SCORE

সর্বশেষ

আমারই সরি বলা উচিতঃ মাশরাফি

ক্রিকেটে স্লেজিং নতুন কিছু নয়। মাঠের ভিতর অনেক সময় দুই দলের ক্রিকেটারদের মধ্যে উত্তপ্ত বাক্য বিনময় হয়ে থাকে। এই ধরণের ঘটনা উপমহাদেশে খুব একটা না ঘটলেও অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ড ক্রিকেটারদের মধ্যে হারহামেশাই হয়ে থাকে। বাংলাদেশ ক্রিকেটে ‘স্লেজিং’ আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে না হলেও ঘরোয়া টুর্নামেন্টে হচ্ছে এমন ঘটনা।

আমারই সরি বলা উচিতঃ মাশরাফি

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ (বিপিএল) টি-টোয়েন্টির গত দুই আসরেও স্লেজিং হয়েছে। গত আসরে সাব্বির-শেহজাদের মধ্যেও উত্তপ্ত বাক্য বিনময় হয়। তাছাড়াও মাঠে হাতাহাতি করেছিলেন দলের সিনিয়র ক্রিকেটার তামিম ইকবালও। এছাড়াও রয়েছে আল-আমিন, শহীদরা ছাড়াও বেশ কিছু ঘটনা।

Also Read - 'টাইগার' মাশরাফির বর্ণিল ১৬ বছর

তবে সেগুলো তো পেছনের কথা, বিপিএলের এবারের আসরে স্লেজিং শুরু করছেন চিটাগং ভাইকিংসের পেসার শুভাশিস রয়। ভাইকিংসের গত ম্যাচেও ব্যাটসম্যানদের আউট করে বাজে ভাষা ব্যবহার করেছেন এই পেসার। লিটনদের সাথে এমন ঘটনার পরে আজ নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে স্লেজিংয়ে জড়িয়েছেন রংপুর রাইডার্সের অধিনায়ক মাশরাফি মুর্তজার সাথে।

ঘটনার সূত্রপাত রান তাড়া করতে থাকা রংপুর রাইডার্সের ইনিংসের ১৭তম ওভারের সময়। স্ট্রাইকে থাকা মাশরাফি মুর্তজাকে এক ইয়র্কার করেন শুভাশিস, সেটি ঠেকায়ও মাশরাফি। নিজের বলে ফিল্ডিং শুভাশিস নিজে ফিল্ডিং করে মাশরাফির দিকে বল থ্রো করার এইম নিলে তাকে বল করতে ফিরে যেতে ইশারা দেন মাশরাফি। আর এতে ক্ষেপে গিয়ে রীতিমত  মাশরাফির দিকে তেড়ে আসেন শুভাশিস। পরিস্থিতি ঠাণ্ডা করতে এগিয়ে আসেন ভাইকিংসের সিকান্দার রাজা ও তানভীর।

জাতীয় দলের অধিনায়কের সঙ্গে এমন ব্যবহার মোটেও ভালো চোখে দেখেননি ক্রিকেট সমর্থকরা। জাতীয় দলের এমন সম্মানীয় ক্রিকেটারের সঙ্গে এমন ব্যবহার অবাক করেছে সবাইকে। ওই ঘটনার পর ম্যাচের পরাজয়ের চেয়ে আলোচনার কেন্দ্রবিন্দু ছিল শুভাশিস-মাশরাফির মাঠের ভিতরের দৃশ্য।

ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনেও মূল আলোচ্য বিষয় ছিল সেটি। সাংবাদিকরা মাশরাফির কাছ থেকে বেশ কয়েকবার জিজ্ঞাসা করলেও সেটি প্রথমবার এড়িয়ে যান তিনি। তবে ঘুরেফিরে বারবার একই প্রশ্ন উঠে আসলে বিষয়টি নিয়ে মুখ খুলেন মাশরাফি। মাঠের এমন দৃশ্য ইতিবাচক হিসেবেই দেখছেন রংপুরের এই অধিনায়ক। উল্টো শুভাশিসকে নিজেই সরি বলা উচিত বলে মনে করেন মাশরাফি।

“ঘটনা যা ছিল, তা সিরিয়াস কিছু নয়। ম্যাচের গুরুত্বপূর্ণ সময়ে এ রকম হয়। ও আমার ছোট তাই ওই সময় আমার মাথা ঠাণ্ডা রাখলে ভালো হত। কিন্তু এমন সিরিয়াস কিছু হয়নি। আমি জানিনা ওর কি করা উচিত ছিল। কিন্তু সিনিয়র হিসেবে আমারও মাথা ঠাণ্ডা রাখলে ভাল হত।”

তিনি আরো যোগ করেন, “আমি মনে করি আমার তাকে সরি বলা উচিত। আর যেটা বললাম ম্যাচের মধ্যে এটা হয়ে যায়। অবশ্যই ওর জায়গা থেকে আমি মনে করি ঠিক আছে কারণ সেও জিততে চাইবে আমিও চাইব।”

আরো পড়ুনঃ ‘টাইগার’ মাশরাফির বর্ণিল ১৬ বছর

Related Articles

পাকিস্তানকেই এগিয়ে রাখছেন আকরাম

‘এ’ দলের দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টিতে বৃষ্টির বাধা

জুনিয়রদের দিকে তাকিয়ে নির্বাচকরা

সিরিজ জয়ের মিশনে বাংলাদেশের একাদশে পরিবর্তন

বিশ্বকাপের আগ পর্যন্ত বাংলাদেশের যত খেলা