Scores

বিসিবি প্রেসিডেন্টস কাপের ‘সেরা একাদশ’

রবিবার নাজমুল একাদশ এবং মাহমুদউল্লাহ একাদশের মধ্যকার ফাইনাল ম্যাচ দিয়ে শেষ হয়েছে বিসিবি প্রেসিডেন্টস কাপ। সেরা পারফর্মারদের নিয়ে টুর্নামেন্ট সেরা একাদশ বাছাই করেছে বিডিক্রিকটাইম। টুর্নামেন্টের নিয়ম অনুযায়ী রাখা হয়েছে সুপার সাবও।

লিটনের অর্ধশতকে শিরোপার সুবাস পাচ্ছে মাহমুদউল্লাহ একাদশ

১. লিটন দাস: পাঁচ ইনিংসে ২২.২০ গড় এবং ৯৩.২৭ স্ট্রাইক রেটে ১১১ রান করেছেন তিনি। ওপেনারদের মধ্যে যা কিনা সর্বোচ্চ। ফাইনাল ম্যাচে খেলেছেন ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ ৬৮ রানের ইনিংস। বাকি ওপেনাররা সুবিধা করতে না পারায় সেরা একাদশে জায়গা করে নিয়েছেন লিটন।

Also Read - ক্রিকেট দক্ষিণ আফ্রিকার সব সদস্যের পদত্যাগ


২. ইমরুল কায়েস: পাঁচ ইনিংসে ৩৬.৫০ গড় এবং ৮৩.৯০ স্ট্রাইক রেটে ১৪৬ রান করেছেন ইমরুল। প্রেসিডেন্টস কাপে মাত্র এক ম্যাচে ওপেনিং করলেও বাকি ওপেনারদের ব্যর্থতার মিছিলে তাকেই ওপেনার হিসেবে বেছে নিচ্ছে বিডিক্রিকটাইম।

৩. আফিফ হোসেন : ব্যাট হাতে বেশ দ্যুতিই ছড়িয়েছেন নাজমুল একাদশের এ ক্রিকেটার। ব্যাট হাতে পাঁচ ইনিংসে ৩১.৪০ গড় এবং ৮৩.৬০ স্ট্রাইক রেটে ১৫৭ রান করেছেন আফিফ।

৪. মুশফিকুর রহিম : টুর্নামেন্টের প্রথম ম্যাচ এবং শেষ ম্যাচে রান পেলেও ব্যাট হাতে টুর্নামেন্টে সবচেয়ে সফল ব্যাটসম্যান মুশফিক। ব্যাট হাতে হাঁকিয়েছেন একটি সেঞ্চুরি এবং দুইটি ফিফটি। পাঁচ ইনিংসে ৪৩.৮০ গড়ে করেছেন ২১৯ রান। ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ ১০৩ রান।

 

আফিফ-মুশফিকের ব্যাটে নাজমুল একাদশের টুর্নামেন্ট-সেরা সংগ্রহ

৫. মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ (অধিনায়ক) : বিসিবি প্রেসিডেন্টস কাপে দলনেতা হিসেবে সবচেয়ে সফল ছিলেন মাহমুদউল্লাহ। শুধু টুর্নামেন্টে চ্যাম্পিয়ন নয়, ব্যাট হাতেও সমানতালে দলকে নেতৃত্ব দিয়েছেন তিনি। পাঁচ ইনিংসে ৪০.৫০ গড় এবং ৭০.৭৪ স্ট্রাইক রেটে করেছেন ১৬২ রান। নামের পাশে রয়েছে দুইটি ফিফটিও। এছাড়াও বল হাতে পেয়েছেন দুইটি উইকেট।

৬. নুরুল হাসান (উইকেটকিপার) : মুশফিকের পাশাপাশি উইকেটকিপার হিসেবে বেশ সফল ছিলেন নুরুল হাসান। উইকেটের পেছনে সর্বাধিক ক্যাচের পাশাপাশি ব্যাট হাতেও সফল ছিলেন তিনি। চার ইনিংসে ১০৮ গড়ে করেছেন ১০৮ রান।

