অলস বা নিস্তেজ ভেবে আমাকে স্লেজিং করে না: রিয়াদ

0
801

এককথায় নিপাট ভদ্রলোক যাকে বলে। ক্রিকেট মাঠে শান্ত স্বভাবের জন্য আলাদা খ্যাতি আছে বাংলাদেশি অলরাউন্ডার মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের। সহসা মেজাজ হারাতে দেখা যায় না তাকে। নিজে তো স্লেজিং করেনই না, প্রতিপক্ষ থেকেও স্লেজিংয়ের শিকার হন না তিনি।

মানুষকে বাঁচাতে নীরবেই লড়ে যাচ্ছেন রিয়াদ

Advertisment

ক্রিকেট মাঠে কথার লড়াই, এটাকে অনেকেই ‘শিল্প’ হিসেবে আখ্যায়িত করে থাকেন। বর্তমান ক্রিকেটে হরহামেশায় চলে স্লেজিং। তবে এদিক বিবেচনায় স্রোতের উল্টোদিকে অবস্থান মাহমুদউল্লাহর। যত কঠিন সময়ই আসুক, প্রতিপক্ষকের খেলোয়াড়দের কটু কথা বলতে নারাজ তিনি।





১৩ বছরের আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারে একবারই স্লেজিং করেছেন তিনি। তরুণ বয়সে বাংলাদেশ দলে অভিষেকের পর জিম্বাবুয়ের ক্রিকেটার ব্রেন্ডন টেলরের সাথে কথার লড়াইয়ে জড়িয়েছিলেন এই অলরাউন্ডার। সেই শুরু, সেই শেষ। এরপর আর নিজেও স্লেজিং করেন না, সাথে স্লেজিংয়ের শিকারও হন না তিনি।

বিডিক্রিকটাইমের সাথে ভিডিও আড্ডায় মাহমুদউল্লাহ বলেন, ‘স্লেজিং আসলে আমি খুব একটা করি না। আবার আমি স্লেজিংয়ের শিকারও হয়নি খুব একটা। সম্ভবত আমার ক্রিকেট ক্যারিয়ারে একবারই এমন (স্লেজিং) ঘটনা ঘটেছে। তখন অনেকটা তরুণ ছিলাম, সবে জাতীয় দলে এসেছি।’






‘তখন টেলরের সাথে মনে হয় আমার একটু কথা কাটাকাটি হয়েছিল। তেমন কিছু না, হালকা-পাতলা এতোটুকুই। আসলে ম্যাচের পরিস্থিতি অনুযায়ী সে কিছু একটা বলেছিল আমাকে। আমি তার জবাব দিয়েছিলাম। খেলা শেষে আমরা আবার হাত মিলিয়েছি, কথাবার্তা বলেছি।’– সাথে যোগ করেন তিনি।

ব্যাটিং হোক বা ফিল্ডিং। সাফল্য অর্জনের পরেও খুব বেশি আগ্রাসী হতে দেখা যায় না মাহমুদউল্লাহকে। বাংলাদেশ দলের অনেক ম্যাচ জয়ে ভূমিকা রাখলেও শরীরী ভাষায় নির্জীব তিনি। মাহমুদউল্লাহর ধারণা এই কারণেই স্লেজিংয়ের শিকার হন না, ‘সম্ভবত আমাকে দেখে মনে হয় অলস বা একটু নিস্তেজ। এই কারণে মনে হয় আমাকে স্লেজিং করে না কেউ।’

বল বাই বল লাইভ স্কোর পেতে আর নয় বিদেশি অ্যাপ। বাংলাদেশ ক্রিকেটের সাম্প্রতিক খবর এবং বল বাই বল লাইভ স্কোর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে BDCricTime সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান ক্রিকেট অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।