আশা জাগিয়েও ২৩-এ থামলেন সাকিব

0
1203

ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ- আইপিএলের ফাইনালে টস হেরে ব্যাট করতে নেমেছিল সানরাইজার্স হায়দরাবাদ। বলের সাথে পাল্লা দিয়ে রান আসছিল না প্রত্যাশামত। দশ ওভারের মধ্যেই দুই উইকেট হারিয়ে ভর করেছিল খানিক চাপও।

আশা জাগিয়েও ২৩-এ থামলেন সাকিব

Advertisment

তবে ব্যাট হাতে সেই চাপ দক্ষভাবেই সামাল দিয়েছেন সাকিব আল হাসান। আশা জাগিয়েছিলেন বড় একটি ইনিংসেরও। তবে ব্যক্তিগত ২৩ রানের মাথায় মিড উইকেটে ক্যাচ তুলে দিয়ে সাকিব ফিরেন সাজঘরে।

দুটি চার ও একটি ছক্কা হাঁকানো সাকিব ইনিংসে মোকাবেলা করেন মোট ১৫টি বল। ডোয়াইন ব্রাভোর ডেলিভারি তার ব্যাট ছুঁয়ে বন্দী হয় সুরেশ রায়নার হাতে।

এর আগে দলীয় ১৩ রানে উইকেটরক্ষক-ব্যাটসম্যান শ্রীভাস গোস্বামীকে হারায় হায়দরাবাদ। তবে দলকে খেই হারাতে দেননি আরেক ওপেনার শিখর ধাওয়ান ও কেন উইলিয়ামসন। অন্যদিনের মতো অবশ্য ছন্দে ছিলেন না ধাওয়ান। ২৫ বলে ২৬ রান করে সাজঘরে ফিরেন তিনি। সাকিবের মতো তিনিও হাঁকান দুটি চার ও একটি ছক্কা।

ধাওয়ানের বিদায়ের পর ক্রিজে আসেন সাকিব। অধিনায়ক উইলিয়ামসনকে নিয়ে খেলে যাচ্ছিলেন মারকুটে ভঙ্গিতে। পাঁচটি চার ও দুটি ছক্কা হাঁকানো উইলিয়ামসন ৩৬ বলে ৪৭ রান করার পর ধোনির বিচক্ষণতায় স্ট্যাম্প হারান।

সাকিব ও উইলিয়ামসন আউট হওয়ার পর দলের হাল ধরেন অভিজ্ঞ ইউসুফ পাঠান। অবশ্য তাকে দর্শক বানিয়েই সাজঘরে ফিরেন দীপক হুদা। তাতে বিচলিত হননি পাঠান, বরং হয়েছেন আরও আক্রমণাত্মক। চারটি চার ও দুটি ছক্কায় ২৫ বলে ৪৫ রানের ঝড়ো এক ইনিংস খেলে দলকে বড় পুঁজি এনে দেন তিনি। শেষদিকে তাকে যোগ্য সঙ্গ দিয়েছেন কার্লোস ব্র‍্যাথওয়েট। তিনটি ছক্কার সাহায্যে ১১ বলে ২১ রান করেন তিনি। যদিও ইনিংসের শেষ বলে বিলিয়ে দেন উইকেট।

নির্ধারিত ২০ ওভার শেষে হায়দরাবাদের সংগ্রহ দাঁড়ায় ১৭৮ রান, ৬ উইকেট হারিয়ে। শিরোপা জয়ের জন্য এই রান-বাধা টপকাতে হবে চেন্নাই সুপার কিংসকে। শেষপর্যন্ত কে জিতে শিরোপা, তা জানতে এখন ক্রিকেটপ্রেমীদের চোখ মুম্বাইয়ের ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামে।

আরও পড়ুনঃ ওয়ালশও দেখভাল করছেন রিয়াদদের ব্যাটিং