SCORE

উইন্ডিজ সফরের আগেই নতুন কোচ

চন্ডিকা হাথুরুসিংহে যাওয়ার পর প্রথমে খালেদ মাহমুদ সুজন ও পরে বাংলাদেশ দলের দায়িত্ব নেন কোর্টনি ওয়ালশ। বাংলাদেশ দল কবে পাবে নতুন কোচ? এই প্রশ্ন অনেকদিন ধরেই ঘুরপাক খাচ্ছে ক্রিকেটাঙ্গনে। নতুন কোচ নিয়োগ দেওয়ার বিষয়ে এখনো পরিষ্কার কোনো তথ্য দিতে পারছে না বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড। রোববার বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের পরামর্শক হয়ে ঢাকায় এসেছেন গ্যারি কারস্টেন। তিনি বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের ইন্টারনাল অডিটর হিসেবে কাজ করবেন। টিম পর্যালোচনার পাশাপাশি যথাপোযুক্ত কোচ পেতেও কাজ করবেন তিনি।

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের প্রধান নির্বাহি কর্মকর্তা নিজামউদ্দিন চৌধুরি

আজ সোমবার মিরপুরে কবে নাগাদ কোচ পেতে পারে বাংলাদেশ সে বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা নিজামউদ্দিন চৌধুরী সুজন বলেন, ‘আমাদের লক্ষ্য হল ওয়েস্ট ইন্ডিজ ট্যুরের আগে এই প্রক্রিয়া শেষ করা। এরপর কাজের প্রক্রিয়া বা পরিস্থিতি অনুসারে আমরা পরবর্তী সিদ্ধান্ত নিব। আমাদের কাছে যে নামগুলো আছে, তা আমরা তার (গ্যারি) কাছে পাঠিয়েছি। উনি বাংলাদেশে এসে কাজ করছেন, এ জন্য হয়তো মনে হচ্ছে উনি এখন কাজ করছেন। উনি কিন্তু ভারতে থাকতেও কাজ করেছেন। আমরা যে সব নাম তার কাছে পাঠিয়েছিলাম তাদের সঙ্গে উনি যোগাযোগ করছেন। উনার নিজের তালিকায় থাকা কোচদের সঙ্গেও তিনি আলোচনা করছেন।’

Also Read - পরামর্শকই কারস্টেনের ভূমিকা

গ্যারি কারস্টেনের সঙ্গে বিসিবির চুক্তির বিষয়ে সুজন বলেন, ‘আসলে গ্যারি কারস্টেন আপাতত বাংলাদেশ দলের একটি ‘ইন্টারনাল অডিট’ করছেন। সামনে আইসিসির যে সব কম্পিটিশন আছে (আইসিসি বিশ্বকাপ, ওয়ার্ল্ড টি-টোয়েন্টি) এগুলো সামনে রেখে কিভাবে বাংলাদেশ দলকে উন্নত করা যায়, কোন কোন জায়গায় কাজ করতে হবে, এই বিষয়গুলো পর্যালোচনা করছেন। তিনি বোর্ডকে এ বিষয়ে প্রতিবেদন দিবেন। একই সাথে কোচ নিয়োগ নিয়েও তিনি কাজ করছেন। আমরা ইতোমধ্যে কয়েকজন কোচের নাম দিয়ে সংক্ষিপ্ত তালিকা করেছি, গ্যারি কারস্টেনের কাছেও কিছু নাম আছে। আপাতত দলের পরিস্থিতি পর্যালোচনার পর তিনি হয়তো তার পরামর্শ আমাদের দিবেন যে, কোন এরিয়াতে আমাদের বেশি কাজ করতে হবে এবং এরপর তিনি বলবেন কোন কোচ আমাদের জন্য বেশি কার্যকর হবেন।’

তবে কোচ নিয়োগের চেয়েও বিসিবি বেশি গুরুত্ব দিচ্ছে টিম পর্যালোচনার উপর। কারস্টেনও তাই করছেন। সুজন বলেন, ‘টিম পর্যালোচনাটা আমাদের কাছে বেশি গুরুত্বপূর্ণ। উনি ইন্টারনাল অডিট করছেন, এতে আলাদা প্রত্যেক খেলোয়াড়ের সঙ্গে উনি বসার চেষ্টা করছেন। আজ মাশরাফি, মুশফিক ও তামিমের সঙ্গে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলাপ করেছেন। এ ছাড়া জাতীয় দলের সঙ্গে সম্পৃক্ত কর্মকর্তাদের সঙ্গেও উনি বসবেন। বিশেষ করে দল নির্বাচক, বোর্ড পরিচালকদের সঙ্গে আলাদা আলাদাভাবে বসার পরিকল্পনাও তার রয়েছে। সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ যে বিষয়টি আপনাদের জানাতে চাচ্ছি যে, উনি খুব স্বাধীনভাবে কাজ করতে চাচ্ছেন এবং সেভাবেই তিনি কাজ করছেন। উনাকে শুধুমাত্র আমরা লজিস্টিক সাপোর্ট দিচ্ছি। উনার যার সাথে প্রয়োজন, তার সাথে যোগাযোগ করে তিনি নিজেই মিটিং টাইম ঠিক করে নিচ্ছেন।’

কারস্টেনকে দীর্ঘমেয়াদে নিয়োগ দিতে চেয়েছিল বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড। কিন্তু তিনি প্রথমে দীর্ঘমেয়াদে নিয়োগের ক্ষেত্রে রাজি হলেও এখন আসন্ন বিশ্বকাপ পর্যন্ত কাজ করবেন। পাশাপাশি বাংলাদেশ দলের কোচ নিয়োগ পর্যন্তও আছেন তিনি।

আরো পড়ুনঃ নিজে হারলেও মুম্বাইয়ের পরাজয়ে প্রীত প্রীতি!

Related Articles

উইন্ডিজ সিরিজে থাকবেন মুস্তাফিজ?

লর্ডসে ভালো করতে চান তামিম

তিন বছর পর ডাক পেলেন ডেভন স্মিথ

গুলিতে প্রাণ হারালেন ধনঞ্জয়া ডি সিলভার বাবা

বাংলাদেশের বিপক্ষে মুশতাক আহমেদ