৭. ইরফান শুক্কুর : টুর্নামেন্টে নাজমুল একাদশের হয়ে ফিনিশারের কাজটা বেশ ভালোভাবেই করেছেন শুক্কুর। সেরা রান সংগ্রাহকের তালিকায় মুশফিকের পরেই রয়েছেন তিনি। রান তোলার পাশাপাশি স্ট্রাইক রোটেশনও বেশ ভালো করেছেন শুক্কুর। পাঁচ ইনিংসে ৭১.৩৩ গড়ে করেছেন ২১৪ রান। যা কিনা টুর্নামেন্টের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ।

৮. মেহেদি হাসান : স্পিনারদের মধ্যে নাসুম, রিশাদরা ভালো করলেও হাত ঘুরানোর পাশাপাশি ব্যাট হাতেও রান পেয়েছেন এ ক্রিকেটার। চার ইনিংসে ৪.০১ ইকোনমিতে পেয়েছেন দুইটি উইকেট সেই সাথে ব্যাট হাতে ৩৫.৩৩ গড়ে করেছেন ১০৬ রান। ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ ৮২ রান।

সাইফউদ্দিনের অগ্নিঝরা বোলিংয়ে নাগালে তামিমদের লক্ষ্য

৯. মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন : বোলারদের মধ্যে টুর্নামেন্টে সবচেয়ে সফল ছিলেন পেস অলরাউন্ডার সাইফউদ্দিন। চার ম্যাচে পেয়েছেন ১২টি উইকেট। এমনকি বল হাতে পাঁচ উইকেটও পেয়েছেন একবার। ব্যাট হাতে তেমন সফল না হলেও চার ইনিংসে করেছেন ৬৩ রান।

১০. তাসকিন আহমেদ : টুর্নামেন্টে যেখানে পেসারদের জয়জয়কার সেখানে পিছিয়ে নেই তাসকিনও। বল হাতে দলকে শুরুতে এবং গুরুত্বপূর্ণ সময়ে উইকেট এনে দিয়েছেন এ পেসার। পাঁচ ম্যাচে ৪.৪৮ ইকোনমিতে পেয়েছেন ৭ উইকেট।

১১. মুস্তাফিজুর রহমান : বিসিবি প্রেসিডেন্টস কাপে পেসারদের মধ্যে সবচেয়ে কিপটে বোলার ছিলেন মুস্তাফিজ। ৩.৫৭ ইকোনমিতে পেয়েছেন ৮টি উইকেট।

১২. রুবেল হোসেন (সুপার সাব) : টুর্নামেন্টে বল হাতে বেশ সফল ছিলেন রুবেল। পাঁচ ইনিংসে ৪.০২ ইকোনমিতে নিয়েছেন ১২ উইকেট। তবে নির্বাচিত একাদশে জায়গা হারিয়েছেন বাকি তিন পেসারের কাছে। যার কারণে রুবেলকে রাখা হয়েছে ১২তম সদস্য হিসেবে।

এক নজরে টুর্নামেন্টের সেরা একাদশঃ

লিটন দাস, ইমরুল কায়েস, আফিফ হোসেন, মুশফিকুর রহিম, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ-(অধিনায়ক), নুরুল হাসান-(উইকেটকিপার), ইরফান শুক্কুর, মেহেদি হাসান, মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন, তাসকিন আহমেদ, মুস্তাফিজুর রহমান, রুবেল হোসেন-(সুপার সাব)।

বল বাই বল লাইভ স্কোর পেতে আর নয় বিদেশি অ্যাপ। বাংলাদেশ ক্রিকেটের সাম্প্রতিক খবর এবং বল বাই বল লাইভ স্কোর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে BDCricTime সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান ক্রিকেট অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।

Related Articles

মাশরাফির কাছে ম্যারাডোনাই সবচেয়ে বড় সুপারস্টার

ম্যারাডোনার প্রয়াণে সাকিবের আবেগঘন বার্তা

ক্রিকেট এক বলের খেলা, খেলেই জিততে হবে : আরিফুল

নিজের ব্যাটিংয়ে খুশি পারভেজ, কুড়ালেন তামিমের প্রশংসাও

দুঃসময়ে তামিমকে পাশে পাচ্ছেন মিরাজ