Scores

অস্ট্রেলিয়ান পরিসংখ্যানবিদের হিসেবে টেস্টের সেরা অলরাউন্ডার সাকিব

বর্তমান সময়ে টেস্টে সেরা অলরাউন্ডার কে তা নিয়ে বেশ ভাল তর্ক – বিতর্ক চলছে। লড়াইটা ছিল গত কয়েক সপ্তাহে ইংল্যান্ডের বেন স্টোকস ও ওয়েস্টইন্ডিজের জেসন হোল্ডারের মাঝে। তবে বেন স্টোকসের অসাধারণ পারফরম্যান্সে পুরো বিশ্ব যেনো এক প্রকার মেনেই নিয়েছে বর্তমানে বেন স্টোকস টেস্টের সেরা অলরাউন্ডার। অনেক ভক্ত আবার ভারতের রবিচন্দ্রন অশ্বিন ও রবীন্দ্র জাদেজার কথাও বলছেন।

তাদের দাবি স্টোকস ঘরের মাঠে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে পারফরম্যান্স করলে হৈচৈ হয় তবে অশ্বিন, জাদেজারা ভারতে ইংল্যান্ড বা ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে রান করলে বা ভুড়ি ভুড়ি উইকেট নিলে কোন আলোচনা হয়না, এটা ব্রিটিশ বলেই সম্ভব।

Also Read - সারা বছর ফুটবলের মত টি-টোয়েন্টি লিগের পরিকল্পনা ক্যামেরুনের


লম্বা সময় ধরে নিষেধাজ্ঞার ফলে ইনজুরির কারনে খেলার বাইরে থাকায় সাকিবকে নিয়ে আলোচনা একদম হচ্ছেনা বললেই চলে। তবে এবার সাকিব আলোচনায় আসলেন বিখ্যাত অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেট পরিসংখ্যানবিদ, বিখ্যাত ক্রিকেটের পরিসংখ্যান সাইট সিএসডব্লিউ এর সহ প্রতিষ্ঠাতা রিক ফিনলের টুইটের মাঝে দিয়ে।

সেরা অলরাউন্ডার কীভাবে নির্ধারণ করা হবে তা নিয়ে অনেক বিতর্ক রয়েছে। কেউ বলে থাকেন পারফরম্যান্স, কেউ বলে থাকেন আইসিসির অলরাউন্ডার তালিকা, কেউ বলে থাকেন ম্যাচ জয়ে ভূমিকা। সবার মত করে পরিসংখ্যানবিদ রিক ফিনলেও একটি উপায় বের করেন সর্বকালের সেরা অলরাউন্ডার বিবেচনার জন্য ।

রিক ফিনলের উপায় হচ্ছে একজন খেলোয়াড় প্রতি টেস্টে গড়ে যত রান করল তার সাথে প্রতি টেস্টে গড়ে যত উইকেট নিলো তা গুন করা। এতে যত পয়েন্ট আসবে সেটা তার রেটিং। যার রেটিং বেশি সে সেরা। এখানে বিবেচনা করা হয়েছে টেস্ট ক্রিকেটে কমপক্ষে ২০০০ রান করা ও ১০০ উইকেট নেওয়া খেলোয়াড়দের। সেই বিবেচনায় রিক ফিনলের হিসাবে সেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। তার পরেই আছেন ক্যারিবীয় গ্রেট গ্যারি সোবার্স, সোবার্সের পরে আছেন ইংলিশ গ্রেট স্যার ইয়ান বোথাম।

সাকিবের রেটিং ২৫৯, গ্যারি সোবার্সের ২১৮, ইয়ান বোথামের ১৯১ ও ক্রিস ক্রেইনসের ১৮৮। বেন স্টোকসের অবস্থান বেশ পিছনে এই তালিকায়। ১১তম স্থানে থাকা বেন স্টোকসের পয়েন্ট ১৫৮।

দেখে নিন ক্রিকেট পরিসংখ্যানবিদ রিক ফিনলের টুইট-

পরিসংখ্যান পক্ষে থাকা ভক্তদের জন্য যেমন আনন্দের ব্যাপার তেমনি গত প্রায় ২ বছরে ইনজুরি, নিষেধাজ্ঞার কারনে সাকিবের ১টি টেস্টও খেলতে না পারা বেশ হতাশার ভক্তদের জন্য। সাকিব নিষেধাজ্ঞা থেকে ফিরে আরো অনেক বছর টেস্ট ক্রিকেট খেলা চালিয়ে যাবেন ও আরো রেকর্ড গড়বেন টেস্ট ক্রিকেটে এটাই সকল টাইগার ভক্তের প্রত্যাশা থাকবে।

Related Articles

ভুল আম্পায়ারিংয়ে পাঞ্জাবের হার, টুইটারে নিন্দার ঝড়

আইপিএল শুরু হতেই নতুন বিতর্কে মাঞ্জরেকার, টুইটারে সমালোচনার ঝড়

চায়না মোবাইলের বিজ্ঞাপনে ধোনি, সমালোচনায় উত্তাল টুইটার

পতাকায় অ্যান্ডারসনের পা, টুইটারে নিন্দার ঝড়

অ্যান্ডারসনকে খাটো করে সমর্থকদের তোপের মুখে শোয়েব