অলরাউন্ডার সাইফে সিরিজ জয়ের সুবাস পাচ্ছে ‘এ’ দল

ব্যাট হাতে সেঞ্চুরি হাঁকানোর পর দলের প্রয়োজনে বল হাতেও এগিয়ে এলেন সাইফ হাসান। তার বোলিং নৈপুণ্যে প্রদর্শনে সিরিজ জয়ের স্বপ্ন দেখছে বাংলাদেশ ‘এ’ দল।।

 

Advertisment

২-২ সমতায় সিরিজ শেষ করল বাংলাদেশ 'এ' দল।

বাংলাদেশের দেওয়া ৩২৩ রানের জয়ের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে ২৭ রান তুলতেই দুই ওপেনারের উইকেট হারিয়েছিল শ্রীলঙ্কা। শুরুর এমন ধাক্কার পর তৃতীয় উইকেট জুটিতে স্বাগতিকদের হাল ধরেন কামিন্দু মেন্ডিস ও আশান প্রিয়াঞ্জন। প্রাথমিক বিপর্যয় সামাল দিয়ে ৬৪ রানের জুটি গড়েন তারা।

মেন্ডিস ও প্রিয়াঞ্জন জুটি যখন ভয়ঙ্কর হয়ে ওঠছিল তখন আক্রমণে আসেন সাইফ হাসান। ব্যাট হাতে সেঞ্চুরি হাঁকানোর পর তার হাত ধরেই আসে ব্রেকথ্রু। ৩৪ রান করা প্রিয়াঞ্জনকে আউট করেন তিনি। প্রিয়াঞ্জনের বিদায়ের পর ক্রিজে আসা নতুন ব্যাটসম্যান প্রিয়ামাল পেরেরাও আউট হন সাইফের বলে।

দ্রুত দুই উইকেট হারিয়ে ফের চাপে পড়ে স্বাগতিকরা। স্বাগতিকদের এ চাপে বাড়তি মাত্রা যোগ করেন পেসার এবাদত হোসেন।  বান্দারার পর সাজঘরে ফেরান ৫৫ রান করা মেন্ডিসকে। এর ফলে ১২৯ রানে ৬ উইকেট হারিয়ে বসে লঙ্কানরা। মেন্ডিসের বিদায়ের ২ বল পর আলোকস্বল্পতায় বন্ধ হয়ে যায় খেলা।

শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত, ২৪.৪ ওভার শেষে শ্রীলঙ্কা ‘এ’ দলের সংগ্রহ ৬ উইকেটে ১৩০ রান।

এর আগে কলম্বোর আর প্রেমাদাসা স্টেডিয়ামে সিরিজ নির্ধারণী ম্যাচে শ্রীলঙ্কার আমন্ত্রণে প্রথমে ব্যাট করে সফরকারীরা। দুই ওপেনার সাইফ হাসান ও মোহাম্মদ নাইমের ব্যাটে উড়ন্ত শুরু পায় বাংলাদেশ। উদ্বোধনী জুটিতে দু’জনে মিলে যোগ করেন ১২০ রান।

টানা দ্বিতীয় হাফ-সেঞ্চুরি তুলে নিয়ে নাইম আউট হন ব্যক্তিগত ৬৬ রানে। ৭৬ বল মোকাবেলায় ৫ চার ও ২ ছক্কায় এ রান করেন তিনি। ‘অবস্ট্রাক্টিং দ্যা ফিল্ড’ এর শিকার হয়ে নাইম আউট হলে ভাঙ্গে ১২০ রানের উদ্বোধনী জুটি। তার ফিরে যাওয়ার পর দ্রুত সাজঘরে ফিরেন নাজমুল হোসেন শান্ত (২) ও এনামুল হক বিজয় (১২)।

দলীয় ১৬৫ রানে ৩ উইকেট হারানো বাংলাদেশের হাল ধরেন সাইফ ও মোহাম্মদ মিঠুন। চতুর্থ উইকেটে ৯৯ রানের জুটি গড়েন তারা। যা  প্রাথমিক বিপর্যয় সামালের পাশাপাশি বড় সংগ্রহের পথে এগিয়ে নেয় সফরকারীদের।

লঙ্কান বোলারদের ওপর আধিপত্য বিস্তার করে ব্যাট করতে থাকা সাইফ তুলে নেন লিস্ট ‘এ’ ক্যারিয়ারের ষষ্ঠ সেঞ্চুরি। সেঞ্চুরি হাঁকানোর পর আরও আগ্রাসী মেজাজে ব্যাট করতে গিয়ে ফার্নান্দোর বলে প্রিয়াঞ্জনের হাতে ধরা পড়লে থামে তার ইনিংস। আউটের আগে ১১০ বল মোকাবেলায় ডানহাতি এ ব্যাটসম্যান করেন ১১৭ রান। তার ইনিংসে ছিল ১২টি চার ও ৩টি ছক্কা।

সাইফের আউটের পর দ্রুত ফিরে যান মিঠুন (৩২) ও আফিফ হোসেন ধ্রুব (১২)। শেষ দিকে সোহান (১৭), আরিফুল (৬) করে আউট হলে কিছুটা ভাটা পড়ে সফরকারীদের রান তোলায়। শেষ পর্যন্ত সানজামুল ইসলামের ৭ বলের ১২ রানে চড়ে স্কোরবোর্ডে ৯ উইকেটে ৩২২ রান যোগ করতে সক্ষম হয় সফরকারীরা।

স্বাগতিক বোলারদের মধ্যে শিরান ফার্নান্দো সর্বোচ্চ চারটি ও ভিশয়া ফার্নান্দো তিনটি উইকেট লাভ করেন।

সংক্ষিপ্ত স্কোর-
বাংলাদেশ ‘এ’ দল: ৩২২/৯ (৫০ ওভার)
সাইফ ১১৭ (১১০), নাইম ৬৬ (৭৬), শান্ত ২ (১২), বিজয় ১৫ (২১), মিঠুন ৩২ (৩৫), আফিফ ১২ (১৩), সোহান ১৭ (১২), আরিফুল ৬ (৫), রনি ৮ (৭) , সানজামুল ১২* (৭), এবাদত ৩* (৩)।

প্রথমবারের মত বিডিক্রিকটাইম নিয়ে এলো অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ্লিকেশন। বাংলাদেশ এবং সকল আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের বল বাই বল লাইভ স্কোর, এবং সাম্প্রতিক নিউজ সহ সবকিছু এক মুহূর্তেই পাবেন বাংলাদেশ ক্রিকেটের সবচেয়ে বড় অনলাইন পোর্টাল BDCricTime এর অ্যাপে। অ্যাপটি ডাউনলোড করতে গুগল প্লে-স্টোর থেকে সার্চ করুন BDCricTime অথবা ডাউনলোড করতে এখানে ক্লিক করুন। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।