SCORE

সর্বশেষ

মুদ্রার ওপিঠও দেখলেন রশিদ খান

সীমিত ওভারের ক্রিকেটে, বিশেষ করে টি-২০ ফরম্যাটে তিনি দলের সেরা বোলার। শুধু দলেরই নয়, অনেকে তাকে আখ্যা দিয়ে থাকেন বর্তমান বিশ্বের সেরা লেগ স্পিনার হিসেবেই। তবে ভারতের বিপক্ষে নিজেদের অভিষেক টেস্টে মুদ্রার ওপিঠটাও দেখা হল আফগান ক্রিকেটার রশিদ খানের।

মুদ্রার ওপিঠও দেখলেন রশিদ খান
রশিদ খান। ছবিঃ বিসিসিআই

বেঙ্গালোরে ভারত-আফগানিস্তান টেস্টের প্রথম দিন শিখর ধাওয়ানের মারকুটে ব্যাটিংয়ের তিক্ত অভিজ্ঞতা দিয়ে টেস্ট ক্রিকেট শুরু হয় রশিদের। ৭ ওভারে তিনি বিলি করেন ৫১ রান, ১০ ওভারে ৭৫। লাগামহীন রান দেওয়ার পাশাপাশি ভুগছিলেন উইকেটশূন্যতায়। ভয় ছিল অনাকাঙ্ক্ষিত এক রেকর্ডেরও।

যে রশিদ খানকে মোকাবেলা করতে টি-২০ ক্রিকেটে নাভিশ্বাস ওঠে ব্যাটসম্যানদের, সেই রশিদ ভারতের প্রথম ইনিংসে উইকেটশূন্য থেকেছেন ১২৩ বল! সেই ১২৩ বলে রান খরচ করেছেন ১০৯, টেস্ট ক্রিকেটে যা একেবারেই বেমানান। শেষপর্যন্ত স্বাগতিক অধিনায়ক আজিঙ্কা রাহানেকে এলবিডব্লিউ করে স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলেন তিনি।

Also Read - কোহলি নন, মোহাম্মদ নবীর প্রিয় ডি ভিলিয়ার্স

সেই উইকেটটি না পেলে অভিজ্ঞতা আরও তিক্ত হতো ১৯ বছর বয়সী লেগ স্পিনারের। টেস্ট অভিষেকে উইকেটশূন্য থেকে সবচেয়ে বেশি রান দেওয়ার রেকর্ডটি এক ইংলিশ ক্রিকেটারের, তার নামেও আছে ‘রশিদ’ শব্দটি। ২০১৫ সালে আবুধাবি টেস্টে পাকিস্তানের বিপক্ষে নিজের প্রথম টেস্ট খেলতে নেমে আদিল বিলি করেছিলেন ১৬৩ রান। এরও আগে ২০০৯ সালে কেপটাউন টেস্টে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ১৪৯ রান দিয়ে উইকেটশূন্য ছিলেন অস্ট্রেলীয় ক্রিকেট ব্রাইস ম্যাকগেইন। রশিদ খানের মত আদিল রশিদ আর ব্রাইস ম্যাকগেইনও লেগ স্পিনার!

সময়ের সেরা বোলার শেষপর্যন্ত স্বস্তি নিয়ে মাঠ ছাড়তে না পারলেও অন্তত অস্বস্তি নিয়েও ছাড়তে হয় নি! শেষ সেশনে স্বাগতিকদের পাঁচ উইকেট তুলে নিয়ে নিজেদের সামর্থ্যের জানান দিয়েছে আফগানিস্তান। ২৬ ওভার বল করে রশিদ অবশ্য মেডেন পেয়েছেন মাত্র দুটি। ১২০ রানের খরচায় পেয়েছেন ঐ একটি উইকেটই। ইকোনোমি রেট ৪.৬১; যেকোনো রসিক ক্রিকেট বোদ্ধা যাকে আখ্যা দিতে পারেন ‘অ-রশিদীয়’ বলে!

আরও পড়ুনঃ ভারতের ব্যাটসম্যানদের রান উৎসব

Related Articles

বিশ্ব একাদশে আদিল, হার্দিকের বদলি সামি