ইংল্যান্ড যুব দলে আরপি সিংয়ের ছেলে

ভারতের ক্রিকেটে রুদ্র প্রতাপ সিং আছেন দুজন। বর্তমান প্রজন্ম মূলত চেনে ২০০৭ সালে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ জেতা আরপি সিংকে। তবে ইংল্যান্ড অনূর্ধ্ব-১৯ দলে ডাক পেয়ে আলোচনায় আসা হ্যারির বাবা ভারতের হয়ে খেলেছেন আশির দশকে।

ইংল্যান্ড যুব দলে আরপি সিংয়ের ছেলে

বিডিক্রিকটাইম স্টাফ
বিডিক্রিকটাইম রিপোর্ট

প্রকাশিত হয়েছে -

আপডেট হয়েছে -

বাবা প্রতিনিধিত্ব করেছেন এক দেশকে, ছেলে খেলবেন আরেক দেশের হয়ে। ভারতের সাবেক ক্রিকেটার রুদ্র প্রতাপ সিং সিনিয়রের ছেলে এবার মাঠ মাতাবেন ইংল্যান্ডের জার্সিতে। আশির দশকে ভারতের হয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলা এই ক্রিকেটারের ছেলে হ্যারি সুযোগ পেয়েছেন ইংল্যান্ডের অনূর্ধ্ব-১৯ দলে।
আরপি সিং সিনিয়রের ছেলে হ্যারি। ফাইল ছবি
হ্যারি মূলত খেলেন ল্যাঙ্কাশায়ারের দ্বিতীয় দলের হয়ে। সেখানে ওপেনারের ভূমিকায় দেখিয়েছেন মুন্সিয়ানা। তার পারফরম্যান্স দেখে মন গলে যায় নির্বাচকদের। হ্যারিকে তাই ডাকা হয়েছে শ্রীলঙ্কা অনূর্ধ্ব-১৯ দলের বিপক্ষে ভারত ইংল্যান্ড-১৯ দলের দ্বিপাক্ষিক সিরিজের স্কোয়াডে।
রুদ্র প্রতাপ জানান, ‘ইংল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ড থেকে কিছু দিন আগে আমরা একটা ফোন পাই। সেখানে বলা হয় ইংল্যান্ডের যে অনূর্ধ্ব-১৯ দল শ্রীলঙ্কার অনূর্ধ্ব-১৯ দলের বিরুদ্ধে খেলবে, সেই দলে নেওয়া হয়েছে হ্যারিকে।’
ইংল্যান্ডের জার্সি গায়ে জড়ানোই আপাতত বড় অর্জন হ্যারির জন্য। তবে মূল দলে জায়গা করে নেওয়া যে সহজ হবে না, রুদ্র প্রতাপ তা ভালো করেই জানেন। তিনি বলেন, ‘এটা মোটেও সহজ হবে না। প্রচুর রান করতে হবে। অনেক ক্রিকেটারকে দেখেছি ঘরোয়া ক্রিকেটে ভালো খেলে, কিন্তু আসল সময় ব্যর্থ হয়। হ্যারিকে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে সফল হয়ে দেখাতে হবে।’
রুদ্র প্রতাপের গোটা পরিবারই ক্রিকেটের সাথে জড়িয়ে। ১৯৮৬ সালে ভারতের হয়ে দুটি একদিনের আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলেছিলেন। এছাড়া খেলেছেন ৫৯টি প্রথম শ্রেণির ম্যাচ ও ২১টি লিস্ট ‘এ’ ক্যাটাগরির ম্যাচ। ৫৭ বছর বয়সী এই ক্রিকেট ব্যক্তিত্বের মেয়েও ক্রিকেট খেলতেন। যদিও পরবর্তীতে লাইফ সাইন্স নিয়ে পড়াশোনায় মনোযোগী হন।
ভারতের সাবেক ক্রিকেটার আরপি সিং সিনিয়র
তার আগে তিনিও খেলেছেন ল্যাঙ্কাশায়ার অনূর্ধ্ব-১৯ দলের হয়ে। ছেলে হ্যারি ৮ বছর বয়সে খেলাধুলায় মনোনিবেশ করেন। ফুটবলও ভালো খেলতেন, তবে শেষমেশ থিতু হয়েছেন ক্রিকেটে। সব ধরনের উইকেটে খেলার দক্ষতা অর্জন করতে হ্যারিকে ভারতের মুম্বাইয়ে দিলিপ ভেংসরকারের একাডেমিতে পাঠানোর পরিকল্পনাও চলছে।
হ্যারি দারুণ ব্যাটিংয়ের পাশাপাশি অফ স্পিন বোলিংও করতে পারেন। যদিও আগ্রহী ছিলেন ফাস্ট বোলিংয়ে, ঠিক বাবার মত। তবে ব্যাটিংয়ে মনোযোগ দিতে গিয়ে একসময় আর পেস বোলিং প্র্যাকটিসের সময় বের করতে পারেননি।
আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ার দীর্ঘায়িত হয়নি বলে রুদ্র প্রতাপ সিং ইংল্যান্ডে চলে যান। সেখানে একটি কোচিং কোর্স করে ক্লাব ক্রিকেটে কোচিং করানো শুরু করেন। তার ছেলে-মেয়ে দুজনই ইংল্যান্ডে বড় হয়েছেন।
উল্লেখ্য, ভারতের ক্রিকেটে রুদ্র প্রতাপ সিং আছেন দুজন। বর্তমান প্রজন্ম মূলত চেনে ২০০৭ সালে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ জেতা আরপি সিংকে। তবে ইংল্যান্ড অনূর্ধ্ব-১৯ দলে ডাক পেয়ে আলোচনায় আসা হ্যারির বাবা ভারতের হয়ে খেলেছেন আশির দশকে।
বাংলাদেশের ক্রিকেটসহ আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের সব ধরনের খবর সবার আগে পেতে এখানে ক্লিক করে সাবস্ক্রাইব করুন BDCricTime Videos চ্যানেলটি।
বল বাই বল লাইভ স্কোর পেতে আর নয় বিদেশি অ্যাপ। বাংলাদেশ ক্রিকেটের সাম্প্রতিক খবর এবং বল বাই বল লাইভ স্কোর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে BDCricTime সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান ক্রিকেট অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।
সম্পর্কিত খবর