অভিজ্ঞতার সাথে তারুণ্যের মিশেলে ভালো দল গড়েছে তামিমের খুলনা

তামিমকে নিয়ে শিরোপার স্বপ্ন দেখতেই পারে খুলনা।

অভিজ্ঞতার সাথে তারুণ্যের মিশেলে ভালো দল গড়েছে তামিমের খুলনা

রাইসান কবির
ক্রীড়া প্রতিবেদক

প্রকাশিত হয়েছে -

আপডেট হয়েছে -

খেলার সারসংক্ষেপ

  • অভিজ্ঞতার সাথে তারুণ্যের মিশেলে বেশ শক্তিশালী দল গড়েছে তামিমের খুলনা
  • তামিম ছাড়াও দলে আছেন জাতীয় দলে খেলা বেশ কয়েকজন ক্রিকেটার
  • বিদেশি অনেক নামিদামি ক্রিকেটারও আছেন খুলনার ডেরায়
  • বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) নবম আসরের প্লেয়ারস ড্রাফট সমাপ্ত হয়েছে। ফ্র্যাঞ্জাইজিগুলো নিজেদের মত করে দলে ভিড়িয়েছে পছন্দের ক্রিকেটারদেরকে। প্রায় সব দলই তারকা ক্রিকেটারদের দিকেই বেশি ঝুঁকেছে।
    খুলনায় খেলবেন দেশসেরা ওপেনার তামিম ইকবাল। ফাইল ছবি
    ড্রাফটের আগেই সরাসরি চুক্তিতে একজন করে দেশি ক্রিকেটারকে দলে টানার সুযোগ পেয়েছিল ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলো। এখনও পর্যন্ত শিরোপার দেখা না পাওয়া খুলনা টাইগার্স সেই কোটায় দলে ভিড়িয়েছে দেশসেরা ওপেনার তামিম ইকবালকে। এছাড়া ড্রাফটের আগে বিদেশি অনেক ক্রিকেটারকেও সরাসরি চুক্তিতে দলে নিয়েছে তারা। ড্রাফট থেকে ১০ জন দেশি ক্রিকেটারের পাশাপাশি ২ জন বিদেশি ক্রিকেটারকে দলে টেনেছে খুলনা টাইগার্স।
     
    জাতীয় দলে খেলা বেশ কয়েকজন ক্রিকেটার আছেন খুলনার ডেরায়। ওপেনিংয়ে অবশ্যই দলের বড় ভরসা হয়ে থাকবেন তামিম। বিপিএল ইতিহাসের সবচেয়ে বেশি রানের মালিক তামিম। ৭৮ ইনিংসে ৩৮.৬৪ গড়ে ২৬২৮ রান করেছেন তিনি। ১২২.৬৩ এর স্ট্রাইকরেটটাও খুব একটা মন্দ নয়। ফিফটি করেছেন ২৩টি, সেঞ্চুরি আছে ২টি। এর মধ্যে একটি সেঞ্চুরি আবার হাঁকিয়েছেন কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের হয়ে ২০১৯ বিপিএলের ফাইনাল ম্যাচে। তামিমের অপরাজিত ১৪১ রানের সেই অনবদ্য ইনিংসে ভর করেই সেবার শিরোপার স্বাদ পায় কুমিল্লা। তামিমের দুর্দান্ত সেই ইনিংসটি এখনও চোখে লেগে থাকার কথা সকলের। বিপিএলের তামিম সবসময়ই দুর্দান্ত। এবারের আসরেও খুলনা টাইগার্সের বড় আস্থার নাম হয়েই থাকবেন তামিম।

    তামিম ছাড়াও খুলনার দলে আছেন তরুণ ওপেনার মাহমুদুল হাসান জয়। ২০২০ সালে বাংলাদেশের অনুর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ জয়ে বড় ভূমিকা রেখেছিলেন জয়। এছাড়াও গত আসরে দারুণ খেলা ওপেনার মুনিম শাহরিয়ারকে দলে ভিড়িয়েছে খুলনা। মিডল অর্ডারে জাতীয় দলে খেলা ইয়াসির আলি চৌধুরীর সাথে থাকবেন একসময়ের মারকুটে ব্যাটার সাব্বির রহমান। পেস বোলিং অলরাউন্ডার মোহাম্মদ সাইফুদ্দিনও আছেন খুলনাতেই।
    একসময়ের টি-টোয়েন্টি স্পেশালিস্ট সাব্বির রহমানকেও দলে নিয়েছে খুলনা। ফাইল ছবি 

    এছাড়াও বিদেশি ক্রিকেটারদের মধ্যে আভিষকা ফার্নান্দো এবং আজম খানও থাকবেন খুলনার ব্যাটিংকে দৃঢ় করতে। শ্রীলঙ্কান অলরাউন্ডার দাসুন শানাকাকেও দলে টেনেছে খুলনা। টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে শানাকার সামর্থ্যের কথা সবারই জানা। সব মিলিয়ে খুলনার ব্যাটিং ইউনিটটা বেশ শক্তিশালী।
     
