Scores

এবাদতের উপর আস্থা আছে চম্পকার

এবাদত হোসেন- জাতীয় দলের নতুন মুখ। হ্যামিল্টন টেস্টে অভিষেকের মাধ্যমে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে শুরু হয়েছে তার যাত্রা। কিউই ব্যাটসম্যানদের দৃঢ় ব্যাটিংয়ের ইনিংস বল হাতে আহামরি কিছু করতে না পারলেও তিনি কুড়িয়ে নিয়েছেন প্রধান কোচ স্টিভ রোডসের প্রশংসা।

এবাদতের উপর আস্থা আছে চম্পকার

রোডস তাকে আখ্যা দিয়েছেন বাংলাদেশের পেস আক্রমণের ভবিষ্যৎ বলে। তবে শুধু রোডসই নন, এবাদতের উপর আস্থা আছে তাকে কাছ থেকে দেখা কোচ চম্পকা রমানায়েকে। হাই পারফরম্যান্স ইউনিটের এই শ্রীলঙ্কান কোচ এবাদতের পারফরম্যান্সের উন্নতির পেছনে রেখেছেন গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা।

Also Read - ‘তরুণরা এগিয়ে আসো, কী হচ্ছে এসব!’


শনিবার (২ মার্চ) সংবাদমাধ্যমের সাথে আলাপকালে চম্পকার কণ্ঠে ঝরল এবাদতের জন্য প্রশংসা।

চম্পকা জানালেন, এবাদতের বিশেষ বৈশিষ্ট্য তার বলের গতি। নিউজিল্যান্ডের মত পেস বান্ধব উইকেটে শিষ্যকে খেলতে দেখে খুশি শিক্ষক। এবাদতের উপর আস্থা প্রকাশ করে তিনি বলেন, ‘সে খুব জোরে বল করতে পারে। নিউজিল্যান্ডে তার বোলিং দেখে আসলেই ভালো লেগেছে। ক্যাচ মিস না হলে শুরুতেই উইকেট পেতে পারত। তার প্রতিভায় আমার শতভাগ আস্থা আছে।’

তিনি মনে করেন, নিউজিল্যান্ড সফররত বাংলাদেশ দলের তরুণ পেসারদের অভিজ্ঞ হয়ে উঠতে সময় দেওয়া প্রয়োজন, নিউজিল্যান্ড সফরে যে পেসাররা খেলছে, তারা সবাই নতুন। তাদের সময় দিতে হবে অভিজ্ঞ হয়ে উঠতে।’

এবাদতের বৈশিষ্ট্য ‘ভালো বোলার’দের সাথে মিলে যায় বলেই জানালেন চম্পকা। তিনি বলেন, ‘আমি ইবাদতকে নিয়ে স্কিল-বিষয়ক কাজ করেছি। দেখেছি তার বোলিং অ্যাকশন। সে যেভাবে বল আঙুল থেকে বের করছে, সব ভালো বোলাররা সেখান থেকেই করে। সব বল যখন একইভাবে হাত থেকে ছাড়তে পারবে তখন তার লাইন-লেন্থ আরও ভালো হবে।’

‘সে মাত্র একটা ইনিংস বল করেছে। যদিও অনেক ওভার করেছে। ভালো একটি টিমের সঙ্গে সে অনেক ওভার করেছে, এখান থেকে সে অনেক শিখতে পারবে। কীভাবে পেস ঠিক রেখে ধারাবাহিকভাবে ভালো বোলিং করা যায় সেটি নিয়ে আমরা কাজ করেছি।’– বলেন তিনি।

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Related Articles

শহিদুল-এবাদতদের বোলিং তোপে দিশেহারা কর্নাটক

নিউজিল্যান্ডে খালেদ-রাহী-এবাদতের কথা বুঝতেন না টাইগাররা!

রোডসকে মুগ্ধ করেছেন অভিষিক্ত এবাদত

লাল বলে স্বপ্ন দেখা এবাদত তো নতুন নন!

‘জুনিয়র’ সতীর্থদের মুস্তাফিজের ‘দাওয়াই’