অলকের ঝলকে কোণঠাসা মাহমুদউল্লাহরা

ঢাকা প্রিমিয়ার লিগের (ডিপিএল) সুপার লিগের ম্যাচে মুখোমুখি হয়েছে গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্স ও প্রাইম ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাব। প্রথমে ব্যাট করতে নেমে অলক কাপালির বোলিং তোপে স্বল্প পুঁজি দাঁড় করিয়েছে গাজী গ্রুপ। 

অলকের ঝলকে কোণঠাসা মাহমুদউল্লাহরা

Advertisment

‘হোম অব ক্রিকেট’ খ্যাত মিরপুরের শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টস জিতে প্রথমে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন প্রাইম ব্যাংকের অধিনায়ক এনামুল হক বিজয়। প্রথম ওভারেই দলটি পেয়ে যায় সাফল্য। গোল্ডেন ডাকের শিকার হয়ে সাজঘরে ফেরেন সৌম্য সরকার।

শেখ মেহেদী হাসান ওয়ানডে মেজাজে এক প্রান্ত আগলে রাখলেও অপর প্রান্তে তার সতীর্থরা আসা-যাওয়ায় ব্যস্ত ছিলেন। তিনিও এদিন খুব একটা সুবিধা করতে পারেননি। ৩১ রান করে সাজঘরে ফেরার আগে মোকাবেলা করেছেন ৩১ বল।

১১.৫ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে ৬৫ রান জড়ো করে গাজী গ্রুপ। এরপর বৃষ্টি নামলে বন্ধ থাকে খেলা। অল্প কিছুক্ষণ বৃষ্টি হওয়ায় ইনিংসের দৈর্ঘ্য কমেনি। মাঠকর্মীরা মাঠ প্রস্তুত করার পর আবারও শুরু হয় খেলা।

তবে তাতেও ছন্দ খুঁজে পায়নি গাজী গ্রুপ। অলকের ঝলকে মিডল অর্ডার ভেঙে পড়ার পর বলার মত লড়াই চালিয়েছেন শুধু আরিফুল হক ও আকবর আলী। আকবর ২২ বলে ২৪ রান করে বিদায় নিলেও আরিফুল একটি করে চার ও ছক্কায় ৩১ রান করে শেষ বলে আউট হন। রুবেল হোসেনের করা শেষ ওভার থেকে গাজী গ্রুপ জড়ো করে ১৪ রান।

নির্ধারিত ২০ ওভার শেষে ৯ উইকেট হারিয়ে গাজী গ্রুপের সংগ্রহ দাঁড়ায় মাত্র ১২৫ রান। প্রাইম ব্যাংকের পক্ষে মাত্র ১৬ রানের খরচায় অলক একাই শিকার করেন তিনটি উইকেট। এছাড়া দুটি উইকেট শিকার করেন শরিফুল ইসলাম।

সংক্ষিপ্ত স্কোর 

টস : প্রাইম ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাব

গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্স : ১২৫/৯ (২০ ওভার)
শেখ মেহেদী ৩৩, আরিফু; ৩১, আকবর ২৪
অলক ১৬/৩, শরিফুল ৩৪/২

জয়ের জন্য প্রাইম ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাবের প্রয়োজন ১২৬ রান।