SCORE

সর্বশেষ

শেষ ম্যাচে ভারতকে হারালো বাংলাদেশ

২-১ ব্যবধানে স্বাধীনতা টি-২০ সিরিজ জিতলো ভারতশারীরিকভাবে পিছিয়ে পড়া বাংলাদেশ ও  ভারতের ক্রিকেটারদের মধ্যকার তিন ম্যাচের প্রাইম ব্যাংক স্বাধীনতা টি২০ ক্রিকেট সিরিজের সমাপ্তি ঘটেছে গতকাল (২৪ এপ্রিল)। বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবসকে সম্মান প্রদর্শন করার লক্ষ্যে আয়োজিত এই সিরিজের ট্রফি জিতেছে সফরকারী ভারত। ২-০ তে এগিয়ে থাকা ভারত সিরিজের শেষ ম্যাচে বাংলাদেশের কাছে হেরেছে ১০ উইকেটে। ভারত প্রথম ম্যাচে ৮ উইকেটে এবং ২য় ম্যাচে ৭ উইকেটে বাংলাদেশকে পরাজিত করে।  যার ফলে ২-১ ব্যবধানে সিরিজ জিতে রাতেই দেশে ফিরেছে সফরকারীরা।

বুধবার আশুলিয়ায় অবস্থিত ড্যাফোডিল বিশ্ববিদ্যালয়ে সিরিজের শেষ ম্যাচ শুরু হতে বিলম্ব হয়। মাঠ খেলার অনুপযোগী থাকায় নির্ধারিত সময়ে খেলা শুরু করা সম্ভব হয়নি।  ৫ ঘন্টা পর খেলা শুরু হলে ম্যাচের ওভার কমে আসে ৫ ওভারে।  টসে জিতে প্রথমে ব্যাটিং করার সিদ্ধান্ত নেয় ভারত। নির্ধারিত ৫ ওভারে বিনা উইকেটে তোলে ৭২ রান। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৩৬ রান করেন রোহিত। জবাবে ব্যাট করতে নেমে ৩.৩ ওভারেই জিতে যায় বাংলাদেশ। বাংলাদেশের পক্ষে সর্বোচ্চ ২৯ রান করেন উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান মনজু। সিরিজের সেরা খেলোয়াড় হয়েছেন ভারতের অধিনায়ক অমিত।

উদ্বোধনী দিনে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড মিডিয়া কমিটির চেয়ারম্যান মোহাম্মদ জালাল ইউনুস বলেন, ‘আমি সব সময় ক্রিকেট সম্পর্কিত যেকোন কার্যক্রমের সাথে আছি। দেশে অনেক শারীরিক প্রতিবন্ধীদের নিয়ে ক্রিকেট দল আছে। আমরা তাদের এক সূতোয় গাঁথার পরিকল্পনা করছি।’ তিনি শারীরিক প্রতিবন্ধী ক্রিকেটারদের নিয়ে এই রকম সিরিজ আয়োজনের উদ্যোগ গ্রহণ করায় আয়োজকদের ধন্যবাদ জানান।
ইউনেস্কেপ ডিসএবিলিটি রাইটস চ্যাম্পিয়ন মোহাম্মদ আব্দুস সাত্তার দুলাল বলেন, ‘প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের নিয়ে বাংলাদেশ এবং ভারতের মধ্যকার স্বাধীনতা টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট প্রতিযোগিতা আয়োজনের উদ্যোগ গ্রহণ করার জন্য আদ্রিদ’কে অভিনন্দন জানাই। বাংলাদেশি প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের অধিকারকে তরান্বিত করার জন্য, অধিকারকে অর্জন করার জন্য এটি একটি উদ্যোগ। এবং যারা এই সিরিজ আয়োজনে এগিয়ে এসেছে তাদেরকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি। বিশেষ করে প্রাইম ব্যাংককে ধন্যবাদ জানাচ্ছি এবং আশা করছি এরকম কার্যক্রমে যেন তারা সব সময় পাশে থাকবে। ‘
 
