Scores

উত্তেজনার ম্যাচে রংপুরের জয়

চট্টগ্রামে রংপুর রাইডার্স ও বরিশাল বুলসের উত্তেজনার ম্যাচে ১২ রানে জিতেছে রংপুর রাইডার্স। বরিশাল বুলস আশা জাগালেও শেষ হাসি হেসে মাঠ ছাড়ে রংপুর। শেষ ওভারে গিয়ে মীমাংসা হয় ম্যাচের।

 

অর্ধশতক হাঁকানোর পর মিথুন।
অর্ধশতক হাঁকানোর পর মিথুন।

দুই ওপেনার মোহাম্মদ শাহজাদ আর সৌম্য সরকার জুটি গড়েন ২১ রানের। ব্যাট হাতে সৌম্য সরকারকে বেশ আত্মবিশ্বাসের সাথেই খেলছিলেন দারুণ সব শট। দ্বিতীয় ওভারেই আল-আমিন হোসেনের বলে টানা তিন বলে তিন চার হাঁকান তিনি। তবে পরের ওভারেই তাইজুল ইসলামের বলে আউট হন সৌম্য। ৯ বলে ১৪ রান করে স্টাম্পিং হন তিনি। তারপর হাল ধরেন মোহাম্মদ মিথুন।

Also Read - নিউ জিল্যান্ড যাচ্ছেন নাফিস-নাসির-মারুফ?


দারুণ খেলতে থাকেন মিথুন। মিথুনের ব্যাটে এগিয়ে যায় রংপুর রাইডার্স। তবে তাকে সঙ্গ দিতে ব্যর্থ হন ওপেনার মোহাম্মদ শাহজাদ। তাইজুল ইসলামের বলে কাট করতে গিয়ে ধরা পরেন শাহরিয়ার নাফিসের হাতে। তবে মোহাম্মদ মিথুন চার-ছক্কা হাঁকানো চালিয়ে যান। লেগ স্টাম্পের বল পেলেই আগ্রাসী হয়ে উঠছিলেন তিনি। তাকে দারুণ সঙ্গ দেন লিয়াম ডসন। মিথুনের ব্যাটে বড় স্কোরের স্বপ্ন দেখে রংপুর রাইডার্স। মিথুন-ডসনের ৭৮ রানের জুটি ভাঙেন থিসারা পেরেরা। দলীয় ১২৪ রানের মাথায় পেরেরার বলে বড় শট খেলতে যান মিথুন কিন্তু ব্যাটে বলে না হওয়ায় বোল্ড হতে হয়।

তারপর ডসনকে নিয়ে ঝড় তুলেন শহীদ আফ্রিদি। পেরেরার বলে ডিপ মিড উইকেট দিয়ে ছক্কা মেরে শুরু হয় তার ঝড়। তবে সেই ঝড় বেশি দীর্ঘায়িত না হলেও রংপুর রাইডার্সের রান বাড়িয়ে দেয় অনেকটা। ১০ বলে ২২ রান করে পেরেরার বলেই বিদায় নেন তিনি। এমরিটের বলে আউট হওয়ার আগে ৩৬ বলে ৪৮ করেন ডসন।

শেষদিকে সেনানায়েকে ৭ রান যোগ করেন। ২ রান করে অপরাজিত থাকেন জিয়াউর রহমান আর সোহাগ গাজী। দুইটি করে উইকেট শিকার করেন তাইজুল ইসলাম ও থিসারা পেরেরা।

বরিশাল বুলসের লক্ষ্য দাঁড়ায় ১৭৬ রান। তবে শাহরিয়ার নাফিস ও মুশফিকুর রহিমদের মতো ব্যাটসম্যান থাকায় আশা জেগেছিলো দলটির। তবে ব্যাট হাতে এদের কেউ দৃঢ়তা দেখাতে পারেননি।

শুরুতেই ধাক্কা খায় বরিশাল। ইনিংসের প্রথম বলেই বিদায় নেন ওপেনার দিলশান মুনাবিরা। গাজির বল মুনাবিরার গ্লাভস স্পর্শ করে জমা পড়ে উইকেটরক্ষক শাহজাদের হাতে।

