Scores

এই জুয়াড়ির সন্ধানে আইসিসি

আন্তর্জাতিক ম্যাচে জুয়াড়িদের সংখ্যা বাড়াতে বেশ উদ্বিগ্ন আন্তর্জাতিক ক্রিকেট সংস্থা, আইসিসি। কয়েকমাস আগে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে কিভাবে জুয়াড়িরা ম্যাচ ফিক্সিংয়ের সাথে জড়িত থাকে সে বিষয়ে একটি ডকুমেন্টারি প্রকাশ করে আল জাজিরা। সেখানে উপস্থিত সকল জুয়াড়িদের তথ্য পেলেও ডি-কোম্পানির মুনাওয়ারের এখনো কোন সন্ধান পায়নি আইসিসি। তাকে খুঁজে পেতে মিডিয়ার শরণাপন্ন হয়েছে আইসিসি।

এই জুয়াড়ির সন্ধানে আইসিসি

বর্তমানে ক্রিকেটে জুয়াড়িদের সংখ্যা বেড়েছে। বিশেষ করে ফ্র্যাঞ্চাইজি ভিত্তিক টি-টোয়েন্টি লিগ গুলোতে ফিক্সিংয়ের সঙ্গে জড়িত থাকার খবর হারহামেশাই পাওয়া যায়। ফ্র্যাঞ্চাইজি ভিত্তিক টি-টোয়েন্টি থেকে ফিক্সিং ছড়িয়ে পড়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটেও। ফিক্সিংয়ের সঙ্গে জড়িত থাকার কারণে নিষিদ্ধ হয়েছেন অনেক ক্রিকেটারই। গত মে’তে ফিক্সিং বিষয়ক একটি ডকুমেন্টারি তৈরি করে আন্তর্জাতিক জনপ্রিয় টিভি চ্যানেল আল-জাজিরা।

সেই ডকুমেন্টারিতে উপস্থিত ছিলেন বেশ কয়েকজন জুয়াড়ি। তার মধ্যে একজন, মুনাওয়ারকে পরিচয় করে দেওয়া হয় আন্ডারগ্রাউন্ডের ডন দাউদ ইব্রাহিমের ডি-কোম্পানির একজন সদস্য হিসেবে। সেখানে তারা কিভাবে একটা ম্যাচে ম্যাচ ফিক্সিং করে সেটি জানান মুনাওয়ার। আল-জাজিরার ভিডিও দেখার পর এই জুয়াড়ির পরিচয় খুঁজছে আইসিসি। মঙ্গলবার এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে আকসুর মহাব্যবস্থাপক অ্যালেক্স মার্শাল বলেন ডকুমেন্টারিতে থাকা বাকি জুয়াড়িরদের চিহ্নিত করতে পেরেছে আইসিসি তবে মুনাওয়ারের ব্যাপারটা এখনো রহস্যই লাগছে তাদের।

Also Read - ব্যক্তিগত কোনো লক্ষ্য নেই, খেলবেন দলের জন্য


“আল জাজিরার ডকুমেন্টারি দেখে আমরা বাকি সবাইকেই চিহ্নিত করতে পেরেছি এবং ম্যাচ ফিক্সিংয়ে তাদের জড়িত থাকার ব্যাপারে জিজ্ঞাসাবাদও করেছি। কিন্তু এই অনীল মুনাওয়ারের পরিচয়টা এখনো আমাদের কাছে রহস্য। পুরো ডকুমেন্টারিতে সে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছিল। তবুও তার ব্যাপারে বিস্তারিত জানা সম্ভব হয়নি।”

তিনি আরও যোগ করেন, “অনীল মুনাওয়ারের পরিচয় জানা খুব দরকার। তাই আমরা মিডিয়া থেকে শুরু করে ক্রিকেট পরিবারের সাথে জড়িত যে কোনো সাধারণ মানুষের কাছেও আবেদন করছি তার পরিচয় জানানোর জন্য। পুলিশি তদন্তেও প্রায়শই এমন অনুরোধ করতে দেখা যায়।”

উল্লেখ্য, আল-জাজিরাই সেই ডকুমেন্টারি প্রকাশ হওয়ার পর নড়েছড়ে বসে আইসিসি। সেই ডকুমেন্টারি অনুযায়ী বেশ কয়েকটি আন্তর্জাতিক ম্যাচে ফিক্সিংয়ের অভিযোগ স্বীকার করে তারা। মুনাওয়ার আরও জানান ৬০-৭০ ভাগ ম্যাচই তারা ফিক্সিং করে থাকেন।

আরও পড়ুনঃ ব্যক্তিগত কোন লক্ষ্য নেই মিরাজের

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Related Articles

ফিক্সিংয়ের অভিযোগে নিষিদ্ধ আরব আমিরাতের চার ক্রিকেটার

আইসিসিকে নিশামের খোঁচা

ভারতের দাবি উপেক্ষা করে টুর্নামেন্ট বাড়াচ্ছে আইসিসি

সুপার ওভারের নিয়মে পরিবর্তন আনল আইসিসি

তুলে নেওয়া হল জিম্বাবুয়ের নিষেধাজ্ঞা