“আমি ঠিক আছি, খেলার মধ্যে ডুবে আছি”

আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারের অভিষেক ম্যাচে খুব একটা সুবিধা করে উঠতে পারেনি ফজলে রাব্বি। ভাগ্যের পরিহাসে রানশূণ্য ভাবেই মাঠ ছাড়তে হয় তাকে।

fazle rabbi
অভিষেক ম্যাচে ‘শুন্য’ করে আউট হয়েছেন ফজলে রাব্বি। ছবিঃ বিডিক্রিকটাইম

ক্যারিয়ারের শুরুতেই এমন ধাক্কা কাটিয়ে উঠতে তাই কঠোর পরিশ্রম করছেন তিনি। মঙ্গলবার জিম্বাবুয়ের সঙ্গে দ্বিতীয় ওয়ানডের আগে চট্টগ্রামে জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে অনুশীলন করে বাংলাদেশ দল। তবে এদিন সবার চেয়ে একটু বেশি ঘামই ঝরালেন ফজলে মাহমুদ রাব্বি।

Advertisment

গত ম্যাচে বাজে পারফরম্যান্স নিয়ে অধিনায়কের কোন অভিযোগ না থাকলেও কথায় ছাড়ছে না নেটিজেনরা। তাই তাদের রোষানল থেকে বাঁচতে এবং নিজেকে কিছুটা চাপমুক্ত রাখতে নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্ট ডিএক্টিভেট করে রেখেছেন রাব্বি।

প্যাভিলিয়নের একটি প্রতিবেদনে বলা হয়, মঙ্গলবার অনুশীলন শেষে বেরিয়ে যাওয়ার সময় রাব্বি বলছিলেন, ‘বুঝলেন ভাই, ফেসবুকের অ্যাকাউন্ট আপাতত ডিঅ্যাক্টিভেট করে দিয়েছি। পরিচিত সবাই সান্ত্বনা দেওয়ার জন্য নক দিচ্ছে। আমি যতই বোঝাই, আমি ঠিক আছি, আমি হতাশ নই, সেটা কজন আর বোঝে? এখন ভালো আছি, ফেসবুক-ইনস্টাগ্রাম সবকিছু থেকে দূরে আছি। খেলার মধ্যেই ডুবে আছি।’

অন্যদিকে মঙ্গলবার সংবাদ সম্মেলনে রাব্বির পক্ষ নিয়ে কথা বলেন মাশরাফি বিন মর্তুজা। বলেন, “একজনকে, একটা ম্যাচ দিয়ে যাচাই করাটা ভুল। আপনি হয়ত বলতে পারেন, তাকে নেওয়া হলো কেন! কিন্তু নেওয়ার পর আমি মনে করি একটা ছেলেকে (রাব্বি) পর্যাপ্ত সুযোগ দেওয়া উচিৎ। কিন্তু সবার মতামতটাও খুব গুরুত্বপূর্ণ। দলকে তো একা দায়িত্ব নিয়ে খেলানো যায় না সবসময়। যে বলটায় রাব্বি আউট হয়েছে তাতে তাকে দোষ দেওয়া যায় না আর ক্রিকেট খেলায় দোষাদোষির কিছু নেই।”

তবে ঘরোয়া ক্রিকেট আর আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের মধ্যে যে আকাশ পাতাল তফাৎ সেকথাও মনে করে দিয়েছেন অধিনায়ক। সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, “মূলধারার প্রচারমাধ্যমের সঙ্গে এখন ফেসবুক-টুইটারের চাপও নতুনদের জন্য একটা বাধা, ‘একটা খেলোয়াড় যখন জানে যে টিভিতে খেলাটা দেখা হচ্ছে তখন অটোমেটিক প্রেসার চলে আসে। তারপরে হোমে খেলা হলে একটা ক্রাউড তো থাকেই। আর তো ধরেন আমাদের যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম আছেই । প্রেস আছে, টিমমেট আছে, পরিবার আছে। এগুলো তো ঘরোয়া ক্রিকেটে নেই। কেউ হয়তো খোঁজও রাখে না। এর সাথে ব্যবধান অনেক বড়। উনিশ-বিশও নয় আসলে। এমনকি ফার্স্ট ক্লাসের সঙ্গেও ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেটের ব্যবধান অনেক বড়।”

ঘরোয়া ক্রিকেটে অনেকদিন ধরেই মাঠ কাপাচ্ছেন রাব্বি। সেখানে খারাপ খেললেও তেমন চাপের মুখে পড়তে হয়নি তাকে। কিন্তু আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের নানামুখী চাপ এবার হাড়ে হাড়েই টের পাচ্ছেন তিনি।

এখন শুধু দেখা আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের এ নতুন অভিজ্ঞতা সামাল দিয়ে সমর্থকদের মনে রাখার মতো কোন পারফরম্যান্স উপহার দিতে পারেন কিনা ফজলে রাব্বি।