আগে দক্ষিণ আফ্রিকার মতো হওয়া, তবেই না চোকার!

নকআউট বা ফাইনাল ম্যাচ এলেই যেন পুরনো ভূত ভর করে বসে বাংলাদেশের ঘাড়ে। পুরো আসর জুড়ে ভালো পারফরমেন্সের পর দেখা যায় ফাইনালে দৃষ্টিকটু পারফরমেন্স, ফলাফল স্বপ্নভঙ্গ। ব্যতিক্রম ঘটেনি এবারও।

শনিবার ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনালে শ্রীলঙ্কার কাছে ৭৯ রানের বড় পরাজয়ে প্রথমবারের মতো চ্যাম্পিয়ন হওয়ার সুযোগ হাতছাড়া করেছে বাংলাদেশ। এ নিয়ে পাঁচটি আসরের ফাইনালে স্বপ্নভঙ্গ হল টাইগারদের। বাধ্য হয়ে অনেকে তাই বাংলাদেশের গায়ে সেঁটে দিয়েছেন ‘নক আউটের দক্ষিণ আফ্রিকা’ তকমা!

Also Read - চট্টগ্রাম টেস্টের দলে ডাক পেলেন রাজ্জাক


খোলাসা করেই বলা যাক। আইসিসির টুর্নামেন্টগুলোতে পুরো আসর জুড়ে দাপট দেখিয়ে সেমিফাইনালে ভেঙে পড়ে দক্ষিণ আফ্রিকা। বিশ্ব ক্রিকেট শাসন করলেও সেমিফাইনালে দক্ষিণ আফ্রিকার এই বাধা সম্পর্কে অনেক ভেবেও বের হয়নি কোনো সমাধান। শেষমেশ ক্রিকেট বিশ্ব তাদের নাম দিয়েছে ‘চোকার’।

দক্ষিণ আফ্রিকার মতো ইদানীং বাংলাদেশও আটকাচ্ছে বারবার, তবে সেটি একাধিক দলের টুর্নামেন্টের নক-আউটে। শনিবারের অপ্রত্যাশিত হারের পর টাইগার দলপতি মাশরাফি বিন মুর্তজাকে তাই প্রশ্ন করা হল, বাংলাদেশও কি চোকারে পরিণত হচ্ছে?

সংবাদমাধ্যমের এমন প্রশ্নে কিছুটা নারাজ মাশরাফি। তার মতে, নিজেদের চোকার হিসেবে মেনে নিতে হলেও আগে অন্তত দল হিসেবে হতে হবে দক্ষিণ আফ্রিকার মতো।

মাশরাফি বলেন, ‘আমি ভাগ্যে কিছুটা বিশ্বাস করি। তবে ওটা বলব না। দক্ষিণ আফ্রিকার মতো দল হওয়ার পর হয়তো বলা যাবে আমরা চোক করছি কি না।’

দক্ষিণ আফ্রিকার মতো বড় দলের সাথে বাংলাদেশের তুলনা করা যুক্তিসঙ্গত ঠেকছে না মাশরাফির কাছে। আর তাই তার ভাষ্য, চোকার তকমা গায়ে লাগাতে হলেও অন্তত তার আগে দল হিসেবে দক্ষিণ আফ্রিকার মতো হওয়া চাই।

সাংবাদিকদের মাশরাফি বলেন,দক্ষিণ আফ্রিকার সঙ্গে বাংলাদেশকে মেলানো যুক্তিসঙ্গত হবে না। আমাদের ওদের পর্যায়ে আগে যেতে হবে। ওরা সব সময় র‌্যাঙ্কিংয়ে এক-দুই-তিনে থাকে। তাদের পর্যায়ে যেতে পারলে তখন না হয় বলা যাবে।’

আরও পড়ুনঃ ডাকাই হলো না তামিম-রিয়াদকে

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন