এককভাবে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির আয়োজক হতে চায় বাংলাদেশ

আইসিসির নতুন এফটিপিতে আছে বেশ কয়েকটি বৈশ্বিক আসর। এর মাঝে আছে ‘বাতিলের খাতা’য় চলে যাওয়া চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিও। বিশ্বের বড় দলগুলোর জমজমাট টুর্নামেন্ট চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির আগামী আসরের আয়োজক হতে চায় বাংলাদেশ।

এককভাবে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির আয়োজক হতে চায় বাংলাদেশ

Advertisment

আগামী এফটিপিতে আছে দুটি ওয়ানডে ও চারটি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। তবে এককভাবে বিশ্বকাপ আয়োজনের ক্ষেত্রে যে শর্ত আছে, তা পূরণ করা বাংলাদেশের জন্য একটু কঠিনই বটে। বিসিবি তাই বিশ্বকাপের আয়োজক হতে চায় যৌথভাবে।

তবে আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি এককভাবেই আয়োজন করতে চায় বাংলাদেশ। সেক্ষেত্রে ২০২৫ সালের আসরেই চোখ বিসিবির।

বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন বলেন, ‘এখানে (বৈশ্বিক আসর আয়োজনে) কতগুলো সমস্যা আছে। আইসিসি ওয়ানডে বিশ্বকাপ আয়োজন করতে দশটা পরিপূর্ণ ভেন্যু দরকার। এটার আয়োজক তারাই হতে পারবে যাদের সব সুযোগ-সুবিধাসহ দশটা পরিপূর্ণ ভেন্যু আছে। আমাদের তো নেই, এটা তো আমাদের পক্ষে সম্ভব না। যদি টি-টোয়েন্টিতে যাই, তাহলে অন্তত ৮টি ভেন্যু লাগবে। এটাও আমাদের জন্য কঠিন।’

তবে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির আয়োজক হতে যেসব শর্ত রয়েছে তা আছে বাংলাদেশের পক্ষেই। পাপন জানান, ‘আরেকটা আছে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি, এটা আমাদের জন্য ঠিক আছে। এটা আমরা আয়োজন করতে পারি (এককভাবে)। আমরা ঠিক করেছি, এককভাবে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি আয়োজনের চেষ্টা করব।’

এককভাবে না পারলেও যৌথভাবে ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ আয়োজন করতে চায় বাংলাদেশ। সেজন্য উপমহাদেশের তিন পরাশক্তি দেশের সাথে যোগাযোগ করা হবে শীঘ্রই।

পাপন বলেন, ‘ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ একা পারব না, যৌথভাবে করব। আমাদের ইচ্ছা আছে এসিসির অধীনে যারা আছি তাদের সাথে কথা বলে একসাথে আয়োজনের প্রস্তাব দিব। যৌথভাবে আয়োজন করলে পাওয়ার সম্ভাবনা অনেক বেশি। আমরা পাকিস্তান, শ্রীলঙ্কা, ভারতের সাথে কথা বলব। সময় খুব কম। দুই একদিনের মধ্যেই সেরে ফেলতে হবে।’