SCORE

সর্বশেষ

সাদা ও লাল বলের জন্য পৃথক কোচ!

বাংলাদেশের ক্রিকেটের পরামর্শকের ভূমিকা নিয়ে দক্ষিণ আফ্রিকান কোচ গ্যারি কারস্টেন এখন ঢাকা সফরে। সফরের তিন দিন হয়েছে, এরই মধ্যে দেশের ক্রিকেট সংশ্লিষ্ট অনেকের সাথে দফায় দফায় বৈঠক করেছেন ভারতের হয়ে বিশ্বকাপ জেতা এই কোচ।

সাদা ও লাল বলের জন্য পৃথক কোচ!

সফরের শেষদিনে মঙ্গলবার বোর্ড সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনের সাথে সাক্ষাৎ করেন কারস্টেন। সাক্ষাৎ করেন বিসিবির ঊর্ধ্বতন কর্তাদের সাথেও। বৈঠক শেষে সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হন পাপন, যেখানে তিনি জানান- লাল বল ও সাদা বলের ফরম্যাটের জন্য পৃথক কোচ নিয়োগের কথা ভাবা হচ্ছে!

Also Read - বাঁহাতি-ডানহাতিতে সমস্যা দেখেন না অপু

পাপনের ভাষ্য, এর অন্যতম কারণ- বিসিবি যাদের কোচ হিসেবে চাইছে তাদেরই বেশিরভাগই টেস্টে কোচ হতে রাজি নন। তিনি বলেন, ‘আমরা যাদের সঙ্গে কথা বলেছি, বেশির ভাগই টেস্টে কোচ হতে রাজি নয়। তবে ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টিতে দীর্ঘ সময়ে কোচ হিসেবে কাজ করতে রাজি। আমরা তিন সংস্করণের জন্যই দীর্ঘ সময়ে থাকবে, এমন কোচ চাচ্ছিলাম।’

টি-২০ ক্রিকেটের আবির্ভাবে লম্বা ভার্শনে কোচরা আগ্রহ হারিয়েছেন বলে মনে করছেন পাপন। এমনটি ভেবেছেন কারস্টেন নিজেও। পাপন বলেন, ‘আজকাল যেটা হয়েছে, টি-টোয়েন্টি আসার পর মানসিকতায় অনেক পরিবর্তন হয়েছে। কারস্টেন তাই মনে করেন, সাদা ও লাল বলের কোচ আলাদা হলে ভালো হয়। আমরা আলাপ করেছি, আমরা আলাদা কোচ না নিয়ে প্রধান কোচের অধীনে বিশেষজ্ঞ তিনজন কোচকে নিতে পারি কি না। টেস্ট, ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টির জন্য আলাদা তিন বা ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি একসঙ্গেও থাকতে পারে।’

বোর্ড সভাপতি আরও জানিয়েছেন, বাংলাদেশ দল আগামী মাসে ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে যাওয়ার আগেই পূর্ণ কোচিং স্টাফ পেয়ে যাবে। ১৫ জুনের মধ্যেই তাই শেষ হওয়ার কথা কোচ নিয়োগ প্রক্রিয়া। তিনি বলেন, ‘আমরা ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরের আগে জাতীয় দলের ফুল সেটআপ চাচ্ছি। ২৪-২৫ জুনে দল রওনা দেবে। এটা মাথায় রেখে সে আবার আসবে। আমাদের আশা, ১৫ জুনের মধ্যে কোচ নিয়োগের প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে পারব।’

এদিকে গ্যারি কারস্টেনের মতে, আধুনিক ক্রিকেটের হাওয়ার তোড়েই ভিন্ন ফরম্যাটে ভিন্ন কোচ নেওয়ার কথা ভাবছেন তিনি। যদিও এ ব্যাপারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্তের অপেক্ষায় থাকতে বললেন আকার-ইঙ্গিতে। কারস্টেন বলেন, ‘হ্যা আমরা অমনই আলাপ করেছি। তবে তা চুড়ান্ত হয়নি এখনো। আমার মনে হয় আধুনিক ক্রিকেট আসলে সেভাবেই এগুচ্ছে।’

কারস্টেনের মনোযোগ দলের জন্য ভালো সিদ্ধান্তটি নেওয়াতেই। সংবাদমাধ্যমকে তিনি বলেন, ‘আসল কথা হচ্ছে, দলের জন্য কোনটা বেশী ভালো। আমাদের মনে রাখতে হবে , আমরা বিশ্বকাপ থেকে আর মাত্র এক বছর দূরে। সেটাই দেখার। মূল ফোকাসও ঐ জায়গায়। বিশ্বকাপে ভালো করার জন্য সেরা কোচ খুব প্রয়োজন। সেই কোচ খুঁজে বের করাই আমাদের লক্ষ্য।’

এদিকে ক্রিকেট সংশ্লিষ্ট প্রায় সবার সঙ্গেই বৈঠক হয়েছে কারস্টেনের। এখন পর্যন্ত তার সাথে বৈঠক করেছেন সিনিয়র ক্রিকেটার মাশরাফি বিন মুর্তজা, মুশফিকুর রহিম, তামিম ইকবাল, সাকিব আল হাসান (আইপিএলে), বৈঠক করেছেন সাব্বির রহমান, সৌম্য সরকার, মুস্তাফিজুর রহমান (তিনিও আইপিএলে)। নির্বাচক প্যানেলের দুই সদস্য মিনহাজুল আবেদিন নান্নু, হাবিবুল বাশার এবং দেশসেরা কোচ মোহাম্মদ সালাউদ্দিনও বাদ যাননি। সফরের শেষদিন বোর্ড সভাপতিসহ বোর্ডের ঊর্ধ্বতন কর্তাদের সাথেও সাক্ষাৎ করেছেন।

তবে প্রধান কোচের অবর্তমানে দলের দেখভাল করছেন যে কোর্টনি ওয়ালশ, এখনও তার সাথেই কথা হয়নি কারস্টেনের। বিসিবির মিডিয়া কমিটির চেয়ারম্যান জালাল ইউনুস একটি সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, সেটিও হয়ে যাবে বিমানবন্দরে, ‘সবার সঙ্গে মোটামুটি কথা হলেও হেড কোচ ওয়ালশের সঙ্গে কথা হয়নি কারস্টেনের। সেটা আজ হযরত শাহ জালাল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরে হয়ে যাবে। ওয়ালশ আজ ঢাকা আসছেন। প্রায় কাছাকছি সময় ফিরে যাবেন গ্যারি কারস্টেন। দুজনার মধ্যে এয়ারপাের্ট লাউঞ্জে কথা বার্তার ব্যবস্থা করা হয়েছে। দুজনই জানেন, তাদের মধ্যে বিমান বন্দরেই একটা ছোট খাট অনানুষ্ঠানিক বৈঠক হয়ে যাবে।’

আরও পড়ুনঃ অপুর আরও বেশি ‘নাগিন নৃত্য’র আশা

Related Articles

কারস্টেনের দৃষ্টি বিশ্বকাপে

উইন্ডিজ সফরের আগেই নতুন কোচ

টি-টোয়েন্টি নয়, শান্তকে নিয়ে ভাবনা ওয়ানডে-টেস্টে

বাংলাদেশের বিপক্ষে মুশতাক আহমেদ

৩১ সদস্যের প্রাথমিক স্কোয়াডে ইয়াসিন