Scores

অধিনায়ক মাশরাফির বিদায়ী ম্যাচে ‘অভিমান’ ভাঙে সাইফউদ্দিনের

দর্শকরা শুধু মাঠের খেলাই দেখেন। মাঠের বাইরে ঘটে যায় কত ঘটনা, সেসব থেকে যায় সাধারণের আড়ালেই। বিশ্বকাপে তেমনই এক ঘটনায় মাশরাফি বিন মুর্তজার ব্যাপারে ‘অভিমানী’ করে তুলেছিল মোহাম্মদ সাইফউদ্দিনকে। সেই অভিমানের ইতি ঘটে মাশরাফির নেতৃত্বের বিদায়ী ম্যাচের সময়।

মাশরাফির কণ্ঠে সাইফউদ্দিনের ভূয়সী প্রশংসা

মার্চে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে তিন ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজের তৃতীয় ও শেষ ম্যাচের আগের দিন সিলেটে মাশরাফি ঘোষণা দেন, অধিনায়ক হিসেবে এটিই তার শেষ ম্যাচ। সর্বকালের অন্যতম সেরা অধিনায়কের বিদায় বার্তায় স্বভাবতই বিমর্ষ হয়ে পড়ে দেশের ক্রিকেট অঙ্গন। সাইফউদ্দিনও তখন মাশরাফির প্রতি জমে থাকা অভিমান খোলাসা করেন অধিনায়ককে।

Also Read - পাকিস্তানের ২০ বছরের রেকর্ড ভেঙে ইংল্যান্ডের রোমাঞ্চকর জয়






বিডিক্রিকটাইম এর লাইভ আড্ডায় সাইফউদ্দিন বলেন, ‘আমি ছোটবেলা থেকেই মাশরাফি ভাইয়ের বড় ভক্ত। পাশাপাশি উনার ব্যক্তিত্ব, কথাবার্তা সবকিছুই আমার ভালো লাগত। কিন্তু ব্যক্তিগত একটি বিষয় নিয়ে তার প্রতি আমার একটু হালকা অভিমান ছিল। তবে মাশরাফির ভাইয়ের অধিনায়কত্বে বিদায়ী ম্যাচ খেলার আগে আমি আর মিরাজ ছিলাম একটা রুমে। তখন এ বিষয়ে ভাইকে সরাসরি জিজ্ঞেস করে ফেলেছি। এরপর ভাইকে কোথাও পাব কি না, জাতীয় দলে পাব কি না…’

সাইফউদ্দিন জানান, ভুল বোঝাবুঝির অবসানের পর মাশরাফির প্রতি আর কোনো অভিমান নেই তার। তিনি বলেন, ‘ভাইকে যে সম্মানের চোখে দেখতাম, এখনো দেখি। তবে কিছু প্রশ্ন থাকে মানুষের যা থাকলে রাতে ঘুম হয় না। তাই মাশরাফি ভাইকে ঐ ব্যাপারে জিজ্ঞেস করে ফেলি। ভাইও সাথে সাথে বিষয়টি পরিস্কার করে। এরপর ভাইয়ের প্রতি আমার আগের যে সম্মান, ভালোবাসা তা পূর্ণতা পায়। বিশ্বকাপের একটা কাহিনী নিয়ে বিষয়টি খোলাসা করার পর ভাইয়ের প্রতি যে অভিমান ছিল তা দূর হয়ে যায়। একসাথে খেলতে গেলে, চলাফেরা করতে গেলে ভুল বোঝাবুঝি হবেই। ভাই এটা জানতও না। আমি মনের ভেতরে পুষে রেখেছিলাম। ঐ ম্যাচে আমি চার উইকেট পাই।’





জমে থাকা অভিমান প্রকাশ করাতেই স্পষ্ট, মাশরাফির বিদায় ধ্বনি কতটা আঘাত করেছিল সাইফউদ্দিনকে। আবেগে সেই রাতে অনেকক্ষণ মাশরাফিকে নিয়ে বানানো একটি গান শুনছিলেন সাইফউদ্দিন, ‘মাশরাফি ভাইকে নিয়ে একটা গান আছে। ঐ ম্যাচের আগের রাতে আমি গানটা এক ঘণ্টার উপর শুনেছি। খুব ভালো লাগছিল তখন’– বলেন তিনি।

মাশরাফির প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে তিনি আরও জানান, ‘শুধু অধিনায়ক হিসেবেই না; মাশরাফি ভাইয়ের কথাবার্তা বা খেলোয়াড়দের উৎসাহ দেওয়া সবই ভালো লাগে। বিশেষ করে যেভাবে আমাকে সাপোর্ট দিয়েছেন। রুবেল ভাই দেশের সেরা পাঁচ বোলারের একজন। উনাকে ড্রপ দিয়ে আমাকে সুযোগ দিয়েছেন। অধিনায়কের সাপোর্ট না থাকলে কখনোই দলে স্থান পাবেন না।’

বল বাই বল লাইভ স্কোর পেতে আর নয় বিদেশি অ্যাপ। বাংলাদেশ ক্রিকেটের সাম্প্রতিক খবর এবং বল বাই বল লাইভ স্কোর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে BDCricTime সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান ক্রিকেট অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।

 

Related Articles

বোলিংয়ে পুরনো ছন্দের খোঁজে সাইফউদ্দিন

টেস্ট খেলে ‘স্বপ্নপূরণের’ অপেক্ষায় সাইফউদ্দিন

বিকেএসপিতে আফিফের জন্মদিন উদযাপনে সাকিবরা

ঢিমেতালে এগোচ্ছে শ্রীলঙ্কা, অপেক্ষায় রাজি বিসিবি

ক’রোনায় আক্রান্ত আবু জায়েদ রাহী