    সেই তুলনায় দলের বোলিং ইউনিট কিছুটা তরুণ। জাতীয় দলের স্পিনার নাসুম আহমেদের সাথে গত বিপিএলে কুমিল্লার হয়ে দুর্দান্ত খেলা নাহিদুল ইসলামকে দলে নিয়েছে খুলনা। ডানহাতি অফ স্পিনার নাহিদুলের সাথে বাঁহাতি স্পিনার নাসুমের রসায়নটা জমলে ভালো কিছুই অপেক্ষা করছে খুলনার জন্য। 

    দলের পেসারদের মধ্যে বিদেশিদেরই জয়জয়কার। দেশি শফিকুল ইসলাম কিছুটা অনভিজ্ঞ। পাকিস্তানি দুই পেসার ওয়াহাব রিয়াজ এবং নাসিম শাহ নিঃসন্দেহে দারুণ সংযোজন দলের বোলিং ইউনিটে। ওয়াহাব আগেও খেলেছেন বিপিএলে। পাকিস্তান জাতীয় দলেও খেলেছেন লম্বা সময়। দুনিয়ার বিভিন্ন প্রান্তের টি-টোয়েন্টি লিগগুলোতেও খেলে বেড়ান নিয়মিত।

    অন্যদিকে নাসিম কিছুটা তরুণ হলেও ইতোমধ্যে নিজের প্রতিভার জানান দিয়েছেন আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে। পাকিস্তানের হয়ে আন্তুর্জাতিক মঞ্চে আলো ছড়াচ্ছেন নিজের গতি আর সুইং দিয়ে। অল্প সময়েই অনেকের প্রশংসা কুড়িয়েছেন নাসিম। সর্বশেষ এশিয়া কাপের পারফরম্যান্সও ছিল নজরকাড়া। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপেও নাসিমের নিয়ন্ত্রিত বোলিং মোকাবেলা করতে গিয়ে বেশ বেগ পেতে হয়েছে ক্রিকেটারদেরকে। পিএসএলে তো নিয়মিতই খেলেন, এর আগে খেলেছেন ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগেও (সিপিএল)। বিপিএলে আগামী মৌসুমই প্রথম মৌসুম হতে যাচ্ছে নাসিমের জন্য। সবকিছুর মত বিপিএলকেও তিনি নিজের পারফরম্যান্স দিয়ে রাঙাতে পারেন কিনা তাই এখন দেখার বিষয়।
    খুলনার জার্সিতে বিপিএল মাতাবেন ইয়াসির আলি। ফাইল ছবি
    এছাড়া নেদারল্যান্ডসের অভিজ্ঞ পেসার পল ভ্যান মিকেরেনকেও দলে টেনেছে খুলনা। লম্বা সময় ধরে ডাচদের হয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলছেন মিকেরেন। সর্বশেষ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপেও খেলেছেন ডাচদের হয়ে। প্রথম রাউন্ড পেরিয়ে সুপার টুয়েলভে উত্তীর্ণ হওয়া নেদারল্যান্ডসের জন্য দারুণ এক বিশ্বকাপই কেটেছে এবার। সুপার টুয়েলভে হারিয়েছে জিম্বাবুয়ে এবং দক্ষিণ আফ্রিকাকে। টুর্নামেন্টে মোট ১১ উইকেট শিকার করে দলের সাফল্যে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকাই রেখেছেন মিকেরেন। এর আগে সিপিএলে খেলার অভিজ্ঞতা থাকলেও এবারই প্রথম বিপিএলে খেলবেন তিনি।

    অভিজ্ঞদের নিয়ে সাজানো খুলনার ব্যাটিং বেশ শক্তিশালী। সেই সাথে কিছুটা তরুণ বোলারদের নিয়ে গড়া খুলনা টাইগার্সের দলটি তাই কাউকে ছেড়ে কথা বলবে না। তামিম ইকবাল খুলনাকে প্রথমবারের মত বিপিএলের শিরোপার স্বাদ এনে দিতে পারেন কিনা তাই এখন দেখার বিষয়।     
     

    বাংলাদেশের ক্রিকেটসহ আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের সব ধরনের খবর সবার আগে পেতে এখানে ক্লিক করে সাবস্ক্রাইব করুন BDCricTime Videos চ্যানেলটি। বল বাই বল লাইভ স্কোর পেতে আর নয় বিদেশি অ্যাপ। বাংলাদেশ ক্রিকেটের সাম্প্রতিক খবর এবং বল বাই বল লাইভ স্কোর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে BDCricTime সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান ক্রিকেট অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।
     
     
     
     
        
     
        
    সম্পর্কিত খবর