Scores

এনটিনি জুনিয়রের বোলিং তোপে জুতা খুলে গেল এবির

ধারাভাষ্যকক্ষে বসে ম্যাচের ধারা বিবরণী বর্ণনা করছেন বাবা, মাঠে তারই সাবেক সতীর্থদের সাথে খেলছেন ছেলে। সাবেক দক্ষিণ আফ্রিকান পেসার মাখায়া এনটিনির ছেলে থাডো এনটিনির অসাধারণ এক বলে এবি ডি ভিলিয়ার্স পরাস্ত হয়ে জুতা খুলে গেলে ধারাভাষ্যকক্ষ থেকেই ছেলেকে বাহবা দেন বাবা।

পিএসএল খেলবেন এবিডি ভিলিয়ার্স!

দীর্ঘদিন পরে ক্রিকেট ফিরেছে দক্ষিণ আফ্রিকায়। করোনাভাইরাসের ক্ষতিগ্রস্ত মানুষদের সহায়তার লক্ষ্যে আয়োজন করা হয় এই ম্যাচ। ম্যাচ থেকে প্রাপ্ত অর্থ প্রদান করা হবে সাহায্যার্থে। ইতিহাসে প্রথমবারের মতো একই ম্যাচে তিনটি দল খেলেছে এই ম্যাচে।

Also Read - আগামী সপ্তাহেই ক্রিকেটে ফিরছে দর্শক


ঈগলের অধিনায়ক হিসাবে খেলেছেন ডি ভিলিয়ার্স। প্রতিপক্ষ দল কিংফিশারে ছিলেন এনটিনি জুনিয়র থাডো। বাবার মতোই ২২ গজ কাঁপানো পেসার হওয়ার ইঙ্গিত দিয়ে দিয়েছেন তিনি। ব্যাটিংয়ে ছিলেন ডি ভিলিয়ার্স ও এইডেন মার্করাম। থাডোর হাতে বল তুলে দেন কিংফিশারের অধিনায়ক। ধারাভাষ্যকক্ষ থেকে বাবা দেখছিলেন থাডোর খেলা।

বাবাকে হতাশ করেননি থাডো। তার অসাধারণ এক ইয়র্কারে পরাস্ত করেন ডি ভিলিয়ার্সকে। ভাগ্য সহায় থাকলে হয়তো পেয়ে জেতেন ডি ভিলিয়ার্সের উইকেটটাও। তবে উইকেট না পেলেও জুতা খুলিয়ে ফেলেছেন বিশ্ব নন্দিত এই ব্যাটসম্যানের। ছেলের কীর্তি দেখে মাঠ থেকেই ছেলেকে বাহবা দেন বাবা। মাইক্রোফোন হাতে উচ্ছ্বাসে বলে ওঠেন, ‘দারুণ খেলেছ, বৎস!’

প্রসঙ্গত, ৬৬ রানে ১ উইকেট নিয়ে প্রথম ৬ ওভার খেলা শেষে বিরতিতে যায় এবিস ঈগলস। বিরতি থেকে ফিরে যেখানে রেখে গিয়েছিলেন সেখান থেকেই আবার শুরু করেন। বিরতি থেকে ফেরার পরে এবিকে আরও আক্রমণাত্মক দেখা যায়। ফিরেই দুই ওভারে দুইটি ছয় ও একটি চার হাঁকান তিনি। অর্ধশতক পূরণ করেন ২১ বলে। ঈগলের অধিনায়ককে আউট করেন অ্যানরিখ নর্টজে। এই পেসারের শিকার হওয়ার আগে ডি ভিলিয়ার্স করেন ২৪ বলে ৬১ রান।

Related Articles

নাম বদলে ফেললেন এবি ডি ভিলিয়ার্স

ফিলিপের মধ্যে নিজের ছায়া দেখছেন ডি ভিলিয়ার্স

মাশরাফির অধীনে খেলা অনেক মজার ছিল : এবি

সামর্থ্য জেনেই সাকিবকে তিনে খেলতে বলেছিলেন ডি ভিলিয়ার্স

আইপিএল না জেতার কষ্ট ভুলতে চান কোহলি-ডি ভিলিয়ার্সরা