তিনি বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডকে এগিয়ে আসার জন্যও আহবান করেন। বাংলাদেশ প্রতিবন্ধী ক্রিকেটারদের অনেক প্রতিষ্ঠান আছে। এসব প্রতিবন্ধী ব্যাক্তিদের জন্য বছরে কমপক্ষে ২ কোটি টাকা বরাদ্দ করলে তারা তাদের অধিকার ত্বরান্বিত করতে পারবে।
 
আরদ্রিদের সভাপতি এবং বিডিক্রিকটাইমের সিইও মোঃ জাবেদ আলী বলেন, ‘শারীরিকভাবে যারা পিছিয়ে আছে তাদের অধিকার প্রতিষ্ঠা ও মেধা বিকাশের জন্য এবং তাদের মাঝে দেশাত্ববোধ জাগ্রত করার লক্ষ্যে সেই সাথে বাংলাদেশ ও ভারতকে এক সুতোই বাঁধার লক্ষ্যেই আমাদের এই আয়োজন।
 
তিনি আরও বলেন, ‘কেউ যাবে না খালি হাতে সেটিই ছিল আমাদের প্রতিপাদ্য বিষয়। শারীরিকভাবে পিছিয়ে থাকা খেলোয়াড়দের জন্য থাকে না তেমন স্পন্সর থাকে না কোনও অর্থ পুরস্কার এমনকি জোটে না ঘরে ফেরার জন্য গাড়ি ভাড়াটুকু। ‘ সিরিজটি সফলভাবে আয়োজন করতে এগিয়ে আসায় প্রাইম ব্যাংক ও বঙ্গকে ধন্যবাদ জানান তিনি এবং ভবিষ্যতেও এরকম কাজে তারা সম্পৃক্ত থাকবে সেই আশা ব্যক্ত করেন।

 

Also Read - লো স্কোরিং ম্যাচে সাকিবদের দাপুটে জয়

উল্লেখ্য, গত বছরের সেপ্টেম্বর মাসে ইন্ডিয়ান ক্রিকেট ফেডারেশন ফর দ্যা ডিসঅ্যাবলড (আইসিএফডি)আরদ্রিদের মধ্যকার একটি চুক্তি স্বাক্ষরিত হয় যেখানে প্রতিবছর বাংলাদেশ স্বাধীনতা দিবসকে সম্মান জানাতে শারীরিকভাবে পিছিয়ে থাকা ভারতীয় দল বাংলাদেশে আসবে এবং ঠিক একইভাবে শারিরিকভাবে পিছিয়ে থাকা বাংলাদেশ দল যাবে ভারতে তাদের স্বাধীনতা দিবসকে সম্মান জানাতে। তাদের একটাই উদ্দেশ্য হচ্ছে যারা শারীরিকভাবে পিছিয়ে আছে তারাও সমাজের অংশ এবং তারাও যে পারে দেশ ও জাতিকে সম্মান জানাতে সেটাই তুলে ধরা।

রবিবার (২২ এপ্রিল) আশুলিয়ায় অবস্থিত ড্যাফোডিল বিশ্ববিদ্যালয়ের মাঠে এই দুইদলের মধ্যে দ্বিপাক্ষিক সিরিজের সূচনা হয়। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) মিডিয়া কমিটির চেয়ারম্যান জালাল ইউনুস প্রাইম ব্যাংক স্বাধীনতা টি২০ ক্রিকেট সিরিজ ২০১৮ আসরের খেলা উদ্বোধন করেছিলেন। বাংলাদেশ ও ভারত সিরিজের পৃষ্ঠপোষকতায় সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়ে এগিয়ে এসেছে প্রাইম ব্যাংক লিমিটেড, বঙ্গবিডি, এপিলিয়ন ও এলিট ফোর্সরেডিও পার্টনার হিসেবে সহযোগিতায় ছিল রেডিও ভূমি ৯২.৮ এফএম এবং মিডিয়া পার্টনার হিসেবে এই সিরিজে ছিল বিডিক্রিকটাইম ডট কম

Related Articles

বিশেষ মানুষদের নিয়ে রংপুর রাইডার্সের বিশেষ আয়োজন

ভারতকে বড় ব্যবধানে হারিয়ে ফাইনালে বাংলাদেশ