অনন্য মাইলফলকের সামনে মাশরাফি

0
544

সকল আলোচনা- সমালোচনা ছাপিয়ে মাঠের ক্রিকেটে লড়ে যাচ্ছেন বাংলাদেশের ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা। মাঠের বাইরে কঠিন পার করলেও মাঠের ক্রিকেটে এক অনন্য মাইলফলক হাতছানি দিচ্ছে নড়াইল এক্সপ্রেসকে। বাংলাদেশের সবচেয়ে সফল এই অধিনায়ক আছেন ৫০তম ওয়ানডে ম্যাচ জয়ের দোরগড়ায়।

অনন্য মাইলফলকের সামনে মাশরাফি

Advertisment

২০১০ সালে প্রথম জাতীয় দলের ওয়ানডে অধিনায়কের দায়িত্ব পেয়েছিলেন মাশরাফি। এর মধ্যবর্তী সময়টাতে সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহিম, তামিম ইকবালরা অধিনায়কত্ব করলেও ২০২০ সালে ২০ বছর পরে এসেও এখনো অধিনায়ক আছেন সেই মাশরাফিই। সবচেয়ে বেশি ম্যাচে বাংলাদেশকে নেতৃত্ব দেয়া এই ক্রিকেটার আর মাত্র একটি ম্যাচ জিতলেই অধিনায়ক হিসাবে ৫০টি ম্যাচ জয়ের রেকর্ড গড়বেন।

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে তিন ম্যাচ সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচ পর্যন্ত বাংলাদেশকে ৮৭টি ম্যাচে নেতৃত্ব দিয়েছেন মাশরাফি। যারমধ্যে ৪৯টি ম্যাচে দলকে জয় এনে দিয়েছেন তিনি। হিসাব করলে দেখা যায়, ওয়ানডে অধিনায়ক হিসাবে তার জয়ের হার ৫৭.৬৪, যা কিনা বাংলাদেশিদের মধ্যে সর্বোচ্চ। আর কোনো অধিনায়কই পঞ্চাশ শতাংশ জয়ও পাননি।

মাশরাফির পরেই বাংলাদেশকে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৬৯টি ম্যাচে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন হাবিবুল বাশার সুমন। যেখানে ৪২.০২ হারে তার জয় ২৯টি ম্যাচে। জয়ের হারের দিক থেকে মাশরাফির পরেই আছেন সাকিব। ২০০৯ সালে প্রথম বাংলাদেশের অধিনায়কত্ব পাওয়া এই অলরাউন্ডার মোট ৫০টি ওয়ানডে ম্যাচে দলকে নেতৃত্ব দিয়েছেন, জয় পেয়েছেন ২৩টি ম্যাচে। ৩৭টি ম্যাচে বাংলাদেশকে নেতৃত্ব দিয়ে ১১টি ম্যাচে জয় আছে অধিনায়ক মুশফিকের নামের পাশে।

এই ব্যাপারে মাশরাফি অনুভূতি, ‘ব্যক্তিগতভাবে আমার কাছে এটা বিশেষ কিছু না তবে দলের জন্য দারুণ একটা অর্জন। আগামী ম্যাচটাও অন্যান্য ম্যাচের মতোই হবে। আমরা জয়ের লক্ষ্যেই মাঠে নামব।’

 ‘এটা মাশরাফি ভাই ও দলের জন্য বড় অর্জন। দলের ৫০টি বিজয়ী ম্যাচে নেতৃত্ব দেয়া সহজ কথা নয়। একসময় আমাদের অধিনায়কদের জন্য এটা অভাবনীয় ছিল। শুধু ৫০টি ম্যাচ জয়ই নয়, উনি আমাদের ক্রিকেটের জন্য যা করেছেন তা চির স্মরণীয় হয়ে থাকবে,’ বলেন তামিম ইকবাল।