এবাদতের অগ্নিঝরা বোলিং, আফ্রিদির লেগ স্পিন জাদু

0
601

শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাবের বিপক্ষে আগে ব্যাটিং করে ১৩৩ রান সংগ্রহ করেছে মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব। পারভেজ হোসেন ইমন ও শামসুর হোসেন শুভ অর্ধশতকের আশা দেখালেও হতাশ করেছেন। অপরদিকে দুর্দান্ত বোলিং করেছেন মিনহাজুল আবেদীন আফ্রিদি ও এবাদত হোসেন।

আফ্রিদির লেগ স্পিন জাদু, এবাদতের অগ্নিঝরা বোলিং

Advertisment

শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টস জিতে মোহামেডানকে আগে ব্যাটিং করার আমন্ত্রণ জানায় শেখ জামাল। প্রথম ওভারেই আব্দুল মজিদকে শিকার করে শেখ জামালকে উইকেট এনে দেন এবাদত। ইরফান শুক্কুরও সুবিধা করতে পারেননি। ১৮ বলে ১৭ রান করে ফেরেন তিনি। ৩১ রানে ২ উইকেট হারায় মোহামেডান।

তৃতীয় উইকেটে ৬১ রানের জুটি গড়েন পারভেজ হোসেন ইমন ও শামসুর রহমান শুভ। ৩৫ বলে ৪৬ রান করে আফ্রিদির শিকার হন ইমন। ৩ চার ও ৩ ছক্কা ছিল তার ইনিংসটিতে। ইমন ফিরলেও শামসুর সচল রাখেন মোহামেডানের রানের চাকা। তবে মাহমুদুল হাসান লিমন ১২ বলে ৩ রানের দৃষ্টিকটু ইনিংসে চাপে পড়ে যায় মোহামেডান। লিমনকে বোল্ড করেন এবাদত।

ভালো ব্যাটিং করতে থাকা শামসুরকেও শিকার করেন এবাদত। উইকেটটির পরেই শামসুর ও এবাদতের মধ্যে কিছু উত্তপ্ত বাক্য বিনিময় হয়। শামসুরকে দেখা যায় মেজাজ হারাতে। তবে এবাদত নিজেকে সামলে নেন। ৪ ওভারে ১৭ রান দিয়ে ৩টি উইকেট নেন ডানহাতি পেসার।

নির্ধারিত ২০ ওভারে মোহামেডান ৮ উইকেট হারিয়ে সংগ্রহ করেছে ১৩৩ রান। শেখ জামালের পক্ষে এই টুর্নামেন্ট প্রথম ম্যাচ খেলার সুযোগ পেয়েই কাজে লাগিয়েছেন লেগ স্পিনার আফ্রিদি। ৪ ওভারে ২০ রান খরচায় ১টি উইকেট শিকার করেন তিনি। জিয়াউর রহমান ৪ ওভারে ২৯ রান দিয়ে নেন ৩টি উইকেট। নাসির হোসেন ৪ ওভারে ২৪ রান খরচ করলেও কোনো উইকেট পাননি।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব ১৩৩/৮ (২০ ওভার)
শামসুর ৪৯, ইমন ৪৬, ইরফান ১৭;
এবাদত ৪-০-১৭-৩, জিয়া ৪-০-২৯-৩, আফ্রিদি ৪-০-২০-১।