Scores

অপ্রতিরোধ্য গাজী গ্রুপ

ডিপিএলে গাজী গ্রুপকে যেন কেউ থামাতেই পারছে না। তাদের জয়রথ চলছেই। সাত ম্যাচের সাতটিতেই জয় নিয়ে মাঠ ছেড়েছে গাজী গ্রুপ। অপ্রতিরোধ্য হয়ে উঠেছে দলটি।

টস হেরের প্রথমে ব্যাট করতে নামে গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্স। শুরুটা মোটেও ভালো হয়নি এনামুলদের। ৪ রান করে মাইশুকুরের অব্লে আউট হন জহুরুল। মোমিনুল-এনামুলের জুটিটাও বড় হয়নি। দলীয় ২৭ রানের মাথায় মোহাম্মদ সাদ্দামের বলে মাইশুকুরের হাতে ক্যাচ দেন মোমিনুল (১৫)।

ওপেনার এনামুল হক বিজয়কে সাথে নিয়ে ৮৯ রানের জুটি গড়েন সোহরাওয়ার্দী শুভ। এ জুটিতে ভর করে প্রাথমিক বিপর্যয় সামাল দেয় গাজী গ্রুপ। ৫১ বলে ৪১ রানের ইনিংস খেলে রান আউট হন শুভ।

Also Read - সন্ধ্যায় ইংল্যান্ড যাচ্ছেন মাশরাফি


অর্ধশতক পূরণের পর ধীরে ধীরে শতকের পথে এগিয়ে যাচ্ছিলেন এনামুল হক। ৬ রান করে পারভেজ রসুলের বিদায়ের পর নাদিফ চৌধুরীকে নিয়ে ৫৯ রান যোগ করেন পারভেজ। ৫ চার ও ৪ ছক্কায় সাজানো ৯৩ রানের ইনিংস খেলে অলক কাপালির বলে নাঈম হাসানের হাতে ক্যাচ দেন এনামুল। সাত রানের আক্ষেপ নিয়ে ফিরে যান সাজঘরে। এ আসরে এর আগেও নার্ভাস নাইন্টিতে আউট হয়েছিলেন তিনি।

এনামুলকে ফেরানোর পর ফারুক এবং মেহেদিকেও দ্রুত ফেরান অলক কাপালি। দুজনের কেউ দু অঙ্কের ঘরে যেতে পারেনি। ৩৩ রানের ইনিংস খেলে আউট হন নাদিফ। শেষদিকে আলাউদ্দিন বাবুর ব্যাট থেকে আসে ১৯ রান। ২৩৬ রান করেই গুটিয়ে যায় গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্স।

শুরুতেই আবু হায়দার রনির বোলিং তোপে পড়ে ব্রাদার্স ইউনিয়ন। ইনিংসের দ্বিতীয় বলেই মিজানুর রহমানকে বোল্ড করেন রনি। ফরহাদ হোসেন বড় ইনিংসের আভাস দিলেও তা হতে দেননি মেহেদি হাসান। ১৩ বলে ১৪ রান করেন ফরহাদ। ওপেনার জুনায়েদ সিদ্দিকীও ১৪ রান করে মেহেদি হাসানের শিকার হন। ৩১ রানে টপ অর্ডারের তিনজনকে হারিয়ে বিপদে পড়ে গাজী গ্রুপ।

অলক কাপালি ও মানভিন্দর বিসলার ৭৮ রানের জুটিতে খেলায় ফিরে আসে ব্রাদার্স ইউনিয়ন। তাদের এ জুটি ভাঙেন শহিদুল ইসলাম। অর্ধশতক থেকে এক রান দূরে থেকে বিদায় নেন অলক কাপালি। পরের বলে কাজী কামরুল ইসলামকে এলবিডব্লিউ করেন শহিদুল। দুই বলে দুই উইকেট হারিয়ে আবার চাপে পড়ে ব্রাদার্স।

এরপর প্রতিরোধ গড়ে তুলেন বিসলা ও ধীমান ঘোষ। তাদের ৬০ রানের জুটিতে খেলায় টিকে থাকে ব্রাদার্স। ৯৫ বলে ৫৬ রান করা বিসলাকে বোল্ড করেন আবু হায়দার রনি। ঐ ওভারে ৩২ রান করা ধীমান ঘোষকেও ফেরান আবু হায়দার। ১৭০ রানে পতন ঘটে সপ্তম উইকেটের। এক ওভারে দুই উইকেট হারিয়ে আবারো বিপদে পড়ে ব্রাদার্স।

হাল ধরেন মাইশুকুর রহমান। দলকে এগিয়ে নিয়ে যান জয়ের পথে। তার ব্যাটে জয়ের স্বপ্ন দেখতে থাকে ব্রাদার্স। লোয়ার অর্ডারের কেউ সঙ্গ দিতে পারেনি মাইশুকুরকে। ৬ বলে ২ রান করে আবু হায়দারের বলে বোল্ড হন সাদ্দাম। ১১ বলে ৭ রান করে পারভেজের শিকার হন নিহাদুজ্জামান। শেষ উইকেটে ৩৬ বলে ৪৩ রান প্রয়োজন ছিল ব্রাদার্সের। শেষ উইকেটে নাঈম হাসানকে নিয়ে ৩২ রান তুলতে সক্ষম হন মাইশুকুর। তিন ছয়ে ৩৮ রান করে অপরাজিত ছিলেন তিনি। ৮ বলে ৯ রান করে নাঈম হাসান রান আউট হলে শেষ হয় ব্রাদার্সের ইনিংস।

সংক্ষিপ্ত স্কোর গাজী গ্রুপ ২৩৬/১০, ৪৮.৪ ওভার
এনামুল ৯৩, শুভ ৪১, নাদিফ ৩৩
সাদ্দাম ৩/৩৪, কাপালি ৩/৪৮

ব্রাদার্স ইউনিয়ন ২২৬/১০, ৪৮.৫ ওভার
বিসলা ৫৬, কাপালি ৪৯, মাইশুকুর ৩৮*
আবু হায়দার ৪/৫২, শহিদুল ২/২৯


আরো পড়ুনঃ হাসপাতালে আব্দুর রাজ্জাক  



-আজমল তানজীম সাকির, প্রতিবেদক, বিডিক্রিকটাইম ডট কম 

 

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Related Articles

চার অধিনায়কের ম্যাচে শেষ হাসি তামিমের

ডিপিএলে রিয়াদের বোলিং ঝলক

বাড়তি দায়িত্বের ভার টের পাচ্ছেন সৌম্য

বড় দলের ‘বড় চ্যালেঞ্জ’ টের পাচ্ছেন আকবর

প্রাইম ব্যাংকের কাছে হেরে বিদায় নিল গাজী গ্রুপ