আফগানিস্তান ‘এ’ দলের খেলা দেখে অভিভূত বাশার

0
829

জাতীয় দলের আদলে গড়া বাংলাদেশ ‘এ’ দল প্রথম দুইটি একদিনের ম্যাচেই আফগানিস্তান ‘এ’ দলের কাছে পরাজিত হয়েছে। এই বাজে হারের কারণ খুঁজে পাচ্ছেন না টাইগারদের নির্বাচক হাবিবুল বাশার সুমন। তবে আফগানদের দলটাকেও কৃতিত্ব দিয়েছেন। এই দলটার এমন ধৈর্যশীল ক্রিকেট পারদর্শীতা যে তাকে অবাক করেছে তা লুকাননি।

আফগানিস্তান 'এ' দলের খেলা দেখে অভিভূত বাশার

Advertisment

৫ ম্যাচ সিরিজের প্রথম দুই ম্যাচেই বাজে ম্যাচে সিরিজ হারের শঙ্কায় বাংলাদেশ। অথচ বাংলাদেশের এই দলটার অধিকাংশ ক্রিকেটারই জাতীয় দলে খেলার অভিজ্ঞতাসম্পন্ন। এমনকি সম্প্রতি বিশ্বকাপ খেলে আসা এবং আসন্ন শ্রীলঙ্কা সিরিজের স্কোয়াডের কয়েকজন ক্রিকেটার খেলেছেন এই দুই ম্যাচে।

অপরদিকে, আফগানদের এই দলটা আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ততটা অভিজ্ঞতা সম্পন্ন নয়। কিন্তু তাদের ধৈর্যশীল ব্যাটিং বাংলাদেশের চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিয়েছে। আফগানিস্তানের মূল দলটার থেকে এ দলের অনেক পার্থক্য দেখা যাচ্ছে। যেখানে এই দলটা এগিয়ে থাকছে।

বাংলাদেশ দলের নির্বাচক সুমন বলেন, ‘এই আফগানিস্তান দলটা অন্যরকম খেলছে। দারুণ ক্রিকেটীয় ব্রান্ড, যা আমাকে অভিভূত করেছে! কারণ আফগানিস্তানের মূল দল স্লগ করে খেলে। তারা সাধারণত মেরে খেলতে চায়। বড় শট নেয়ার চেষ্টা করে বেশি। কিন্তু এই দলটা সে রকম খেলছে না। বরং প্রথাগত ক্রিকেট যদি বলি, এরা খেলছে সেটিই। একদম ভিন্ন রকম খেলছে।’

বাংলাদেশের এমন ব্যর্থতারও কোনো কূল কিনারা খুঁজে পাচ্ছেন না সাবেক টাইগার অধিনায়ক, ‘মান-সম্মানের ব্যাপার তো অবশ্যই। সেই সঙ্গে দুশ্চিন্তারও বিষয়। কারণ আমাদের চার দিনের ম্যাচের দল যদি দেখেন, প্রায় প্রত্যেকেরই কিন্তু ফার্স্ট ক্লাস ক্রিকেটে ১৫০, ২০০ ও ২৫০ রানের ইনিংস আছে। তারাই এখানে পারছে না। ওরা কেন আফগানিস্তান ‘এ’ দলের বিপক্ষে পারছে না, সেটি আমিও ভাবছি। প্রশ্নের উত্তরটি এখনো খুঁজে পাইনি।’

লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটকে জাতীয় দলের ঠিক আগের পর্যায়ের ধরা হয়। ঘরোয়া ক্রিকেটের পরীক্ষিত পারফর্মার ও জাতীয় দলের খেলার অভিজ্ঞতাসম্পন্ন ক্রিকেটাররা এখানে ভালো করতে না পারায় দুশ্চিন্তায় বাংলাদেশ। এখন আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে তাদের ভালো পারফর্ম করা নিয়ে সন্দিহান বাশারও।

তিনি আরও বলেন, ‘এটি তো প্রায় সর্বোচ্চ পর্যায়েরই ক্রিকেট। জাতীয় দলের ঠিক আগের পর্যায়ের। ঘরোয়া ক্রিকেটে ভালো করেছে বলেই ওরা এই দলে। তা এখানেই যদি ভালো খেলতে না পারে, পরবর্তী পর্যায়ে গিয়ে কীভাবে ভালো খেলবে! তারা যখন এই পর্যায়ে ভালো খেলছে না, তখন অবশ্যই এটি দুশ্চিন্তার বিষয়।’