আশরাফুলের শতকে কলাবাগানের লড়াকু সংগ্রহ

0
1151

চলমান ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশনাল ক্রিকেট লিগের (ডিপিএল) রেলিগেশন ম্যাচে মোহাম্মদ আশরাফুলের শতকে চড়ে অগ্রণী ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাবের বিপক্ষে ২৪৬/৫ রানের লড়াকু পুঁজি পেয়েছে কলাবাগান ক্রীড়া চক্র।

ডিপিএলে আবারও আশরাফুল ঝলক।

Advertisment

সাভারে অবস্থিত বাংলাদেশ ক্রীড়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের চার নম্বর মাঠে টস জিতে আগে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা মোটেও প্রত্যাশামত হয়নি কলাবাগানের। ইনিংসের তিন নম্বর ওভারে ওপেনার ওয়ালিউল করিম, শফিউল ইসলামের বলে শাহরিয়ার নাফীসের হাতে তালুবন্দী হলে প্রথম উইকেট হারায় দলটি।

এর পরের ওভারে আরেক ওপেনার আসির ইনতেজারকে আল-আমিন হোসেন সাজঘরে ফেরালে ১২ রানে দুই উইকেটের পতন ঘটে দলটির। তৃতীয় উইকেটে জাইমুর হাসানকে সাথে নিয়ে দলের বিপর্যয় এড়াতে লড়ে যান তিন নম্বরে ব্যাট করতে আসা আশরাফুল। কিন্তু ৯ রান করে স্পিনার আব্দুর রাজ্জাকের ঘূর্ণিতে লেগ-বিফোরের ফাঁদে পড়লে ব্যর্থ হয় কলাবাগানের এ যাত্রাও।

এরপর তাইবুর রহমানের যোগ্য সঙ্গ পেয়ে চতুর্থ উইকেটে বিপর্যয় টপকে লড়াইয়ে ফিরে আসে কলাবাগান। দুজনে মিলে গড়েন ১৬৩ রানের জুটি। যার মধ্যে অর্ধশতক পূর্ণ করেন উভয় ব্যাটসম্যান। খোলস ছেড়ে ভয়ঙ্কর রুপ ধারণ করার পথে শতক থেকে ১৮ রান দূরে থাকা অবস্থায় আল-আমিনের দ্বিতীয় শিকারে তাইবুর পরিণত হলে বিচ্ছিন্ন হয় দুজনের মধ্যকার এ জুটি।

আউট হওয়ার আগে ৯৩ বল মোকাবেলায় ১০ চারে ৮২ রান করেন তাইবুর। সতীর্থ আক্ষেপ নিয়ে মাঠ ছাড়লেও, ম্যাচের হাল ধরে রাখা আশরাফুল ঠিকই তুলে নেন চলমান ডিপিএলে নিজের চতুর্থ ও সর্বোপরি লিস্ট ‘এ’ ক্যারিয়ারের অষ্টম শতক। ১৩৩ বল খেলে ৮ চার ও ২ ছয়ে শতক পূর্ণ করেন ডান-হাতি এ ব্যাটসম্যান।

শেষ পর্যন্ত তার ১০৩ রানের সাথে রিয়াদুল হুদার ১৩ বলের ঝড়ো ২৭ রানের কল্যাণে নির্ধারিত ৫০ ওভার শেষে ৫ উইকেটের বিনিময়ে স্কোরবোর্ডে ২৪৬ রান তুলতে সক্ষম হয় কলাবাগান।

প্রতিপক্ষের বোলারদের মধ্যে আল-আমিন হোসেন দুটি, সৌম্য সরকার, শফিউল ইসলাম ও আব্দুর রাজ্জাক প্রত্যেকে একটি করে উইকেট শিকার করেন।

লাইভ স্কোরকার্ড-

আরও পড়ুনঃ স্মিথ-ওয়ার্নারদের দ্বিতীয় সুযোগ দিতে বলছেন লেহম্যান