উপমহাদেশেও ডিউক বল চান কোহলি

পেস বান্ধব কন্ডিশনে ডিউক বল ব্যবহার করা হলেও উপমহাদেশের টেস্ট ম্যাচগুলোতে সাধারণত এসজি বলই ব্যবহার করা হয়। দীর্ঘদিন ধরে চলে আসা এই ‘প্রচলন’ এবার বিরক্তি উদ্রেক করেছে ভারতীয় অধিনায়ক বিরাট কোহলির। তার মতে, ইউরোপ-অস্ট্রেলিয়া-আফ্রিকার মত এশিয়া অঞ্চলেও টেস্ট ম্যাচগুলোতে ডিউক বলের ব্যবহার করা উচিত।

প্রযুক্তির নেতিবাচক দিক তুলে ধরলেন কোহলি

কোহলির মতে, এসজি বল খুব দ্রুতই ক্ষয়ে যায়। বর্তমানে যেসব এসজি বল ব্যবহৃত হচ্ছে সেগুলোর মানও আগের মত রক্ষিত হয়নি বলে দাবি তার।

হায়দরাবাদ টেস্টের আগে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে কোহলি বলেন, আমি নিশ্চয়ই এমন কোনো বল ব্যবহার করতে চাই না যেটি মাত্র পাঁচ ওভারেই তার চকচকে ভাব হারায়বর্তমানে ব্যবহৃত এসজি বলগুলোর গুণগত মান আগে অনেক ভালো ছিলকিন্তু এখন কেনো যেনো মান পড়ে গেছেঅন্য দিকে ডিউক বল এখনও দিব্যি চলছেকুকাবুরা বলে সমস্যা থাকলেও তারা কখনো মান নিয়ে আপোষ করেনি

Also Read - “এমন আনন্দে বাড়িতে কখনও ফেরা হয়নি”

তাও কোহলির ভাষ্য, টেস্ট ক্রিকেটের জন্য ডিউক বলই সবচেয়ে ভালো। এমনটিও বলেছেন- সুযোগ পেলে তিনি বিশ্বের সবধরনের ক্রিকেটেই ঘটাতেন ডিউক বলের প্রচলন!

কোহলি বলেন, আমার মতে ডিউক বলটাই টেস্ট ক্রিকেটের জন্য সেরা বলআমার হাতে সুযোগ ও তেমন পরিস্থিতি থাকলে আমি সারা বিশ্বের সবধরনের ক্রিকেটের জন্য ডিউক বলের প্রচলন ঘটাতামসব জায়গায় একই বল ব্যবহার করা হলে বোলাররাও সুবিধা পেতে পারতো

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট অঙ্গনে ভারতের প্রভাব অবশ্য কম নয়। তাছাড়া ভারতীয় অধিনায়ক নিজ বোর্ডের উপরও রাখেন গুরুত্বপূর্ণ প্রভাব। কোহলির আহ্বান মেনে আইসিসি কিংবা বোর্ডগুলোর সমন্বিত সিদ্ধান্ত যদি টেস্টে বা সবধরনের ক্রিকেটে ডিউক বলের প্রচলনের ব্যবস্থা করেও ফেলে, অবাক হওয়ার কিছু থাকবে না! এতে অবশ্য হারিয়ে যাবে ইতিহাসের আলো হয়ে টিকে থাকা এসজি বল!

আরও পড়ুন: এটা কোন জয় বলে মনে হচ্ছে না : পেইন

Related Articles

মান বাঁচানোর ইনিংস দিয়েই জাত চেনালেন ইমরুল

ইমরুলের বীরত্বে বাংলাদেশের লড়াকু সংগ্রহ

লিটন ও রাব্বিকে হারানোর পর লড়ছেন ইমরুল-মুশফিক

২০২৩ বিশ্বকাপেও অংশ নেবে ১০টি দল

পরাজয়ের বৃত্তে বন্দী থেকে শ্রীলঙ্কার সিরিজ হার