আশরাফুলের টাকা এখনো পরিশোধ করেনি কলাবাগান

জাতীয় দলের বাইরে যেসব ক্রিকেটার রয়েছেন তাঁদের রুজি-রোজগারের একমাত্র জায়গা হচ্ছে দেশের ঘরোয়া ক্রিকেট। ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ, বাংলাদেশ ক্রিকেট লিগ, জাতীয় লিগ খেলেই রুজি-রোজগার করে থাকেন ক্রিকেটাররা। সেই প্রিমিয়ার লিগেও ক্লাব থেকে অনিয়মের শিকার হচ্ছেন ক্রিকেটাররা। ডিপিএল শেষ হয়েছে দেড় মাস আগে, এখনো কলাবাগান ক্রিকেট ক্লাবের বেশ কয়েকজন ক্রিকেটারের টাকা পরিশোধ করেনি ক্লাবটি।

আশরাফুলের টাকা এখনো পরিশোধ করেনি কলাবাগান

এদের মধ্যে রয়েছেন জাতীয় দলের সাবেক অধিনায়ক মোহাম্মদ আশরাফুল। ডিপিএলের এই আসরে কলাবাগানের হয়ে খেলেছেন তিনি। বিসিবির প্লেয়ার্স বাই চয়েসে ১৮ লক্ষ টাকায় দলে ভিড়ায় আশরাফুলকে। লিগ শেষ হওয়ার দেড় মাস পেরিয়ে গেলেও এখনো কোন টাকাই হাতে পাননি মোহাম্মদ আশরাফুল।

Also Read - দ্বিতীয় ইনিংসে লড়ছে আয়ারল্যান্ড

সময়মত টাকা পরিশোধ না করায় কলাবাগান ক্লাবটিকে ধান্দাবাজ হিসেবে আখ্যায়িত করেন জাতীয় দলের এই সাবেক অধিনায়ক। তবে প্লেয়ার্স বাই চয়েস পদ্ধতিতে কোন ক্লাব ক্রিকেটারদের টাকা পরিশোধ না করলে বোর্ড থেকেই সেটি দিয়ে দেওয়া হবে বিধায় নিজের পাওনা টাকা নিয়ে অত ভাবছেন না আশরাফুল।

‘ক্রি‌কেট বোর্ড প্লেয়ার্স বাই চয়েস করে দিয়েছে তাই আমাদের কিছুই বলার নেই। ক্লাব কর্তৃপক্ষ যদি আমাদের টাকা না দেয় তাহলে বোর্ড দিবে, তাই টেনশন করছি না। বোর্ড না দিলে টেনশন হতো। ক্লাব অফিসিয়ালদের যদি এমন ধান্দাবাজি মনোভাব থাকে যে, হারলে টাকা দিব না এটা খুবই দুঃখজনক।’

শুধু আশরাফুলই নয় এই তালিকায় রয়েছেন কলাবাগানের আরও বেশ কয়েকজন ক্রিকেটার। এই তালিকায় রয়েছেন জসিম উদ্দীন, তাসামুল হক, সঞ্জিত দ্বীপ সহ আরও বেশ কয়েকজন ক্রিকেটার। নিজেদের পাওনা টাকা নিয়ে কথা বলতে বিসিবির প্রধান নির্বাহীর সঙ্গে দেখা করেছেন ক্রিকেটাররা। নিজাম উদ্দীন আশ্বস্ত করেছেন ক্লাবের সঙ্গে বৈঠকে বসবে তারা। তবে ঠিক কবে বসবে সেটি জানায়নি তিনি।

ডিপিএল শুরুর আগে বিসিবি টাকা নিয়ে নিয়ম বেঁধে দিয়েছিল ক্লাবগুলোকে। লিগ শুরুর আগে ৫০ ভাগ, লিগের মাঝামাঝিতে ২৫ ভাগ এবং লিগ শেষে বাকি ২৫ ভাগ পরিশোধ করার কথা ক্লাবগুলো। কলাবাগানের অনেক ক্রিকেটার পাওনা টাকা না পেলেও বেশ কয়েকজন ৫০ ভাগ পাওনা পেয়েছেন।

আরও পড়ুনঃ পারিশ্রমিক না পেয়ে বিসিবির শরণাপন্ন কলাবাগানের ক্রিকেটাররা