আইসিসির পেজে বাংলাদেশি ক্ষুদে ক্রিকেটার

বাংলাদেশে দুই তিন বছরের ছোট ছোট ছেলেমেয়েরা খেলা শুরু করে রিমোট কন্ট্রোল গাড়ি কিংবা উড়ন্ত হ্যালিকপ্টার দিয়ে। ব্যাট বা বল হাতে নিয়ে খেলা শুরু করাটাও হয়ত কিছুটা স্বাভাবিক। কিন্তু একের পর এক অসাধারণ শট খেলে যাওয়া ? হ্যা হয়ত একটু অস্বাভাবিক মনে হতে পারে। তবে সে কাজই করে দেখিয়েছে বাংলাদেশি আলী। তাইতো তাকে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি) ‘ফ্যান অব দ্য উইক’ হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছে।

আলীর অসাধারন সেই ভিডিওর কিছু অংশ আইসিসির অফিসিয়াল পেজে আপলোড করে লেখা হয়েছে, ‘সে মাত্র ২ বছরের শিশু, কিন্তু তার অফ সাইডে খেলার ধরন এক কথায় অসাধারণ। তুমি আইসিসির ফ্যান অব দ্য উইক! তোমার বাবার কাছ থেকে আর অল্প কিছু ‘থ্রো ডাউন’, তাহলেই তুমি একদিন বাংলাদেশের হয়ে খেলতে পারবে।’

Also Read - 'এশিয়া কাপ খেলার কোনো দরকার নেই'


পরে আরেকটি এডিটেড ভিডিও আপলোড করে আইসিসি। সেখানে আলীর প্রতিটি শটের সাথে সাথে ব্যাকগ্রাউন্ডে ধারাভাষ্য আর দর্শকদের উল্লাস যুক্ত করা হয়। বাংলাদেশি দর্শকদের চার ছক্কার উদযাপন দেখা যায় শটের মাঝে।
এই মনোমুগ্ধকর ভিডিওটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্যাপক সাড়া ফেলেছে। অনেকে এর প্রশংসাও করছে। কে জানে হয়ত আলীর মাঝেই লুকিয়ে আছে আগামী মুশফিক, তামিম কিংবা মাহমুদউল্লাহ।

 

আরো পড়ুনঃ  গেইলকে ছাড়িয়ে সবার উপরে মুশফিক

এই নিয়ে বেশ কয়েকবার দলকে জয়ের দ্বারপ্রান্তে নিয়ে গিয়েও ম্যাচ শেষ করে আসতে ব্যর্থ হয়েছে বাংলাদেশ দলের অভিজ্ঞ উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান মুশফিকুর রহিম। এই জয় পেলেই স্বাগতিক উইন্ডিজের বিপক্ষে এক ম্যাচ হাতে রেখেই সিরিজ জয়ের স্বাদ পেত বাংলাদেশ। জয়ের এত কাছে গিয়েও ম্যাচ হাত থেকে ফসকে বের হওয়ার কষ্ট মনে হয় মুশফিকের চেয়ে কেউ বেশি পাননি। কেননা শেষ পর্যন্ত লড়াই করার আশাটা টিকে রেখেছিলেন মুশফিকই। উইন্ডিজ অধিনায়ক জেসন হোল্ডারের করা ৫০তম ওভারের প্রথম বলে কিমো পলের হাতে ক্যাচ তুলে দেওয়ার পর বারবার মাথা নাড়াচ্ছিলেন আফসোসে…

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন