SCORE

সর্বশেষ

টেস্ট র‍্যাংকিংয়ে উত্থানে সেরা অবস্থানে বাংলাদেশ

প্রথমবারের মতো আইসিসি টেস্ট র‍্যাংকিংয়ের অষ্টম স্থানে উত্থান ঘটেছে বাংলাদেশের। মঙ্গলবার আইসিসির হালনাগাদকৃত টেস্ট র‍্যাংকিংয়ে দেখা যায়, বাংলাদেশ নবম স্থান থেকে উঠে এসেছে অষ্টম স্থানে। সেই সাথে এতদিন অষ্টম স্থানে থাকা ওয়েস্ট ইন্ডিজ এক ধাপ অবনমনে নেমে গেছে নবম স্থানে।

টেস্ট র‍্যাংকিংয়ে উত্থানে সেরা অবস্থানে বাংলাদেশ

উল্লেখ্য, আইসিসি টেস্ট র‍্যাংকিংয়ে এটিই বাংলাদেশের সেরা অবস্থান। এর আগে বাংলাদেশের সেরা অবস্থান ছিল নবম স্থান।

Also Read - মুস্তাফিজদের শৃঙ্খল করতে অভিনব রীতি!

৭১ রেটিং পয়েন্ট নিয়ে এতদিন বাংলাদেশ ছিল তালিকার নবম স্থানে। বাংলাদেশের চেয়ে এক পয়েন্ট বেশি, অর্থাৎ ৭২ ছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজের রেটিং পয়েন্ট। হালনাগাদকৃত তালিকায় বাংলাদেশের রেটিং পয়েন্ট বেড়ে হয়েছে ৭৫। অন্যদিকে ওয়েস্ট ইন্ডিজের রেটিং পয়েন্ট কমে হয়েছে ৬৭। এতেই দলটির অবনমন ঘটেছে।

আইসিসির এই বার্ষিক হালনাগাদে সবার উপরে রয়েছে যথারীতি ভারত। দলটির রেটিং পয়েন্ট ১২৫। ১১২ রেটিং পয়েন্ট নিয়ে পরের অবস্থানে রয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকা। কাছাকাছি রেটিং পয়েন্ট নিয়ে (১০৬/১০২) তৃতীয় ও চতুর্থ স্থানে আছে দুই প্রতিবেশী দেশ অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ড। পঞ্চম স্থানে থাকা ইংল্যান্ডের রেটিং পয়েন্ট ৯৮। ৯৪ রেটিং পয়েন্ট নিয়ে শ্রীলঙ্কা আছে তালিকার ষষ্ঠ অবস্থানে। সপ্তম স্থানে থাকা পাকিস্তানের রেটিং পয়েন্ট ৮৬। এর পরের স্থানটিই বাংলাদেশের! ৭৫ রেটিং পয়েন্ট নিয়ে প্রথমবারের মতো বাংলাদেশ উঠে এসেছে অষ্টম স্থানে। এতে ‘দীর্ঘদিনের জমি’ নবম স্থান ছেড়ে দিতে হয়েছে ৬৭ রেটিং পয়েন্টধারী ওয়েস্ট ইন্ডিজকে। মাত্র ২ রেটিং পয়েন্ট নিয়ে তালিকার তলানিতে অবস্থান জিম্বাবুয়ের।

বিদ্রোহের আগমনে জিম্বাবুয়ের ক্রিকেট লণ্ডভণ্ড হয়ে যাওয়ার পর বাংলাদেশ জায়গা করে নেয় টেস্ট র‍্যাংকিংয়ের নবম স্থানে। যদিও সম্প্রতি টেস্ট স্ট্যাটাস পাওয়া দুই দল আফগানিস্তান ও আয়ারল্যান্ডের কথা বাদ দিলে বাকি দশ দেশের মধ্যে বাংলাদেশই কনিষ্ঠতম। ক্রিকেটের মর্যাদার মানদণ্ড এই টেস্ট ক্রিকেট। সেখানে দুইবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়ন ওয়েস্ট ইন্ডিজকে পেছনে ফেলা তো আর চাট্টিখানি কথা নয়!

এক নজরে দেখে নিন আইসিসি প্রকাশিত নতুন র‍্যাংকিং তালিকাঃ (মৌসুম ২০১৫-১৬ থেকে ২০১৭-১৮)
১. ভারত- ২৮ ম্যাচ- ১২৫ পয়েন্ট।
২. দক্ষিণ আফ্রিকা- ৩২ ম্যাচ- ১১২ পয়েন্ট।
৩. অস্ট্রেলিয়া- ৩৩ ম্যাচ- ১০৬ পয়েন্ট।
৪. নিউ জিল্যান্ড- ২৩ ম্যাচ- ১০২ পয়েন্ট।
৫. ইংল্যান্ড- ৩৬ ম্যাচ- ৯৮ পয়েন্ট।
৬. শ্রীলঙ্কা- ৩১ ম্যাচ- ৯৪ পয়েন্ট।
৭. পাকিস্তান- ১৭ ম্যাচ- ৮৬ পয়েন্ট।
৮. বাংলাদেশ- ১৬ ম্যাচ- ৭৫ পয়েন্ট।
৯. উইন্ডিজ- ২২ ম্যাচ- ৬৭ পয়েন্ট।
১০. জিম্বাবুয়ে- ৮ ম্যাচ- ২ পয়েন্ট।

 

আরও পড়ুনঃ সামর্থ্য বিচারে রংপুরকে ইঙ্গিত গেইলের

Related Articles

মুশফিকের পথচলার তেরো বছর

যে কারণে মুশফিকের মাথায় একই ক্যাপ

দুই ফরম্যাটে দুই কোচ চান না সালাউদ্দিন

ছিটকে গেলেন বাবর আজম

তিন বছর পর ডাক পেলেন ডেভন স্মিথ