অবসরের গুঞ্জন উড়িয়ে দিলেন অ্যান্ডারসন

টেস্ট ক্রিকেট থেকে ইংলিশ পেসার জেমস অ্যান্ডারসন অবসর নিবেন- এমন গুঞ্জন উড়িয়ে দিয়েছেন তিনি। ৩৮ বছর বয়সী এ ক্রিকেটার জানিয়েছেন টেস্ট খেলার ক্ষুধা এখনো আছে তার মাঝে।

Advertisment

পাকিস্তানের বিপক্ষে সিরিজের প্রথম টেস্টে জেমস অ্যান্ডারসন ছিলেন বিবর্ণ। দুই ইনিংস মিলিয়ে ২৮ ওভার বোলিং করে রান দেন ৯৭। একমাত্র উইকেট ছিল বাবর আজমের।

করোনভাইরাসের কারণে  দীর্ঘ বিরতির পর মাঠে ফিরে জেমস অ্যান্ডারসন খেলেছেন ছয় ইনিংস। ছয় ইনিংসে উইকেট তার ছয়টি। এর মধ্যে তিন ইনিংসে খালি হাতে ছিলেন এ পেসার। এমন পারফরম্যান্স মোটেও অ্যান্ডারসনের সাথে মানানসই নয়। কিছুদিন আগেই তিনি পা দিয়েছেন ৩৯ বছরে। সবকিছু মিলিয়ে  অনেকেই ভেবেছিলেন ক্যারিয়ারের ইতি টানতে যাচ্ছেন অ্যান্ডারসন।

তবে সেই ভাবনাটা একদমই ভুল।তবে ম্যানচেস্টারে তার পারফরম্যান্স যে হতাশাজনক- সেটা মানছেন তিনি। অ্যান্ডারসন বলেছেন, “ব্যক্তিগতভাবে আমার জন্য একটা হতাশাজনক সপ্তাহ কেটেছে। আমি খুব ভালো বোলিং করতে পারিনি এবং ছন্দে ছিলাম না।

“সম্ভবত গত দশ বছরে প্রথমবার আমি মাঠে একটু আবেগী হয়ে পড়েছিলাম।  আমি একটু হতাশ হয়ে পড়েছিলাম।  এটি আমাকে সেই সময়ের কথা মনে করিয়ে দেয় যখন আমি প্রথম খেলতে শুরু করি। আপনি যখন হতাশ হয়ে যাবেন এবং খানিকটা রাগান্বিত হবেন তখন শুধু আপনি জোরেই বোলিং করে যাবেন। এটা কোনো কাজে আসে না।”

পাকিস্তানের বিপক্ষে খুব বেশি খারাপ বোলিং তিনি করেননি বলে মনে করেন তিনি।  ম্যাচের পরিস্থিতি কিংবা প্রত্যাশার ভার- কোনো একটা কারণে চাপে অনুভব করছিলেন এবং তা ভালোভাবে সামাল দিতে পারেননি- এমন ভাবনা তার।

অবসর নিয়ে জেমস অ্যান্ডারসন বলেন, “আমি অবশ্যই অ্যাশেজ খেলতে চাই। কিন্তু  এরকম না যে এটাই আমার ফোকাস। আমি যতদূর পর্যন্ত সম্ভব খেলে যেতে চাই। আমি এখনো খেলতে ক্ষুধার্ত।”

ইংল্যান্ডের হয়ে ১৫৪ টেস্টে ৫৯০ উইকেট নিয়েছেন জেমস অ্যান্ডারসন। ক্যারিয়ারে এক ইনিংসে পাঁচ উইকেট শিকার করেছেন ২৮ বার। টেস্ট ইতিহাসের চতুর্থ ও ইংল্যান্ডর সর্বোচ্চ উইকেট শিকারী তিনি।  ইংল্যান্ডের প্রথম বোলার হিসেবে টেস্টে ৬০০ উইকেট স্পর্শ করার সামনে রয়েছেন তিনি। অবশ্য এ মাইলফলক নিয়ে খুব বেশি চিন্তিত নন তিনি।