Score

অঘোষিত সেমিফাইনালের সামনে বাংলাদেশ

নিদাহাস ট্রফির পর আবারও অঘোষিত এক সেমিফাইনালের প্রহর গুনছে বাংলাদেশ। বুধবার (২৬ সেপ্টেম্বর) আবুধাবিতে এশিয়া কাপ ক্রিকেটের সুপার ফোরের ষষ্ঠ ও শেষ খেলায় স্বাগতিক দল পাকিস্তানের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। ম্যাচটি শুরু হবে বাংলাদেশ সময় বিকেল সাড়ে পাঁচটায়।

শ্বাসরুদ্ধকর শেষ ওভারে ম্যাচ জয়ের পর বাংলাদেশ।

এই ম্যাচের জয়ী দল দ্বিতীয় দল হিসেবে জায়গা করে নিবে ফাইনালে, যেখানে ইতোমধ্যে নিজেদের অংশগ্রহণ নিশ্চিত করেছে ভারত। তাই ম্যাচটি পেয়েছে সেমিফাইনালের মর্যাদা। যদিও সংযুক্ত আরব আমিরাতের এই আসরে স্বাগতিক দল হিসেবেই অংশ নিচ্ছে পাকিস্তান, যাদের কাছে আবুধাবির পরিবেশটাও বেশ পরিচিত। তবে বিগত ম্যাচগুলোতে দর্শক সমর্থন এবং সর্বশেষ ম্যাচে আফগান-বধের স্বস্তি নিয়ে দারুণ একটি জয়ের প্রত্যাশা করছে বাংলাদেশও।

ম্যাচে বাংলাদেশকে ভোগাতে পারে নিজেদের ব্যাটিংয়েরই দৈন্যদশা। আসরে এখন পর্যন্ত দলকে ভালো শুরু এনে দিতে পারেনি ব্যাটিংয়ের টপ অর্ডার। এতে বড় ম্যাচের আগে একটি দুশ্চিন্তা থাকছেই। তবে ‘ডু অর ডাই’ ম্যাচে নিয়ামক হয়ে উঠতে পারেন বোলাররা। সেই সাথে ব্যাটিং অর্ডার জ্বলে উঠলে বাংলাদেশ হয়ে উঠতে পারে পাকিস্তানের বড় দুশ্চিন্তার কারণ।

Also Read - রশিদকে নিয়ে ভাবার সময় ছিল না - মাহমুদউল্লাহ

অন্যদিকে ভারতের কাছে হারের ক্ষত নিয়েই এই ম্যাচে মাঠে নামবে পাকিস্তান। অপরিবর্তিত একাদশ নিয়ে দলের মাঠে নামার সম্ভাবনা বেশি থাকলেও পরিবর্তন আসতে পারে অনেক কৌশলে। কেননা ভারতের বিপক্ষে ৯ উইকেটে পরাজয়ের গ্লানি একটু বেশিই বইতে হয়েছে সরফরাজ আহমেদের দলকে।

একনজরে দুই দলের সম্ভাব্য একাদশ-

পাকিস্তান: ইমাম-উল-হক, ফখর জামান, বাবর আজম, সরফরাজ আহমেদ (অধিনায়ক), শোয়েব মালিক, আসিফ আলী, শাদাব খান, মোহাম্মদ নাওয়াজ, হাসান আলী, মোহাম্মদ আমির, শাহিন শাহ আফ্রিদি।

বাংলাদেশ: লিটন দাস, সৌম্য সরকার/নাজমুল হোসেন শান্ত, মোহাম্মদ মিঠুন, ইমরুল কায়েস, মুশফিকুর রহিম, সাকিব আল হাসান, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, মেহেদী হাসান মিরাজ, মাশরাফি বিন মুর্তজা (অধিনায়ক), মুস্তাফিজুর রহমান, নাজমুল ইসলাম অপু।

আরও পড়ুন: পহেলা অক্টোবর থেকে শুরু ২০তম ওয়ালটন জাতীয় ক্রিকেট লিগ

Related Articles

সিরিজ জিততে মরিয়া শাই হোপ

মাশরাফির কাছে হারের কারণ দু’টি

মিরপুরে এটাই শেষ ম্যাচ কি না, জানা নেই মাশরাফির

হোপের ব্যাটিংয়ে সিরিজে সমতা ফেরালো উইন্ডিজ

জোশির কথা একটাই- জিততে হবে