Scores

অথচ একসময় শুধু বাংলাদেশকে আমন্ত্রনেই অনীহা ছিল পিসিবির

অনেক জল ঘোলা করার পর অবশেষে নিশ্চিত হলো বাংলাদেশ দলের পাকিস্তান সফর। পিসিবির বার বার অনুরোধে ও নানান ধরনের প্রস্তাব বিবেচনার পর শেষ পর্যন্ত বিসিবিও টেস্ট সহই পাকিস্তান সিরিজের জন্য রাজি হয়। শুধু টেস্ট নয়, সাথে একটি বাড়তি ওয়ানডেও রয়েছে এই সিরিজে। জানুয়ারি, ফেব্রুয়ারি, এপ্রিল ৩ ভাগে ভাগ করে অনুষ্ঠিত হবে বাংলাদেশের এই পাকিস্তান সফর।

অথচ একসময় শুধু বাংলাদেশকে আমন্ত্রণেই অনীহা ছিলো পিসিবির

বাংলাদেশ বোর্ডকে টেস্ট খেলার জন্য রাজি করানোর জন্য বেশ কিছুদিন ধরেই চেষ্টা করে যাচ্ছিল পিসিবি। পাকিস্তানের সাবেক ক্রিকেটাররাও মিডিয়ায় বারবার অনুরোধ করছিলেন বিসিবিকে এই সফরের জন্য রাজি হওয়ার জন্য। তবে বছর দুয়েক আগেও বিষয়টি ছিলো ভিন্ন। বাংলাদেশ দলকে আতিথেয়তা দেওয়া নিজেদের জন্য লোকসান হবে ভাবতো পাকিস্তান বোর্ড।

Also Read - আইসিসির বর্ষসেরা অ্যাওয়ার্ড ২০১৯


পাকিস্তানে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট বোমা হামলায় বন্ধ হওয়ার পর প্রায় এক যুগ তাদের হোম সিরিজ আয়োজন হয়েছিল সংযুক্ত আরব আমিরাতে। তবে অবাক করার বিষয় এই এক যুগে পাকিস্তান সংযুক্ত আরব আমিরাতে প্রায় সকল দলকে আমন্ত্রণ জানালেও একটি বারের জন্যও বাংলাদেশকে আমন্ত্রণ জানায়নি। ২০১৭ সালে বাংলাদেশের পাকিস্তানের বিপক্ষে একটি সিরিজ খেলার সম্ভাবনা ছিলো।

তবে তখনকার পিসিবি প্রধান শাহরিয়ার খান বাংলাদেশ দলকে সংযুক্ত আরব আমিরাতে আমন্ত্রণ জানাতে নাকচ করেন। তিনি জানান “বাংলাদেশকে সংযুক্ত আরব আমিরাতে আমন্ত্রণ জানালে লোকসানে পরবে পিসিবি। তাই আমরা অন্য কোন ভেন্যুর কথা ভাবছি “। পরবর্তীতে নিরপেক্ষ ভেন্যু না পাওয়ায় সিরিজটি হয়নি।

আগেও সকল দলকে আরব আমিরাতে আমন্ত্রণ জানালেও বাংলাদেশ দলের ব্যাপারেই ছিলো পিসিবির অনীহা। তাদের মত ছিলো বাংলাদেশ দলের খেলা কেউ দেখতে আসবেনা তাই পিসিবিকে ক্ষতির মুখে পরতে হবে। অথচ পিসিবি ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও নিউজিল্যান্ডকে নিয়মিত সংযুক্ত আরব আমিরাতে আমন্ত্রণ জানিয়ে দর্শক শূন্য মাঠে ম্যাচ আয়োজন করেছিলো। সংযুক্ত আরব আমিরাতে বাংলাদেশের প্রচুর প্রবাসী রয়েছেন। এশিয়া কাপে বাংলাদেশ দলের প্রতিটি ম্যাচই ছিলো কানায় কানায় পূর্ণ। তবে এরপরও পিসিবি বাংলাদেশ দলকে আমন্ত্রণ না জানিয়ে খালি মাঠে ওয়েস্ট ইন্ডিজ, নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে খেলেছে।

সময়ের পরিক্রমায় অবশেষে পিসিবি বাংলাদেশকে আমন্ত্রণ জানাচ্ছে তাদের হোম ভেন্যুতে ঠিকই। তবে বাংলাদেশি ভক্তদের মনে প্রশ্ন রয়েই যায় সেটা কি তাহলে শুধু পাকিস্তানকে বড় দলগুলোর জন্য নিরাপদ হিসেবে প্রমানের জন্যই?

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন
Tweet 20
fb-share-icon20

Related Articles

‘টাকা ফেরত দাও’, নিষিদ্ধ আকমলকে পিসিবি

উমর দোষ করতেই পারেন না, বলছেন কামরান

জুয়াড়ির সাথে যোগাযোগ করে নিষিদ্ধ আকমল

ডাগ-আউটে বসে ফোনালাপ, নতুন বিতর্কে পিএসএল

এশিয়া কাপ আয়োজনের আশা ছেড়ে দিচ্ছে পাকিস্তান!