শাহরিয়ার নাফিস ইঙ্গিত দেন বড় ইনিংসের। সেনানায়েকের ওভারের শেষ দুই বলে চার ও ছক্কা হাঁকান তিনি। তবে পরের ওভারে গাজীর দ্বিতীয় শিকারে পরিণত হন তিনি। ফ্রন্টফুটে ডিফেন্স করতে গিয়ে বল মিস হয় নাফিসের। আর সেই সুযোগ দারুণভাবে কাজে লাগিয়ে নাফিসকে স্টাম্পিং করেন শাহজাদ। ১২ রান করে আউট হন দুর্দান্ত ফর্মে থাকা নাফিস।

জীবন মেন্ডিস ও মুশফিকুর রহিম ৩০ রান যোগ করেন। অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম বড় ইনিংস গড়তে  পারেননি। ডসনের বলে সুইপ খেলতে যান মুশফিক। কিন্তু ব্যাটে বলে হয়নি। মুশফিকের পা ক্রিজের সামান্য বাইরে ছিলো। অসাধারণভাবে স্টাম্পিং করেন শাহজাদ।

অধিনায়ককে হারিয়ে বিপদে পড়ে বরিশাল বুলস। তবে লড়াই চালিয়ে যান মেন্ডিস ও নাদিফ। দুজনে মিলে রানের চাকা সচল রাখলেও ম্যাচ রংপুরের দিকেই হেলে ছিলো। তবে ১৪ তম ওভারেই বেড়ে যায় উত্তেজনা। এক ওভারে ২৪ রান নেন নাদিফ। সেনানায়েকের করা ঐ ওভারে তিনটি ছক্কা হাঁকান তিনি। পরের ওভারে রুবেলকে উড়িয়ে মারতে গিয়ে আউট হতে পারতেন মেন্ডিস তবে ক্যাচ হাতছাড়া করেন আরাফাত সানি। ঐ ওভারেই মিড উইকেটের উপর দিয়ে ছক্কা হাঁকিয়ে বরিশালের আশা জিইয়ে রাখে জীবন মেন্ডিস।

শেষ পাঁচ ওভারে বরিশালের চাই ৫৫ রান। বোলিংয়ে এসে মাত্র ৩ রান দিয়ে নাদিফ চৌধুরিকে ফেরান আফ্রিদি। পরের ওভারে ১০ রান এলেও বরিশালের জন্য জয়ের পথ দুর্গম হয়ে যায়। ১৮তম ওভারে আরও ১৩ রান এলে কিছুটা আশা বেঁচে থাকে বরিশালের। পরের ওভারের প্রথম বলে এমরিট ছক্কা হাঁকিয়ে খেলায় উত্তেজনা আনেন।

ঐ ওভারে টানা দুই বলে এমরিট ও আবু হায়দারকে ফেরান রুবেল। এতে করে ছিটকে যায় বরিশাল বুলস। শেষ ওভারে ২০ রান দরকার ছিলো তাদের, হাতে ৩ উইকেট। প্রথম বলেই রান আউট হন কামরুল ইসলাম রাব্বি। তাইজুল ইসলাম ব্যাটিংয়ে নেমেই ছক্কা মেরে বরিশালকে খেলায় টিকিয়ে রাখেন। কিন্তু পরের বলে আবারও এগিয়ে এসে মারতে গিয়ে স্টাম্পিং হন তাইজুল। পরের বলে আল-আমিন হোসেনকে আরাফাত সানি দুর্দান্ত ভাবে রান আউট করে বরিশালের কফিনে শেষ পেরেক ঠুকে দেন।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ রংপুর রাইডার্স ১৭৫/৬, ২০ ওভার
মিথুন ৬২, ডসন ৪৬, আফ্রিদি ২২
তাইজুল ২৭/২, পেরেরা ৩১/২

বরিশাল বুলস ১৬৩/১০
জীবন মেন্ডিস ৫৭, নাদিফ ৪১, পেরেরা ১৭*
গাজী ১৯/৩, আফ্রিদি ৩১/২

ম্যাচসেরাঃ মোহাম্মদ মিথুন

-আজমল তানজীম সাকির, প্রতিবেদক, বিডিক্রিকটিম ডট কম

 

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Related Articles

ডু প্লেসিকে বিপিএলে আমন্ত্রণ জানালেন তামিম

রাসেলের বিপক্ষে যেভাবে সফল মাশরাফি

বঙ্গবন্ধু বিপিএল : শেষ চারের সমীকরণ

বদলি হিসেবে নেমে জাকেরের রেকর্ড

নাসুমকে বিশ্বমানের ক্রিকেটার বললেন নিক্সন