-নাঈম-লিখনরা

রাজশাহী কিংসে যোগ দিলেন জুনায়েদ সিদ্দিক