উমরান মালিকের গতি ‘মূল্যহীন’, দাবি রবি শাস্ত্রীর

আইপিএলে নিয়মিত গতির ঝড় তুলছেন উমরান মালিক। জম্মু-কাশ্মীরের এই পেসার প্রায় প্রতি ম্যাচেই পাচ্ছেন দ্রুততম ডেলিভারির পুরস্কার। আইপিএলের ইতিহাসের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ গতিময় বলটাও করেছেন গত সপ্তাহে। অথচ এত মাতামাতি হওয়া বোলারের গতি পছন্দ হচ্ছে না রবি শাস্ত্রীর।

আমি নিজেই নিজের আইডল উমরান মালিক
২২ বছর বয়সী পেসার খুব দ্রুত গতিতে বল করতে পারেন।

ভারতের সাবেক কোচ মনে করেন, উমরানের বলে গতি থাকলেও তার লাইন-লেন্থ এখনও বড় মঞ্চে জায়গা পাওয়ার মত নয়। তাই অনেকে উমরানকে ভারতের জাতীয় দল বিশেষত বিশ্বকাপ দলে দেখতে চাইলেও শাস্ত্রী এখানে সম্মতি জানাতে নারাজ।

Advertisment

তিনি বলেন, ‘উমরান সঠিক জায়গায় বল ফেলতে না পারলে ব্যাটার দ্বিগুণ গতিতে সেই বল বাউন্ডারিতে পাঠাবে। ও হয়ত খুব দ্রুত ভারতের হয়ে খেলবে। তবে ১৫৬ গতিতে বল করে লাইন ঠিক না থাকলে ব্যাটার ২৫৬ গতিতে মারবে। ওর গতি অবশ্যই দুর্দান্ত। কিন্তু ওকে মাথায় রাখতে হবে কোথায় বল ফেললে সেটা কার্যকরী হবে। শুধু গতি দিয়ে ব্যাটারদের চমকে দেওয়া সম্ভব নয়। ওকে বোলিং নিয়ে ভাবনা চিন্তা করতে হবে।’

আইপিএলে চমক দেখিয়েই বিশ্বকাপের 'নেট বোলার' উমরান
উমরান মালিক। ফাইল ছবি

উমরানের লাইন-লেন্থ নিয়ে তেমন কথা না উঠলেও শাস্ত্রী মনে করেন, শুধু গতির পেছনে ছুটতে থাকলে উমরান নিছক সময়ের অপচয় করছেন। তার ভাষায়, ‘বিষয়টা যদি তোমার ঠিক মনে না হয়, তাহলে তুমি শুধুই সময় নষ্ট করছ। বড় সময় নষ্ট করে ফেলছ। তোমার বল ব্যাটে লাগার পর ২৫০ থেকে ৩০০ কিলোমিটার প্রতি ঘণ্টা গতিতে ছুটবে। টুর্নামেন্ট যত এগোবে উইকেটগুলো তত মন্থর হবে এবং ব্যাটিং সহায়ক হয়ে উঠবে। তাই সঠিক জায়গায় বল ফেলাটা গুরুত্বপূর্ণ।’

শাস্ত্রী মনে করেন, টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে গতিময় বোলিং এত গুরুত্বপূর্ণ নয়। তার দাবি, ‘২০ ওভারের ক্রিকেটে গতির কোনো গুরুত্ব আছে বলে আমার মনে হয় না।’

বল বাই বল লাইভ স্কোর পেতে আর নয় বিদেশি অ্যাপ। বাংলাদেশ ক্রিকেটের সাম্প্রতিক খবর এবং বল বাই বল লাইভ স্কোর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে BDCricTime সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান ক্রিকেট অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।