SCORE

সর্বশেষ

পাকিস্তানের হয়ে খেলেছিলেন টেন্ডুলকার!

ক্রিকেটে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী দুটি দলের কথা বলতে গেলে সবার আগে আসবে ভারত ও পাকিস্তানের নাম। শুধু ক্রিকেটের ক্ষেত্রেই নয়, ভৌগলিক অবস্থান আর জটিল রাজনৈতিক প্রেক্ষাপটের কারণে দুই দেশের বৈরিতা অনেক বছর ধরে।

পাকিস্তানের হয়ে খেলেছিলেন টেন্ডুলকার!

সেই বৈরিতায় ক্রিকেট মাঠেও বয়ে যায় দমকা হাওয়া। দীর্ঘদিন ধরে ভারত ও পাকিস্তান খেলছে না দ্বিপাক্ষিক কোনো সিরিজ। আইসিসির টুর্নামেন্টগুলোতে দুই দল মুখোমুখি হলেও যেন আগুনে যোগ হয় ঘি- শুরু হয় উত্তেজনা। এক দলের সমর্থকরা যখন আরেক দলকে পছন্দ করেন না মোটেও, তখন কেমন হবে- যদি শোনেন এক দলের ক্রিকেটার কোনো এক সময় খেলেছিলেন আরেক দলের হয়ে?

Also Read - টস তুলে নেওয়ার পক্ষে নন বাশার

তাও আবার সেই ক্রিকেটারের নাম শচীন টেন্ডুলকার! অবিশ্বাস্য হলেও এটিই সত্যি। ১৯৮৯ সালে ভারতের হয়ে পাকিস্তানের বিপক্ষে খেলেছিলেন শচীন। তবে তারও দুই বছর আগে শচীন খেলেছিলেন পাকিস্তানের হয়ে!

১৯৮৭ সালে ইমরান খানের নেতৃত্বে পাঁচ টেস্টের সিরিজ খেলতে ভারত সফর করেছিল পাকিস্তান জাতীয় দল। ভারতের গ্রেট ক্রিকেটার সুনীল গাভাস্কারের বিদায়ী সিরিজ হওয়ায় সেটি হয়ে আছে স্মরণীয়। সিরিজ শুরুর আগে প্রস্তুতি ও প্রীতি ম্যাচ হিসেবে পাকিস্তান জাতীয় দল ও ক্রিকেট ক্লাব অব ইন্ডিয়ার (সিসিআই) মধ্যে একটি ৪০ ওভারের ম্যাচ আয়োজন করা হয়।

ঐ ম্যাচ চলাকালে ফিল্ডিং করার সময় বিশ্রামের জন্য মাঠ ছাড়েন পাকিস্তানের জাভেদ মিয়াঁদাদ ও ইকবাল কাদের। এমন সময় ইমরান খান সিসিআইয়ের অধিনায়ক হেমন্ত কেনক্রেকে বদলি ফিল্ডার নামানোর জন্য অনুরোধ করেন। সেই অনুরোধ রাখতে গিয়ে তিনি মাঠে নামান শচীন টেন্ডুলকার ও খসরু ভাসানিয়াকে।

ঐ ম্যাচে প্রায় আধঘণ্টা ফিল্ডিং করেছিলেন শচীন। মিস করেছিলেন একটি ক্যাচও! এ প্রসঙ্গে হেমন্তের ভাষ্য, ‘বদলি খেলোয়াড় হিসেবে খসরু (ভাসানিয়া) ছিল প্রথম পছন্দ। খসরু শচীনের চেয়ে বড় ছিল এবং সে অনূর্ধ্ব-১৯ দলের প্রতিভাবান খেলোয়াড় ছিল। পরে দু’জনকেই ফিল্ডিংয়ের জন্য মাঠে নামাই। খসরু ফিল্ডিং করেন অফ সাইডে। আর শচীন লেগ সাইডে ও ডিপ মিড-উইকেটে। এ সময় একটি ক্যাচ মিস করে শচীন এবং ক্যাচ মিস করে সে খুবই হতাশ হয়ে পড়ে।’

আরও পড়ুনঃ টেস্টে টস বাদের পরিকল্পনা নিয়ে মাশরাফির ভাবনা

Related Articles

যে সাক্ষাৎকারে প্রেরণা পেয়েছিলেন মাশরাফি

জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে সাকিবের নতুন কীর্তি

সরফরাজদের খেলা দেখে হতাশ পাকিস্তানের সাবেক ক্রিকেটাররা

বিজয়-স্যামি-জর্ডানরা ‘তৃতীয় শ্রেণির ক্রিকেটার’