“আমরা রুবেলের পেসটা মিস করছি”

0
973

নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজের প্রথম দুটি ম্যাচে একই একাদশ নিয়ে খেলেছে বাংলাদেশ। পেস বান্ধব উইকেটের সুবিধা কাজে লাগানোর পাশাপাশি ব্যাটিংটাকেও সামাল দিতে দুই ম্যাচেই একাদশে সুযোগ পেয়েছিলেন অলরাউন্ডার মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন। তার কারণে একাদশে জায়গা পাননি রুবেল হোসেন।

“আমরা রুবেলের পেসটা মিস করছি”
২০১৫ বিশ্বকাপে নিউজিল্যান্ডের মাটিতে ভালো করেছিলেন রুবেল। ফাইল ছবি

এই দুই ম্যাচে টাইগাররা যে ভালো করেছে তাও নয়। দুই ম্যাচেই পরাজিত হতে হয়েছে ৮ উইকেটের ব্যবধানে। অনেকেরই অভিমত, টাইগারদের একাদশে রুবেল হোসেনকে প্রয়োজন ছিল; যিনি স্কোয়াডে থেকেও জায়গা পাননি একাদশে।

Advertisment

এমনটি মনে করেন জাতীয় দলের সাবেক অধিনায়ক ও বিসিবি পরিচালক খালেদ মাহমুদ সুজনও। রবিবার (১৭ ফেব্রুয়ারি) সংবাদমাধ্যমের সাথে আলাপকালে তিনি বলেন, ‘আমার মনে হয় নিউজিল্যান্ডের ব্যাটসম্যানরা বেশি ভালো খেলছেওদের যারা বল করছে তাদের সবাই ১৪০ এ বল করছেআমাদের কিন্তু ওই জোরে করার বোলারটা নেইআমরা রুবেলের পেসটা মিস করছি।’

চোটের কারণে ওয়ানডে সিরিজে নেই সহ-অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। এই অলরাউন্ডারের ঘাটতি পূরণ করতে গিয়েই একাদশ সাজাতে হিমশিম খাচ্ছে টিম ম্যানেজমেন্ট। সুজনও মনে করেন, সাকিব না থাকায় ভারসাম্য হারিয়েছে দল।

তিনি বলেন, ‘সাকিব ফিরে আসলে টিমের ব্যালান্সটা ঠিক হয়ে যাবে। আমার মনে হয় সাকিব না থাকলে যা হয়, দলের ব্যালান্স করতে একটু কঠিন হয়।’

সাকিব একাদশে থাকা মানে একজন বাড়তি ব্যাটসম্যান অথবা একজন বাড়তি বোলার। সুজনের ভাষ্য, ‘আমাদের তো ওই মানের অলরাউন্ডার সত্যি কথা কমইতারপরও আপনি যে একজন ব্যাটসম্যান কম নিয়ে খেলবেন সেটাও একটা ঝুঁকি হয়।’

তবুও তিনি মনে করেন, বোলার হিসেবে একাদশে জায়গা পাওয়ার যোগ্যতা রাখেন রুবেল। সুজন বলেন, ‘তারপরও আমি একটা বোলারের শর্ট দেখিদেখা যাক ম্যানেজমেন্ট যেটা ভালো মনে করে সেটাই করবে।’

মাঠে গড়ানো দুই ম্যাচের দুটিই হেরে বসায় সিরিজ খুইয়েছে বাংলাদেশ। এবার হোয়াইটওয়াশ এড়ানোর চ্যালেঞ্জ। দলের এমন পারফরম্যান্সে অবশ্য হতাশ নন সুজন। ‘আমি একদম হতাশ নানিউজিল্যান্ড কন্ডিশন সবসময়ই কঠিন, উপমহাদেশের যেকোনো দলের জন্যআমি মনে করি ছেলেরা ভালো ট্র্যাকেই আছে।’ – বলেন তিনি।