Scores

অবসরের আগে স্মিথের ‘দুই লক্ষ্য’

সাবেক অস্ট্রেলিয়ান অধিনায়ক স্টিভ স্মিথ আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসর নেওয়ার আগে দুইটি লক্ষ্য পূরণ করে যেতে চান। এই ডানহাতি ব্যাটসম্যান অবসরের আগে ইংল্যান্ডের মাটিতে অ্যাশেজ সিরিজ ও ভারতের মাটিতে টেস্ট সিরিজে অস্ট্রেলিয়ার জয় দেখার লক্ষ্য নির্ধারণ করেছেন।

অবসরের আগে স্মিথের 'দুই লক্ষ্য'

অ্যাশেজের সর্বশেষ সিরিজটি অনুষ্ঠিত হয়েছিল ইংল্যান্ডের মাটিতে। নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে সেই সিরিজ দিয়েই সাদা পোশাকের ক্রিকেটে প্রত্যাবর্তন করেছিলেন স্মিথ। দেড় বছরের বিরতি দিয়ে ফিরলেও তার ব্যাটিংয়ে সে আঁচ ছিল না। দুর্দান্ত ব্যাটিং করে সিরিজ সেরা খেলোয়াড় নির্বাচিত হয়েছিলেন এই ডানহাতি ব্যাটসম্যান। তবে অ্যাশেজের ট্রফিটা হাতে তুলতে পারেননি। ইংল্যান্ডের হাতেই উঠেছিল সেটা যদিও সিরিজ ২-২ ব্যবধানে ড্র হয়েছিল। সেই এক সিরিজের স্মিথের ব্যাট থেকে এসেছিল ৭৭৪ রান।

Also Read - সাঙ্গাকারা-ম্যাককালামদের চেয়ে এগিয়ে ধোনি


তবুও সেই সিরিজটাকে স্মিথ অসম্পূর্ণ বলে মনে করেন। কারণ সিরিজের ট্রফিটা হাতে তুলতে ব্যর্থ হয়েছিলেন অস্ট্রেলিয়ানরা। অবসরের আগে স্মিথের লক্ষ্যও এটি। ইংল্যান্ডের মাটিতে অ্যাশেজ সিরিজ জয় করতে চান তিনি অবসরের আগে। ২০০১ সালে সর্বশেষ ইংল্যান্ডের মাটিতে অ্যাশেজ জিতেছিল স্টিভ ওয়াহের অস্ট্রেলিয়ান দল।

এছাড়া সাদা পোশাককে বিদায় বলার আগে স্মিথের আরেকটা লক্ষ্য হলো ভারতের মাটিতে ভারতকে টেস্ট সিরিজে হারানো। এই ডানহাতি ব্যাটসম্যানের ক্যারিয়ারের একটি বড় লক্ষ্য ভারতের মাটিতে টেস্ট সিরিজের ট্রফিটা উঁচিয়ে ধরার। ভারতের মাটিতে সর্বশেষ অস্ট্রেলিয়া টেস্ট সিরিজ জিতেছিল ২০০৪ সালে।

প্রসঙ্গত, ৩১ বছর বয়সী এই ব্যাটসম্যান ৭৩টি টেস্ট ম্যাচে ৭২২৭ রান সংগ্রহ করেছেন। ৬২.৮৪ গড়ে ২৬টি শতক ও ২৯টি অর্ধশতক হাঁকিয়েছেন স্মিথ।

বল বাই বল লাইভ স্কোর পেতে আর নয় বিদেশি অ্যাপ। বাংলাদেশ ক্রিকেটের সাম্প্রতিক খবর এবং বল বাই বল লাইভ স্কোর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে BDCricTime সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান ক্রিকেট অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।

Related Articles

ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার সিদ্ধান্তে রশিদ খানদের স্বপ্নভঙ্গ

আটকে গেল নিউজিল্যান্ডের অস্ট্রেলিয়া সফর

দেশে ফিরতে জটিলতার সম্মুখীন মার্শ

ডিন জোন্সকে হারিয়ে শোকে স্তব্ধ ক্রিকেট দুনিয়া

না ফেরার দেশে কিংবদন্তি ডিন জোন্স