ইমরান-গাঙ্গুলীদের পথেই হাঁটছেন মাশরাফি

২০১৪ সালটি বাংলাদেশ ক্রিকেটের জন্য একটি অভিশপ্ত বছর। মাঠের ভিতর বাহিরে কোন দিক দিয়েই যেন ভালো সময় যাচ্ছিলোনা বাংলাদেশ ক্রিকেটের। অভিশাপের যাত্রাটা শুরু হয় শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজ দিয়েই। তারপর একেক করে এশিয়া কাপ ও টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপেও নিজেদের ছন্দ খুঁজে পায়নি বাংলাদেশ ক্রিকেট দল।

i copy

Advertisment

এশিয়া কাপ চলাকালীন বাজে ব্যাবহার প্রদর্শনীর কারণে কয়েক ম্যাচের জন্য বহিষ্কৃত ছিলেন বিশ্ব সেরা অল রাউন্ডার সাকিব আল হাসান। তারপরেই ঘরের মাটিতে ভারতের দ্বিতীয় সারির দলের সঙ্গে সিরিজ পরাজয়ের কালো দাগতো রয়েছে সঙ্গে যোগ হয়েছিলো ৫৮ রানে অল আউট হওয়ার কলঙ্কটাও। দলের এই টানা ব্যর্থতা যখন বাংলাদেশ ক্রিকেটকে আরো পেছনের দিক নিয়ে যাচ্ছে ঠিক তখনই মাথার উপর আলো খুঁজে পায় বাংলাদেশ ক্রিকেট দল।

২০১৪ সালের শেষের দিকে তৎকালীন অধিনায়ক মুশফিকুর রহিমকে ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি ফরম্যাট থেকে হটিয়ে দায়িত্ব দেওয়া হয় মাশরাফি বিন মোর্তাজাকে। তারপর থেকেই আবারো সোনালি অধ্যায় শুরু হয় বাংলাদেশ ক্রিকেটের। একেক করে বিশ্বকাপে কোয়াটার ফাইনাল, পাকিস্তান বধ, ভারত বধ ও দক্ষিণ আফ্রিকাকে হারানোর স্বাদ পায় বাংলাদেশ।

মাশরাফির অধিনায়কত্বে মুগ্ধ পাকিস্তানের সাবেক খেলোয়াড় আকিব জাভেদ। সপ্তাহ খানিকের জন্য এইচপি ক্যাম্পে কাজ করতে বাংলাদেশে এসেছিলেন তিনি। শুধু তরুণদের সঙ্গেই কাজ করেননি, জাতীয় দলের বোলারদের নিয়েও কাজ করেছেন আকিব জাভেদ। আর সেখানেই সাক্ষাৎ পেয়েছিলেন মাশরাফির। তিনি জানান মাশরাফি ইমরান খান ও গাঙ্গুলীদের পথেই হাঁটছেন।

“মাশরাফির অধীনে অনেক সফলতা পেয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। সে পুরো দলটাকেই বদলে দিয়েছে যেমনটা করেছিল ইমরান খান ও সৌরভ গাঙ্গুলী। সবে তো পথযাত্রা শুরু। সাফল্যের এই ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে পারলে সে ওদের মতনই ব্যক্তিত্বের অধিকারী হয়ে উঠবে।”

-আফরিদ মাহমুদ রিফাত, প্রতিবেদক, বিডিক্রিকটিম ডট কম