অস্ট্রেলিয়ায় বর্ণবাদী আচরণের শিকার হয়েছিলেন খাজা

পরিবারের সাথে খুব অল্প বয়সে পাকিস্তান থেকে অস্ট্রেলিয়ায় পাড়ি জমিয়েছিলেন উসমান খাজা। তবে অস্ট্রেলিয়ার তারকা এই ক্রিকেটার একসময় অস্ট্রেলিয়ার হয়ে খেলার কথা ভাবতে পারেননি। এশিয়া থেকে উঠে আসায় প্রতিনিয়ত বর্ণবাদী আচরণের শিকার হতে হত তাকে। 

বর্ণবাদের কারণে অস্ট্রেলিয়ার হয়ে খেলার কথা ভাবতেন না খাজা

Advertisment

৩৪ বছর বয়সী ক্রিকেটার অস্ট্রেলিয়ার প্রথম মুসলিম ক্রিকেটার হিসেবে ২০১১ অ্যাশেজে অভিষেক ঘটান। এখনও জাতীয় দলের ব্যাটিং অর্ডারে অন্যতম নির্ভরতার প্রতীক তিনি। তবে অস্ট্রেলিয়া দলে জায়গা করে নিতে তাগে অনেক ধৈর্যের পরীক্ষা দিতে হয়েছে।

বিশেষ করে এশিয়া থেকে উঠে এসেছিলেন বলে ছেলেবেলাতেই তাকে শুনতে হয়েছে ভর্ৎসনা। অস্ট্রেলিয়ার মানুষেরা মূলত শ্বেতাঙ্গ। আর তাই তাকে বারবার শুনতে হত- এই গায়ের রঙ নিয়ে অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দলে সুযোগ পাওয়া সম্ভব নয়।

ইএসপিএনক্রিকইনফোকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে বর্ণবাদের শিকার হওয়া নিয়ে খাজা বলেন, ‘অস্ট্রেলিয়ায় আমি যখন ছোট ছিলাম, আমাকে অনেকবার বলা হয়েছে যে এই গায়ের রঙ নিয়ে আমি অস্ট্রেলিয়ার হয়ে খেলতে পারব না। আমাকে বলা হত আমি এই দলের যোগ্য নই এবং তারা আমাকে কখনও দলে নেবে না। ক্রিকেটে যখন আরও নিযুক্ত হলাম, উপমহাদেশের মানুষেরা এসে বলতেন- তোমাকে দেখে খুব ভালো লাগছে, মনে হচ্ছে অস্ট্রেলিয়া দলটা এখন আমাদেরও, আমরা দলটাকে সমর্থন করি; আগে সমর্থন না করলেও এখন করি।’ 

বর্ণবাদী আচরণে খাজা এতটাই ভেঙে পড়েছিলেন যে জাতীয় দলে খেলার স্বপ্ন দেখাও বন্ধ করে দেন। এমনকি অস্ট্রেলিয়া দলকে সমর্থনও করতেন না তিনি। তিনি বলেন, ‘বর্ণবাদী আচরণ বারবার হত, হতেই থাকত। একসময় বুঝতে পারি, এসব বিষয়ে বড় একটা ভূমিকা রাখে। বুঝতে পারি এটা যে পার্থক্য গড়ে দেয়। পাকিস্তান থেকে প্রথম যখন অস্ট্রেলিয়ায় গেলাম তখন অস্ট্রেলিয়া দলকে সমর্থন করতাম না, কারণ ভাবতাম এখানে তো আমার কখনও জায়গা হবে না।’