একুশ শতকের সেরা টেস্ট ব্যাটসম্যান শচীন টেন্ডুলকার

0
540

অবসরের আট বছর পেরিয়ে গেলেও ক্রিকেট অঙ্গনে শচীন বন্দনা এখনও আগের মতই আছে। কুমার সাঙ্গাকারাকে পেছনে ফেলে একবিংশ শতাব্দীর সেরা টেস্ট ব্যাটসম্যানের খেতাব জিতে নিলেন মাস্টার ব্লাস্টারখ্যাত শচীন রমেশ টেন্ডুলকার।

Advertisment
চট্টগ্রাম টেস্টে সেদিন শতক হয়নি শচীনের!
শচীন টেন্ডুলকারের সেঞ্চুরি উদযাপন। ফাইল ছবি

 

ইংল্যান্ডের সাউদাম্পটনে চলছে ভারত ও নিউজিল্যান্ডের মধ্যে বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনাল। বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের প্রথম আসরের ফাইনাল হওয়ায় এই মুহুর্তে গোটা বিশ্বজুড়েই মাতম চলছে টেস্ট ক্রিকেট নিয়ে। টেস্ট ক্রিকেটের প্রতি এই বাড়তি আগ্রহকে কাজে লাগিয়ে দর্শক ভোট ও নিজস্ব ধারভাষ্য প্যানেল সাজিয়ে একবিংশ শতাব্দীর সেরা টেস্ট ব্যাটসম্যানকে খুঁজে বের করতে জরিপ চালিয়েছে স্টার স্পোর্টস।

স্টার স্পোর্টসের ধারভাষ্য প্যানেলে থাকা চারজনই সাবেক ভারতীয় ক্রিকেটার। তারা হলেন- সুনীল গাভাস্কার, ভিভিএস লক্ষ্মণ, ইরফান পাঠান ও আকাশ চোপড়ার মতো জনপ্রিয় ক্রিকেট ব্যক্তিত্বরা । এই চার ধারাভাষ্যকার ও ভক্তদের ভোটে একুশ শতকের সেরা ব্যাটসম্যান হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন শচীন টেন্ডুলকার।

ধারাভাষ্য প্যানেলের প্রবীণতম সদস্য সুনীল গাভাস্কার এক ভিডিও বার্তায় মুম্বাইয়ের ছেলে শচীনকে বিজয়ী হিসেবে ঘোষণা করেন। ভিডিও বার্তায় এই ভারতীয় কিংবদন্তি বলেন, “এখানে খুবই শক্ত লড়াই হয়েছে। কুমার সাঙ্গাকারা ও শচীন টেন্ডুলকার দুজনেই ক্রিকেটের আইকন। কিন্তু ভোটে আমার মুম্বাইয়ের সতীর্থ শচীন রমেশ টেন্ডুলকার একবিংশ শতাব্দীর সেরা টেস্ট খেলোয়াড়ের খেতার জিতেছেন।”

ক্রিকেট ইতিহাসের একমাত্র খেলোয়াড় হিসেবে ২০০ টেস্ট খেলে সর্বাধিক ১৫,৯২১ রানের মালিক শচীন। টেস্ট ক্রিকেটে ৫১ সেঞ্চুরি আর ৬৮ হাফসেঞ্চুরি নিয়ে সবাইকে ছাপিয়ে গেছেন লিটল মাস্টার। তাইতো টেস্ট ক্রিকেটের সর্বকালের সেরাদেরই একজন তিনি।

তবে একুশ শতকের সেরা টেস্ট ব্যাটসম্যানের খেতাব না জেতায় নিজেকে খানিকটা দুর্ভাগা ভাবতেই পারেন লঙ্কান উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান কুমার সাঙ্গাকারা। অন্তত পরিসংখ্যান তো সেটাই বলছে।

একুশ শতকে (২০০১ সাল থেকে) ১২৭টি টেস্ট খেলে শচীনের ব্যাট থেকে এসেছে ১০ হাজার ৮০ রান। সেঞ্চুরি করেছেন ৩০টি। একই সময়ে ১৩৬টি টেস্টে সাঙ্গাকারা রান করেছেন ১২ হাজারেরও বেশি। সঙ্গে এই উইকেকটকিপারের উইলো থেকে থেকে শচীনের চেয়ে সেঞ্চুরি বেশি এসেছে আটটি।