‘আঙুলটা আর কখনো পুরোপুরি ঠিক হবে না’

সময়মত অস্ত্রোপচার না করানো এবং এমন ইনজুরি নিয়ে ক্রিকেট খেলার ফলে ইনফেকশন হয়েছিল বাংলাদেশের সেরা ক্রিকেটার সাকিব আল হাসানের হাতে। যার ফলে বাম হাতের কনিষ্ঠ আঙুলটি আর কখনও শতভাগ ঠিক হবে না। এমনটি জানিয়েছেন সাকিব আল হাসান।

ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনালে ইনজুরির পর সাকিব @এনটিভি
 
২০১৮ সালের টাইগারদের প্রথম মিশন ছিল শ্রীলঙ্কা ও জিম্বাবুয়ের সাথে ত্রিদেশীয় সিরিজ। সেটার ফাইনালে ফিল্ডিং করতে গিয়ে ইনজুরিতে পড়েন সাকিব আল হাসান। এরপর পুরোপুরি সুস্থ হবার আগে সেই ইনজুরি সঙ্গী করে নিদাহাস ট্রফিতে খেলতে যান। এরপর আফগানিস্তানের সাথে টি-টোয়েন্টি সিরিজ, উইন্ডিজের সাথে পূর্ণাজ্ঞ সিরিজ ইনজুরি নিয়েই খেলেছিলেন। 
 
উইন্ডিজ সফর থেকে দেশে ফিরে হাতের অস্ত্রপচার করার কথা বলেছিলেন সাকিব। তবে এশিয়া কাপের মতো বড় আসরে এমন গুরুত্বপূর্ণ ক্রিকেটার না থাকা দলের জন্য বাড়তি দুশ্চিন্তার বিষয় হবে। তাই, এশিয়া কাপে সাকিবকে খেলার জন্য বিবেচনা করতে বলেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। আর হাতের অস্ত্রপচার এশিয়া কাপের পরেই করার পরিকল্পনা করা হয়। সেই অনুযায়ী সংযুক্ত আরব আমিরাতে এশিয়া কাপ খেলতে যান সাকিব।
 
কিন্তু হাতের অবস্থা ভয়াবহ হওয়ায় টুর্নামেন্টের মাঝপথে দেশে ফিরতে হয় সাকিবকে। ২৬ সেপ্টেম্বর দেশে ফিরে আসার পরের দিনই অ্যাপোলো হাসপাতালে ভর্তি হন সাকিব,যেখানে জরুরি একটি অস্ত্রোপচার হয় তার।এরপর রোববার (৩০ জুলাই) হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেয়ে বাসায় ফিরেছেন সাকিব। 
 
আর গতকাল(শুক্রবার)  অস্ট্রেলিয়ার পথে পাড়ি জমান। পরবর্তি চিকিৎসা হবে অস্ট্রেলিয়ার চিকিৎসকের পরামর্শেই। অস্ট্রেলিয়া যাওয়ার আগে একটি বে-সরকারি টিভি চ্যানেলের সঙ্গে আলাপকালে নিজের ইনজুরি নিয়ে সাকিব বলেন, ‘ইনফেকশটাই আমার সবচেয়ে বড় টেনশনের জায়গা। কারণ ইনফেকশন থাকলেই সার্জন আর ওখানে হাত দেবে না। কারণ, ইনফেকশনের সময় হাত দিলে সেটা হাঁড়ে চলে যাবে,হাঁড়ে গেলে তখন পুরো হাতই নষ্ট হয়ে যাবে।’
 
পাশাপাশি সাকিব জানিয়েছেন, ‘আঙুলটা আর কখনো পুরোপুরি (শতভাগ) ঠিক হবে না। কারণ, যে হাড্ডিটা ভেঙেছে সেটা নরম হাড্ডি। যেটা কখনও জোড়া লাগার সম্ভাবনা নেই।’

Related Articles

এই মিরাজ অনেক আত্মবিশ্বাসী

মিঠুনের ‘মূল চরিত্রে’ আসার তাড়না

এক নয় মাশরাফির তিন ইনজুরি

‘বিশ্ব ক্রিকেটে সম্মানজনক জায়গা আদায় করেছে বাংলাদেশ’

লিটন আউট ছিলেন নাকি নট আউট, জানেন না কোচও