আজ অস্ট্রেলিয়া যাচ্ছেন শফিউল

shafiul bdcricteam

 

Advertisment

মোঃ সিয়াম চৌধুরী

মাঝে মাঝে ক্ষতি তাহলে ‘ভালো’র কারণও হয়!

শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগে বিশ্বকাপ দল থেকে বহিষ্কৃত হয়েছেন পেসার আল-আমিন। আর সেই সুবাদে বিশ্বকাপ দলে ডাক পেয়েছেন আরেক পেসার শফিউল ইসলাম। আল-আমিনের অনাকাঙ্ক্ষিত দুঃসংবাদই খুশির খবর নিয়ে এসেছে শফিউলের জন্য।

শফিউলকে দলে নিতে সবুজ সংকেত মিলেছে আইসিসির। আজ রাতে অস্ট্রেলিয়ার উদ্দেশ্যে রওয়ানা দিবেন তিনি।

এর আগে আল-আমিনকে স্কোয়াড থেকে বহিষ্কার করা যাবে কি না- এ নিয়ে ধোঁয়াশা ছিল। কারণ আইসিসির নিয়মানুসারে, খেলতে অক্ষম না হলে টুর্নামেন্ট চলাকালীন অবস্থায় কোনো খেলোয়াড় পরিবর্তন করা যাবে না।

আল-আমিনের বিরুদ্ধে বেশ কয়েকটি অভিযোগ ছিল। প্রথম ম্যাচে দলে ছিলেন না। দ্বিতীয় ম্যাচে বল মাঠে না গড়ালেও ছিলেন না নির্ধারিত একাদশে। মানসিক দিক দিয়ে কিছুটা বিমর্ষ ছিলেন। সিনিয়র খেলোয়াড়দের সাথে নাকি বাজে ব্যবহার করেছেন ইদানীং। আল-আমিনের এমন অবস্থায় খুশি ছিলেন না কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহেও, তবুও বুঝিয়েছেন অনেক।

শুক্রবার রাত সাড়ে ১০টায় দলের সবাই যখন ঘুমে, তখন ফিরেছেন টীম হোটেলে। গোপন সূত্র এও জানিয়েছে, পানশালায় নাকি সময় কাটিয়েছেন আল-আমিন। সব মিলে আল-আমিনের আচরণ সন্দেহজনক মনে হয়েছে আইসিসির দুর্নীতি প্রতিরোধ বিষয়ক সংস্থা আকসুর। তাই বিশ্বকাপ না খেলেই দেশে ফিরতে হচ্ছে এই পেসারকে।

অভিষেকের পর বেশ চড়াই-উৎরাই পার করছেন আল-আমিন। গত বছর ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরের সময় সন্দেহ প্রকাশ করা হয় তাঁর বোলিং একশন নিয়ে, যদিও পরীক্ষা করে একশনে কোনো ত্রুটি ধরা পড়েনি। দলের নির্ভরতা হয়ে উঠছিলেন দিনদিন। চমক জাগানিয়া কিছু না করলেও পেস আক্রমণকে বেশ ধারালো রেখেছিলেন। স্লগ ওভারগুলোতে বাংলাদেশী বোলারদের চিরায়ত রান বিলিয়ে দেওয়ার প্রবণতা ছিল না এই পেসারের।

এদিকে আল-আমিনের দেশে ফিরে আসায় কপাল খুলে গেছে অভিজ্ঞ ফাস্ট বোলার শফিউল ইসলামের। বিশ্বকাপের প্রাথমিক দলে থাকলেও মূল দলে জায়গা পাননি, ছিলেন স্ট্যান্ডবাই হিসেবে। অবশেষে যাচ্ছেন অস্ট্রেলিয়ায়। ঢাকা থেকে এমিরেটস এয়ারলাইন্সের টিকেট বুকিং দিয়ে রাখা হয়েছে শফিউলের জন্য। রাত ৯টায় মেলবোর্নের উদ্দেশ্যে ঢাকা ত্যাগ করবেন ডানহাতি এই ফাস্ট বোলার।

বিশ্বকাপে বাংলাদেশকে অনেক সাফল্য এনে দিয়েছেন শফিউল। বিশেষ করে গত ২০১১ বিশ্বকাপে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে জয়ে ব্যাটে-বলে রেখেছিলেন সমান ভূমিকা। আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে ম্যাচেও কম স্কোর করা দলকে জয়ের বন্দরে পৌঁছে নিতে সাহায্য করেছিল শফিউলের বিধ্বংসী বোলিং।

গত নভেম্বরে বাংলাদেশ-জিম্বাবুয়ে সিরিজে ১টি ওয়ানডে ও ১টি ম্যাচ খেলেছিলেন, উইকেট ছিল সাকুল্যে ৪টি। তবে বেশ ধারাবাহিক ছিলেন ঘরোয়া ক্রিকেটে।

বিশ্বকাপ দলে জায়গা না পেয়ে হতাশা প্রকাশ করেছিলেন। তবে এবার নিশ্চয়ই খুশি শফিউল।