ইঞ্জুরি ‘কপালের ওপর’ ছেড়ে দিয়েছেন সাইফউদ্দিন

0
251

ক্যারিয়ারের শুরু থেকেই চোটের সাথে সখ্যতা হয়ে গিয়েছে তরুণ অলরাউন্ডার সাইফউদ্দিনের। নিয়মনীতি মেনে চলার পরও একেরপর এক চোটে পড়ায় ভাগ্যকে মেনে নিয়ে সাবেক অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজাকে দেখে সাহস সঞ্চয় করেন তিনি।

ইঞ্জুরি 'কপালের ওপর' ছেড়ে দিয়েছেন সাইফউদ্দিন

Advertisment

বাংলাদেশের সীমিত ওভারের একাদশে সাইফউদ্দিন থাকবেন এমনটা এখন সবাই নিশ্চিত ধরে নেন। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সিরিজের প্রথম দুই ওয়ানডে ম্যাচেই সাইফউদ্দিনকে একাদশে না দেখে প্রশ্ন ছিল তিনি কেন দলে নেই। শেষ ওয়ানডের পরে অধিনায়ক তামিম ইকবাল জানান শতভাগ ফিট না থাকায় প্রথম দুই ম্যাচে খেলতে পারেননি এই অলরাউন্ডার। তবে তিনি সবসময়ই একাদশের প্রথম পছন্দ।

প্রথম দুই ম্যাচে সুযোগ না পেলেও শেষ ম্যাচে সুযোগ পেয়ে ৩টি উইকেট শিকার করেন সাইফউদ্দিন। নিজের পারফর্মকে তিনি ভালোই দেখছেন। তবে আরও ভালো করার তাড়না কাজ করছে তার মধ্যে। বিডিক্রিকটাইমকে দেওয়া একান্ত সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন,

‘প্রথম দুই ম্যাচে খেলতে না পারায় সাইডবেঞ্চে বসে খারাপ লাগছিল। বাইরে যাওয়ার আগে যদি কিছু নিয়ে যেতে না পারি তাহলে খারাপ লাগতো। শেষ ম্যাচে আমাকে সুযোগ দেওয়ার জন্য টিম ম্যানেজমেন্টকে ধন্যবাদ। তিনটি উইকেট পেয়েছি, ভালোই করেছি যদিও ইকোনমিক রেট একটু বেশি ছিল। আরও ভালো করতে পারতাম। ভালোর তো কোনো শেষ নেই।’

চলতি বছরে বাংলাদেশের অনেক সিরিজ আছে। তাছাড়া টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ ও এশিয়া কাপের মতো টুর্নামেন্টও এই বছরে। ব্যস্ত সূচির মধ্যে নিজেকে ফিট রাখতে স্কিল ও ফিটনেস প্রশিক্ষণে নিজেকে ব্যস্ত রাখবেন চোটের সাথে সখ্যতা গড়ে ওঠা এই ক্রিকেটার। তিনি বলেন,

‘২০২১ সালে আমাদের সূচি ঠাসা। ফেনিতে যাচ্ছি ছুটিতে, তিন-চারদিন ছুটি কাটিয়েই ঢাকা ফিরব। যতটা পারা যায় স্কিল, ফিটনেস নিয়ে কাজ করব। চেষ্টা করছি যতটা রুটিনমাফিক জীবনযাপন করা যায়। তারপরও ইঞ্জুরি হচ্ছে, এটা আসলে কপালের ওপর ছেড়ে দেওয়া ছাড়া কিছু করার নেই। সবসময় চেষ্টা করি যতটা ফিট থেকে, শৃঙ্খল থেকে চলা যায়, ক্রিকেট খেলা যায়।’

একাধিক চোট পাওয়ার পরে মাশরাফিকে সাহস পান বলে জানান সাইফউদ্দিন, ‘আমাদের মাশরাফি ভাই আছেন বাংলাদেশেই; উনি আমাদের অনুপ্রেরণা হতে পারেন ইঞ্জুরি নিয়েই অনেক বছর উনি জাতীয় দলে খেলেছেন। এই বিষয়গুলো ভালো লাগে, যখন এগুলো ভাবি।’